বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ৭ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০ জিলহজ, ১৪৪০ হিজরি

বিজ্ঞাপন

বগুড়ায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, পানিবন্দি ২ হাজার পরিবার

জুলাই ১৮, ২০১৯ | ১:৩৫ অপরাহ্ণ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

বগুড়া: বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে যমুনার পানি বৃদ্ধির সঙ্গে ডুবতে শুরু করেছে চরাঞ্চলের উচুঁ স্থানগুলোও। গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনার পানি প্রবাহিত হচ্ছে বিপৎসীমার ১২৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে।

পানি বেড়ে যাওয়ায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে বগুড়ায়। চরাঞ্চলের লোকজন যেসব উচুঁস্থানে আশ্রয় নিয়েছিল সেখানেও বন্যার পানি উঠতে শুরু করেছে। উপজেলার কুড়িপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গবাদি পশুসহ আশ্রয় নিয়েছে শতাধিক মনুষ। গতকাল দুপুরের পর থেকে সেখানেও বন্যার পানি ছুঁইছুঁই করতে দেখা গেছে।

মথুরাপাড়ার কাছে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধও রয়েছে হুমকির মুখে। বাঁধের বিভিন্ন স্থান থেকে পানি চোয়াতে শুরু করেছে। সেখানে ফেলা হচ্ছে বালিভর্তি বস্তা।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তাবয়ন অফিস সূত্রে জানা গেছে, বন্যা দূর্গত মানুষের মাঝে গতকাল ১৪৬ মেট্রিক টন চাল, বিভিন্ন আইটেমের ১ হাজার প্যাকেট খাবার, ১ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বন্যার্তদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

অপরদিকে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ধুনট উপজেলার ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়নে পানি প্রবেশ করেছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে যমুনা নদীর বৈশাখী, রাধানগর ও বথুয়ারভিটা চরের প্রায় ২ হাজার পরিবার।

এছাড়া বাধের পাশে সহরাবাড়ী ও শিমুলবাড়ি গ্রামের সম্পূর্ণ এবং আটাচর, বানিয়াজান, কৈয়াগাড়ী, রঘুনাথপুর, বান্ডারবাড়ি, পুকুরিয়া, ভূতবাড়ি ও মাধাবডাঙ্গা গ্রামের আংশিক এলাকায় বন্যার পানি প্রবেশ করেছে। এসব এলাকার সাতটি বিদ্যালয়ের পাঠদান বন্ধ রাখা হয়েছে।

এদিকে বন্যা পরিস্থিতি মোবাবেলায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গঠিত টিম সার্বক্ষণিক বন্যা দুর্গত এলাকায় অবস্থান করে ত্রান কার্যক্রম পরিচালনা করছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন সূত্র।

সারাবাংলা/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন