বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ৭ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০ জিলহজ, ১৪৪০ হিজরি

বিজ্ঞাপন

নেতাভিত্তিক থেকে কর্মীভিত্তিক দলে পরিণত হবে জাপা: জি এম কাদের

জুলাই ১৮, ২০১৯ | ১০:০১ অপরাহ্ণ

আজমল হক হেলাল, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: জাতীয় পার্টি (জাপা) আর কোনো নেতাভিত্তিক দল হয়ে থাকবে না। এটি এখন পরিণত হবে কর্মীভিত্তিক দলে। এমন কথা বলেছেন দলের নতুন চেয়ারম্যান জি এম কাদের। এছাড়াও দলীয় রাজনীতিতে বাণিজ্য বন্ধ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তিনি। দলে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার কথাও বলেছেন। আরও বলেছেন, দলের অগণতান্ত্রিক ধারাগুলো তিনি পাল্টে দেবেন।

সারাবাংলা.নেট’র এই প্রতিবেদকের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন দলটির সদ্যঘোষিত চেয়ারম্যান।

জাতীয় পার্টির সদ্যপ্রয়াত চেয়ারম্যান ও বড় ভাই হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের স্থলাভিষিক্ত হলেন এই সংসদ সদস্য। হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ গত ১৪ জুলাই ঢাকার একটি হাসপাতালে মারা যান। গত ১৬ জুলাই (মঙ্গলবার) রংপুরে তাকে দাফন করা হয়।

এর দুইদিন পর বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) সকালে এক সাংবাদিক সম্মেলনে জি এম কাদেরকে দলের চেয়ারম্যান হিসেবে ঘোষণা করা হয়। আনুষ্ঠানিকভাবে এই ঘোষণা দেন দলের মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গাঁ।

বিজ্ঞাপন

পরে সন্ধ্যায় সারাবাংলাকে জি এম কাদের বলেন, ‘দলে গণতন্ত্র না থাকলে দেশে গণতন্ত্র আনা সম্ভব নয়। জাতীয় পার্টি গণতান্ত্রিক দলে পরিণত হতে চায়।’ নেতাভিত্তিক দল থেকে কর্মীভিত্তিক দল গঠন করতেই কাজ করবেন তিনি।

সারাবাংলা’র এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘জাতীয় সংসদে বিরোধীদল হিসেবে তার দল থেকে কে বিরোধীদলীয় নেতা হবেন তা দলীয় সর্বোচ্চ ফোরামের সিদ্ধান্তক্রমে প্রক্রিয়ামাফিক সম্পন্ন করা হবে।’

অপর প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমাদের সংগঠন আছে, জনসমর্থন রয়েছে এখন দলের সাংগঠনিক কাজে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে কাজ করব। দল শক্তিশালী হলে দেশের জনগণের প্রত্যাশা পূরণে কাজ করতে পারব।’

দলের গঠন ও পরিচালনা প্রক্রিয়াতেই কিছু অগণতান্ত্রিক ধারা রয়েছে এমন প্রসঙ্গ টানলে জি এম কাদের বলেন, ‘এসব ধারা আর থাকবে কি না তা কেন্দ্রীয় কমিটি বসে সিদ্ধান্ত নেবে।’

‘তবে কিছু ক্ষমতা দলের চেয়ারম্যানের হাতে রাখতেই হবে, এমন ঘোষণা দিয়ে এই নেতা বলেন, ‘প্রয়োজনে পুলিশকে কখনো লাঠিও হাতে তুলে নিতে হয়। সে জন্য লাঠি নেওয়ার ক্ষমতা তাকে দিতে হয়।’

তবে যা কিছু হবে জবাবদিহিতার ভিত্তিতেই হবে, বলেন জি এম কাদের।

নতুন এই দায়িত্বগ্রহণ কালে দলের সিনিয়র নেতাদের উপস্থিতি তেমন ছিল না, এটা দলের ভেতরে মতের অমিলের কোনো ইঙ্গিত কি না? জানতে চাইলে এ নেতা বলেন, ‘সিনিয়রদের মূলত ডাকাই হয়নি। দলের পরের চেয়ারম্যান কে হবেন তা প্রয়াত চেয়ারম্যান আগেই বলে গেছেন। আর দলের মহাসচিব সাংবাদিকদের ডেকে সে সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দিয়েছেন। মহাসচিব দায়িত্ব নিয়েই এই ঘোষণা দিয়েছেন। দলের ঐক্য নিয়ন্ত্রণে রাখতেই এর দরকার ছিল।’

অপর এক প্রশ্নের জবাবে জি এম কাদের বলেন, ‘দলের কাউন্সিল করে নেতৃত্ব সাজিয়ে নেওয়া হবে।’ প্রথমে উপজেলা পরে জেলা হয়ে জাতীয় পর্যায়ে কাউন্সিল করেই দলকে ঢেলে সাজাবেন তিনি।

সারাবাংলা/এএইচএইচ/এমএম

আরও পড়ুন

জাতীয় পার্টির নতুন চেয়ারম্যান জি এম কাদের
কমিটি গঠন নিয়ে জাপায় হট্টগোল, তোপের ‍মুখে জি এম কাদের
ভবিষ্যতে জাতীয় পার্টি একটি জোটের নেতৃত্ব দেবে: জি এম কাদের
দেশের স্বার্থে রাজনীতির মাঠেই থাকবো সারা জীবন: জি এম কাদের
বারবার সিদ্ধান্ত অদল-বদলে পার্টির শক্তি বেড়েছে: জি এম কাদের

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন