সোমবার ১৯ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ৪ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ জিলহজ, ১৪৪০ হিজরি

বিজ্ঞাপন

কিংসের প্রথম হার, জিতেছে শেখ রাসেল-আবাহনী

জুলাই ২০, ২০১৯ | ৯:১৬ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

চলমান বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) আজকের ম্যাচগুলো ছিল হাইভোল্টেজ ম্যাচ। চলতি মৌসুমে এখন অবধি টেবিলের চার শীর্ষ দল মাঠে নেমেছিল। শনিবার (২০ জুলাই) সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয় শীর্ষে থাকা বসুন্ধরা কিংস এবং তিনে থাকা শেখ রাসেল। অন্যদিকে, বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে মুখোমুখি লড়াইয়ে নামে দুইয়ে থাকা ঢাকা আবাহনী এবং চারে থাকা সাইফ।

সিলেটের ম্যাচে জয় তুলে নিয়েছে শেখ রাসেল। ১-০ গোলে তারা হারিয়েছে টেবিল টপার বসুন্ধরা কিংসকে। চলতি লিগে এই প্রথম ম্যাচ হারলো বসুন্ধরা কিংস। আর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে উত্তেজনা ছড়ানো ম্যাচে জয় পেয়েছে ঢাকা আবাহনী। সাইফকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে আকাশী নীল জার্সিধারীরা।

সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে বসুন্ধরা কিংসের বিপক্ষে প্রথমার্ধে কোনো গোল পায়নি শেখ রাসেল। ম্যাচের ৫২তম মিনিটে রাসেলের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন উজবেকিস্তানের ২৯ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড আলিশের আজিজভ। ৪-৩-৩ ফরমেশনে খেলা শেখ রাসেলের ডিফেন্সকে পরাস্ত করে সমতায় ফেরা হয়নি ৪-৪-২ ফরমেশনে খেলা বসুন্ধরা কিংসের।

এদিকে, ম্যাচের প্রথমার্ধে লিড নিয়েও আবাহনীকে হারাতে পারেনি সাইফ। ৩৭ মিনিটের মাথায় সাইফের হয়ে গোল করেন দেইনার কর্দোবা। এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় সাইফ। বিরতির পরই যেন নিজেদের ছন্দে ফিরে আসে আবাহনী। ম্যাচের ৫১ মিনিটে দলকে সমতায় ফেরাতে গোল করেন সানডে চিজোবা। পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে শুধু সমতাতেই ফেরাননি, ম্যাচের ৬৫ মিনিটের মাথায় নিজের দ্বিতীয় গোলটিও করেন চিজোবা।

বিজ্ঞাপন

৫৯ মিনিটের মাথায় আরও একটি পেনাল্টি লাভ করে ঢাকা আবাহনী। নাবিব নেওয়াজ জীবনের শট রুখতে পারেননি সাইফের গোলরক্ষক। তার আগে ৫৬ মিনিটের মাথায় আবাহনীর মনিশ সাইঘানি এবং সাইফের এমেরি বাইসেঙ্গে লাল কার্ড দেখলে দুই দলই দশ জনের দলে পরিণত হয়। ম্যাচের ৮০ মিনিটের মাথায় আবাহনীর হয়ে চতুর্থ গোলটি করেন মামুনুল ইসলাম। ৪-১ ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আবাহনী।

বসুন্ধরা কিংস হারলেও ২১ ম্যাচ শেষে তারাই শীর্ষে। ১৯ জয়, একটি ড্র আর প্রথম পরাজয়ে কিংসদের সংগ্রহ ৫৮ পয়েন্ট। দুইয়ে অবস্থান করছে ২২ ম্যাচের ১৮টিতে জয়, চারটিতে হারা ঢাকা আবাহনী, তাদের পয়েন্ট ৫৪। তিনে থাকা শেখ রাসেল পয়েন্ট বাড়িয়ে নিয়েছে। ২১ ম্যাচ খেলে ১৪টি জয়, তিনটি ড্র আর চারটিতে হেরে তাদের পয়েন্ট গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৪৫। আর চারে থাকা সাইফ ২১ ম্যাচের ১২টিতে জয়, ৫টিতে ড্র আর চারটিতে হেরে সংগ্রহ করেছে ৪১ পয়েন্ট।

সারাবাংলা/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন