সোমবার ১৯ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ৪ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ জিলহজ, ১৪৪০ হিজরি

বিজ্ঞাপন

হংকংয়ে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষ, সাংবাদিকসহ আহত ৪৫

জুলাই ২২, ২০১৯ | ৫:১৬ অপরাহ্ণ

বন্দি প্রত্যার্পণ বিল বাতিলের দাবিতে হংকংয়ে চলমান আন্দোলনের কর্মসূচী থেকে ফেরার পথে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের সংঘর্ষ হয়েছে। রোববার (২১ জুলাই) সারারাত ধরে ইউয়েন লঙ মেট্রোরেল স্টেশনে সাদা টি শার্ট পরিহিত মুখোশধারী একটি গ্যংয়ের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে চলা সংঘর্ষে, সাংবাদিক সহ ৪৫ জন আহত হয়েছেন। যাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশংকা জনক। খবর বিবিসির।

এর আগে, রোববার (২১ জুলাই) চীনের কেন্দ্রীয় সরকারি ভবনের লিয়াঁজো অফিসের দেয়ালে গ্রাফিতি আঁকে আন্দোলনকারীরা। তারপর এক পদযাত্রায় প্রায় চার লাখ ত্রিশ হাজার আন্দোলনকারী অংশ নেয়। প্রায় একই সময়ে পুলিশ ও কর্তৃপক্ষকে সমর্থন করে আরেকটি আন্দোলন বিরোধী পদযাত্রাও অনুষ্ঠিত হয়। পুলিশ দাবি করছে এই পদযাত্রায় এক লাখ তিন হাজার মানুষ অংশ নেয়। এই আন্দোলন থেকে ফেরার পথেই মেট্রোরেল স্টেশনে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে সাদা টিশার্ট পরিহিত মুখোশধারীদের সংঘর্ষ হয়।

হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি ল্যাম জানিয়েছেন, আন্দোলনকারীদের ওপর এ ধরনের সংঘবদ্ধ আক্রমণ সত্যিই অপ্রত্যাশিত ও দুঃখজনক।

স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, আন্দোলনকারীরা অধিকাংশই কালো কাপড় পরিহিত ছিলেন কিন্তু মেট্রোরেল স্টেশনের সংঘর্ষের ঘটনার ভিডিও ফুটেজে দেখা যায় যে, সাদা টি শার্ট পরিহিত মুখোশধারী একটি গ্যাং কাঠের লাঠি এবং লোহার রড নিয়ে আক্রমন চালাচ্ছে। কেউই তাদের পরিচয় নিশ্চিত করতে পারে নি।

বিজ্ঞাপন

তাদের হামলায় ৪৫ জন আন্দোলন সমর্থক আহত হয়েছেন।

এছাড়া সংঘর্ষের ঘটনা লাইভ ব্রডকাস্ট করার সময় স্ট্যান্ড নিউজের একজন সাংবাদিক গিউয়েন্থ হো আক্রমণকারীদের তোপের মুখে পড়েন। অনেক সাংবাদিকের সংবাদ সংগ্রহের উপকরণ ছিনিয়ে নিতে দেখা গেছে আক্রমণকারীদের।

এদিকে, সরকারি এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে হংকংয়ের মত একটি দেশে আইনের শাসনের এ ধরনের অবনতি সত্যিই দুঃখজনক। তারা সকল পক্ষকে দায়িত্বশীল আচরন করতে আহবান জানিয়েছেন।

গণতন্ত্রপন্থী আইনপরিষদ সদস্যা রে চ্যান এক টুইট বার্তায় বলেছেন, জনগনের আনুপাতে সবচেয়ে বেশি সংখ্যাক পুলিশ হংকংয়ে থাকার পরও, এধরনের ঘটনা কিভাবে ঘটে? পুলিশ তখন কি করছিল?

পুলিশ জানিয়েছে, এ ঘটনায় সোমবার (২২ জুলাই) পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার না করতে পারলেও তারা তদন্ত অব্যাহত রেখেছে।

বিবিসির চীন সংবাদদাতা স্টিফেন ম্যাকডোনেল বলেছেন, আক্রমনকারীরা মুখোশে নিজেদের পরিচয় আড়াল করার ব্যাপারে খুব সচেতন ছিল। তারা আক্রমণ চলাকালীন শুধু নিজেদের মুখোশ পড়া সেলফি অনলাইনে প্রকাশ করছিল।

সারাবাংলা/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন