বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ৭ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০ জিলহজ, ১৪৪০ হিজরি

বিজ্ঞাপন

বরিসই যুক্তরাজ্যের নতুন প্রধানমন্ত্রী

জুলাই ২৩, ২০১৯ | ৫:০৬ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

কনজারভেটিভ পার্টির সদস্যদের ভোটে দলটির নতুন নেতা নির্বাচিত হয়েছেন লন্ডনের সাবেক মেয়র বরিস জনসন। আগামীকাল বুধবার (২৪ জুলাই) আনুষ্ঠানিকভাবে তিনি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে টেরিজা মে’র স্থলাভিষিক্ত হবেন । মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে একথা বলা হয়।

এর আগে, পার্টির নিবন্ধিত ১ লাখ ৬০ হাজার সমর্থক পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট ও বরিস জনসনের মধ্যে একজনকে চূড়ান্ত করতে ভোট দিয়েছেন। সমর্থকদের রায়ে বরিস পেয়েছেন ৯২,১৫৩ ভোট,  অপরদিকে জেরেমি হান্ট পেয়েছেন ৪৬,৬৫৬ ভোট। কনজারভেটিভ পার্টির অভ্যন্তরীণ কার্যক্রম পর্যবেক্ষণকারী সংসদীয় গ্রুপ ‘১৯২২ কমিটি এতথ্য জানায়।

বরিস না জেরেমি? কে হবেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী?

গত ২৪ মে ব্রেক্সিট ব্যর্থতার জেরে প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে পদত্যাগের ঘোষণা দিলে কনজারভেটিভ পার্টির এমপিদের মধ্যে নতুন দলনেতা হওয়ার লড়াই শুরু হয় । শুরু থেকেই এই প্রতিযোগিতায় এগিয়ে ছিলেন বরিস।

এদিকে টেরিজা মে টুইটারে অভিনন্দন জানিয়েছেন নতুন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে। মে তার টুইটার বার্তায় ব্রেক্সিট বিষয়ে নতুন সরকারে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

মে বুধবার বিকেলে রানি এলিজাবেথের কাছে তার পদত্যাগপত্র জমা দিবেন বলে কথা রয়েছে। এর আগে তিনি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে গণমাধ্যমের সঙ্গে শেষবারের মতো প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নেবেন।

উল্লেখ্য, ব্রেক্সিট জটিলতায় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের পদত্যাগের পর ২০১৬ সালে তার স্থলাভিষিক্ত হন টেরিজা মে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে ব্রেক্সিট সুরাহা না হওয়ায় কনজারভেটিভ এমপিদের পীড়াপীড়িতে ৭ জুন পদত্যাগ করেন তিনি। প্রত্যাশিত ব্রেক্সিট চুক্তির স্বপ্ন দেখিয়ে এবার যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন বরিস জনসন। তিনি কতটা সফল হবেন তা সময়ই বলে দিবে। ব্রেক্সিট কার্যকর হবে আগামী ৩১ অক্টোবর।

সারাবাংলা/ এনএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন