মঙ্গলবার ১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ৩০ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

টাইগার ব্যাটসম্যানরা জেতালো বাংলাদেশকে

জুলাই ২৩, ২০১৯ | ৬:২৪ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের আগে তামিম ইকবালের নেতৃত্বে বাংলাদেশ খেলতে নেমেছিল প্রস্তুতি ম্যাচ। ঝালিয়ে নেওয়ার ম্যাচে টাইগারদের প্রতিপক্ষ ছিল শ্রীলঙ্কা বোর্ড প্রেসিডেন্ট একাদশ। স্বাগতিক দলটিকে হারিয়ে মূল সিরিজে নামবে লাল-সবুজরা। শ্রীলঙ্কা বোর্ড প্রেসিডেন্ট একাদশকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। হাতে বল বাকি ছিল আরও ১১টি।

বিজ্ঞাপন

কলম্বোয় মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন স্বাগতিক অধিনায়ক নিরোশান ডিকওয়েলা। ফিল্ডিংয়ে নেমে শুরুটা ভালোই করেছিল টাইগাররা। ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে লঙ্কান একাদশটি তোলে ২৮২ রান। ব্যাটিংয়ে নেমে ৪৮.১ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ।

ব্যাটিংয়ে নেমে স্বাগতিক ওপেনার এবং দলপতি ডিকওয়েলা শূন্য হাতেই বিদায় নেন। পেসার রুবেল হোসেনের বলে এলবির ফাঁদে পড়েন তিনি। তিন নম্বরে নামা ওদাশা ফার্নান্দোকেও (২) ফেরান রুবেল। আরেক ওপেনার দানুশকা গুনাথিলাকা ২৭ বলে করেন ২৬ রান। তাসকিন আহমেদের বলে মোসাদ্দেকের হাতে ধরা পরেন লঙ্কান এই ওপেনার। ৪৯ বলে ৩২ রান করার পথে রাজাপাকশে চারটি বাউন্ডারি হাঁকান। পার্ট টাইম সৌম্য সরকারের বলে সাব্বির রহমানের তালুবন্দি হন তিনি।

স্বাগতিকদের ব্যাটিং ইনিংসের হাল ধরেন শিহান জয়সুরিয়া এবং দাসুন শানাকা। সৌম্যর শিকারে জয়সুরিয়া বিদায় নেওয়ার আগে করেন ৫৬ রান। তার ৭৮ বলের ইনিংসে ছিল পাঁচটি বাউন্ডারি। মাঝে অ্যাঞ্জেলো পেরেরাকে (৭) ফিরিয়ে দেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ। শানাকা ব্যাটে ঝড় তুলে রানের গতি বাড়িয়ে নেন। ৬৩ বলে ৬টি চার আর ৬টি ছক্কায় ৮৬ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

ওয়ানিনদু ডি সিলভা ৩০ বলে ২৮ রান করে ফরহাদ রেজার বলে ক্যাচ তুলে দেন মোহাম্মদ মিঠুনের হাতে। তামিম ইকবাল রান আউট করেন ৯ রান করা আকিলা ধনাঞ্জয়াকে। ৯ বলে দুই বাউন্ডারিতে ১৩ রান করে অপরাজিত থাকেন আমিলা আপোনসো। বাংলাদেশি বোলাররা ৭টি লেগ বাই, ৩টি নো বল আর ১৩টি ওয়াইড বল করেন। অতিরিক্ত খাত থেকেই লঙ্কান বোর্ড প্রেসিডেন্ট একাদশ পায় ২৩ রান।

১১ জন ব্যাটসম্যান আর ১১ জন বোলার ব্যাটিং-বোলিংয়ের সুযোগ পেলেও প্রতি দলের ১৫ ক্রিকেটার খেলার সুযোগ পান। দলপতি তামিম ৯ বোলারকে ব্যবহার করেন।

বাংলাদেশের বোলিং পারফরম্যান্স:
রুবেল: ৭-০-৩১-২, তাসকিন: ৮-০-৫৭-১, মোস্তাফিজ: ৭-০-২৯-১, মোসাদ্দেক: ৬-১-২৫-০, মিরাজ: ৪-০-২৫-০, মাহমুদউল্লাহ: ৩-০-১৫-০, সৌম্য সরকার: ৬-০-২৯-২, তাইজুল ইসলাম: ৬-০-৪২-০ এবং ফরহাদ রেজা: ৩-০-২২-১।

২৮৩ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালোই করেন তামিম-সৌম্য। ওপেনিং জুটিতে তারা তুলে নেন ৪৫ রান। তামিম ৪৭ বলে ছয়টি বাউন্ডারিতে করেন ৩৭ রান। সৌম্য ২৪ বলে দুটি বাউন্ডারিতে করেন ১৩ রান। সাকিব আল হাসানের ছুটিতে তিন নম্বরে নেমে আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন মোহাম্মদ মিঠুন। আফগানিস্তান ‘এ’ দলের বিপক্ষে দ্বিতীয় আন-অফিসিয়াল ম্যাচে ৮৫ রানের ইনিংস খেলে শ্রীলঙ্কার বিমান ধরেছিলেন মিঠুন। একদিন বিশ্রাম নিয়েই এই ম্যাচে নেমেছেন ব্যাট হাতে। খেলেছেন ৯১ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। তার ১০০ বলে সাজানো ইনিংসে ছিল ১১টি চার আর একটি ছক্কার মার।

চার নম্বরে নামা মুশফিক ফিফটি হাঁকিয়েছেন। ৪৬ বলে ৬টি চার আর একটি ছক্কায় তিনি করেন ৫০ রান। ৩৭ বলে তিনটি বাউন্ডারিতে ৩৩ রান করেন ইনজুরি থেকে ফেরা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। বাকি পথটা পাড়ি দেন সাব্বির-মোসাদ্দেক। সাব্বির ২৬ বলে পাঁচটি চারের সাহায্যে ৩১ রান করে অপরাজিত থাকেন। আর মোসাদ্দেক ১০ বলে তিনটি বাউন্ডারিতে ১৫ রান করে অপরাজিত থাকেন।

শ্রীলঙ্কার লাহিরু কুমারা দুটি, রাজিথা একটি, ডি সিলভা একটি আর ধনাঞ্জয়া একটি করে উইকেট পান।

আগামী ২৬ জুলাই তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামবে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা। সিরিজের বাকি দুটি ম্যাচ ২৮ এবং ৩১ জুলাই। তিনটি ম্যাচই দিবারাত্রির। সিরিজের সব ক’টি ম্যাচ গাজী টেলিভিশন এবং র‍্যাবিটহোলের ওয়েবসাইট সরাসরি সম্প্রচার করবে।

সারাবাংলা/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন