মঙ্গলবার ২২ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ৬ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২২ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

নান্নু-সুমনে অসন্তোষ নেই পাপনের

জুলাই ২৪, ২০১৯ | ৮:১৬ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

আর মাত্র দুই দিন পরেই নান্নু-সুমনদের ভাগ্য জানা যাবে। বিসিবির সঙ্গে সদ্য সমাপ্ত তিন বছরের চুক্তি নবায়ন হলে তো ভালোই। আর তা না হলে পত্রপাট বিদায়। শেষ পর্যন্ত কী হবে সেটা অবশ্য সময়ই বলবে। তবে নির্বাচক প্যানেলের পেশাগত দায়িত্ব নিয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের যে কোনো খেদ বা অসন্তোষ নেই খোদ পাপনই সেটা স্পষ্ট করেছেন।

বিজ্ঞাপন

২০১৬ সালের জুলাইয়ে প্রধান নির্বাচক হিসেবে নান্নু এবং নির্বাচক হিসেবে হাবিবুল বাশার সুমন দায়িত্ব গ্রহণের পর বাংলাদেশের শতকরা জয়ের হার ৫২.৭%। তাছাড়া দল নির্বাচনের ক্ষেত্রেও তাদের পক্ষপাতদুষ্টু আচরণ দেখা যায়নি। সঙ্গত কারণেই পাপন তাদের পেশাগত দায়িত্ব নিয়ে কোনো কটুক্তি করেননি। বরং প্রশংসাই করেছেন।

বিসিবি সভাপতি জানান, ‘নির্বাচকদের পারফরম্যান্স খারাপ না। অসন্তুষ্ট হওয়ার মতো কোনো কারণ এখনো দেখিনি। কারণ আপনি যদি পারফরম্যান্সগুলো দেখেন আমি তো বলব ভালোই। পারফরম্যান্সের সাথে সবকিছু মেলে না। আমি তাদের ভালোই দেখছি। মানে এমন কোনো খেলোয়াড় দেখছি না যে কোনোভাবেই জায়গা পায় না, অথচ তাকে জাতীয় দলে দেওয়া হচ্ছে। এমন কোনো রিপোর্ট আমাদের কাছে নেই বা চোখেও পড়েনি। এদিক দিয়ে যদি বলেন, ঠিক আছে। আর আমি টিম জেতার সাথে এই পারফরম্যান্স আনি না। দল জেতার সাথে এর কোনো সম্পর্ক নেই। যত ভালো নির্বাচকই হোক দল যদি ভালো না খেলে, তাহলে তো কিছু করার নেই। কিন্তু রেজাল্ট ইজ গুড।’

অথচ বুধবার (২৪ জুলাই) বেক্সিমকো কার্যালয়ে একটিবারের জন্যও তিনি বলেননি তাদের সঙ্গে বিসিবি চুক্তি নবায়ন করতে যাচ্ছে কী না। পাপন যোগ করেন, ‘আগের নির্বাচক প্যানেল থাকছে কী না জানি না। আমাদের বোর্ড মিটিংয়ে অবশ্যই এটা নিয়ে একটা এজেন্ডা থাকবে। এজেন্ডা আছে। কিন্তু বদলানো হবে বা নতুন আসবে এটা নিয়ে এখানো সিদ্ধান্ত হয়নি। ২৭ তারিখে সভায় বসে অবশ্যই এই এজেন্ডা নিয়ে কথা বলব। যেহেতু সময় শেষ এখন তো আরেকটা আলোচনা আসবেই।’

বিজ্ঞাপন

হঠাৎ করেই দেশের ক্রিকেটাঙ্গনে জাতীয় দলের নির্বাচকদের নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। বিসিবির একাধীক সূত্রে জানা গেছে, বোর্ডের একাংশের পরিচালকরা নির্বাচক কমিটিতে পরিবর্তন চাচ্ছেন। বেশ কয়েকজন পরিচালক নান্নু-সুমনের চুক্তি নবায়নের বিপক্ষেও মতামত দিয়েছেন।

মূলত সম্প্রতি ঘরের মাঠে আফগনিস্তান ‘এ’ দলের কাছে হারের পরেই নির্বাচকদের ওপর অনেকে চটেছেন। কর্নাটকের মিনি রঞ্জি ট্রফিতে ভালো দল পাঠিয়ে আফগানদের বিপক্ষে অপেক্ষাকৃত দুর্বল দল দেওয়া হয়েছে বলেও কেউ কেউ নান্নু-সুমনদের দুষছেন।

সূত্রমতে, বোর্ডের এক প্রভাবশালী পরিচালক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু ও হাবিবুল বাশার সুমনকে সরিয়ে দিতে উঠেপড়ে লেগেছেন। তাদের জায়গায় খালেদ মাসুদ পাইলট, মঞ্জুরুল ইসলাম, জাভেদ ওমর বেলিমের নাম উচ্চারিত হচ্ছে।

সারাবাংলা/এমআরএফ/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন