শুক্রবার ২৩ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ৮ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২১ জিলহজ, ১৪৪০ হিজরি

বিজ্ঞাপন

পোষা প্রাণীর সঙ্গে কথা বললে বুদ্ধি বাড়ে!

জুলাই ৩০, ২০১৯ | ৫:০৪ অপরাহ্ণ

লাইফস্টাইল ডেস্ক

অনেকেই ঘরের প্রিয় বেড়াল কিংবা কুকুরকে আদরের নামে ডাকেন। দিনের শুরুতেই তাকে ‘শুভ সকাল’ বলে অভিবাবদন জানান বা ঘুমাতে যাওয়ার আগে ‘শুভ রাত্রি’ও বলেন। সারাদিন কেমন গেল বা ব্যক্তিগত যত সমস্যার মুখে পড়তে হয়, তা নিয়েও কেউ কেউ পছন্দের পোষা প্রাণীর সঙ্গে বন্ধুর মতোই গল্প করতে ভালোবাসেন। ঘরের কুকুর বা বেড়ালটির সঙ্গে এমন সখ্য দেখে হাসাহাসি করার মতো লোকের অভাব নেই। তবে গবেষণা বলছে ভিন্ন কথা। বিজ্ঞান বলছে, পোষা প্রাণীর সঙ্গে ঠিক একজন মানুষের মতো কথা বলেন যারা, তারা আসলে দারুণ বুদ্ধিমান।

অনেককেই দেখা যায় তাদের প্রিয় পোষা প্রাণীর সঙ্গে এমভাবে কথা বলছেন যেন সে-ও একজন মানুষ। এটা-সেটা নির্দেশনা দেওয়াই সব নয়, অনেকসময় সুখ-দুঃখের গল্প করতেও দেখা যায় কুকুর, বেড়াল, মুরগি, গরু, ছাগল বা অন্য কোনো পোষা প্রাণির সঙ্গে। আপাতদৃষ্টিতে অদ্ভূত মনে হলেও এমন আচরণ মানুষের বুদ্ধিমত্তা বাড়িয়ে দেয় বলেই মত দিচ্ছেন বিজ্ঞানীরা।

শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণায় দাবি করা হয়েছে, হাজার বছর ধরেই অবলা প্রাণী বা বস্তুর সঙ্গে কথা বলাকে অস্বাভাবিক হিসেবে দেখা হয়। তবে আদতে এটি মানব মস্তিষ্কের বিশেষ ধরনের দক্ষতা। গবেষকরা বলছেন, পোষা প্রাণির সঙ্গে কথা বলাকে অ্যানথ্রোপোমরফিজম বলা হয়। এটি এমন একটি আচরণ, যখন কেউ কোনো বস্তু বা প্রাণীর সঙ্গে মানবিক আবেগ, আচরণ ও অভিপ্রায় নিয়ে কথা বলে।

পোষাপ্রাণী

বিজ্ঞাপন

হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১১ সালে ‘কিউটনেস অ্যান্ড ডিসগাস্ট: দ্য হিউম্যানাইজিং অ্যান্ড ডিহিউম্যানাইজিং এফেক্টস অব ইমোশন’ নামে একটা পরীক্ষা চালানো হয়। ওই গবেষণার ফলে বলা হয়, যেসব ব্যক্তি তাদের পোষা প্রাণির সঙ্গ পছন্দ করে ও কথা বলে, তাদের বুদ্ধি অন্যদের চেয়ে বেশি হয়।

এসব গবেষণায় আরও দেখা গেছে, যেসব পোষা প্রাণীর সঙ্গে কথা বলা হয় তাদেরও বুদ্ধিমত্তা বাড়ে। বিশেষত কুকুরের সঙ্গে কথা বললে তারা মানুষের অঙ্গভঙ্গি ও কথা বলার সময় পার্থক্য তৈরি হলে তা ধরতে পারে। এতে করে তারা আমাদের মানবিক আবেগ ও কথা আরও ভালোভাবে বুঝতে পারে।

সায়েন্টিফিক স্টেটস জার্নালে প্রকাশিত আরেক গবেষণায় দেখা গেছে, কুকুরের সঙ্গে কথা বললে তারা তাদের মালিকের মতো করেই অনুভব করতে শেখে। মালিক খুশি হলে পোষ্যও খুশি থাকে।

প্রাণীদের মধ্যে মানুষ সবার আগে কুকুরকে পোষ মানাতে সক্ষম হয়। কুকুরের সঙ্গে মানুষের বন্ধুত্বের অস্তিত্ব পাওয়া যায় পাথর যুগেও। কুকুর কিংবা অন্য পোষা প্রাণীর সঙ্গে যত বেশি আবেগ প্রকাশ করবেন ও তাকে কোলে নিয়ে আদর করবেন, আপনার বুদ্ধিমত্তার মাত্রাও তত বেশি বাড়বে।

তাই বাড়িতে পোষা প্রাণী থাকলে তার সঙ্গে বেশি করে সময় কাটান। এটা আপনার বুদ্ধিমত্তার পাশাপাশি মানসিক স্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী।

 

মডেল – শারমিন শামস্ এবং তার বেড়াল মিউমিউ

ছবি- সারাবাংলা

সারাবাংলা/আরএফ/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন