বুধবার ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৯ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

নোবেল বিতর্কে মুখ খুললেন শ্রীকান্ত আচার্য

আগস্ট ৩, ২০১৯ | ১:০১ অপরাহ্ণ

এন্টারটেইনমেন্ট করেসপন্ডেন্ট

সাম্প্রতিক সময়ে ‘সারেগামাপা’ খ্যাত গায়ক নোবেলকে নিয়ে সমালোচনা তুঙ্গে। অফলাইন কিংবা অনলাইন- নোবেলকে নিয়ে সব জায়গায় চলছে সমালোচনার ঝড়।

বিজ্ঞাপন

ইউটিউবভিত্তিক এক টক শোতে নোবেলের মন্তব্য নিয়ে চলছে তোলপাড়। নোবেল বলেছেন, রবীন্দ্রনাথের লেখা জাতীয় সংগীতের পরিবর্তে দেশের জনপ্রিয় গীতিকার প্রিন্স মাহমুদের ‘বাংলাদেশ’ গানটি বাংলাদেশকে বেশি প্রতিনিধিত্ব করে। যদিও নোবেল কথাটি বলার আগে বলে নিয়েছিলেন যে, এটি তার একান্ত ব্যক্তিগত মত।

নোবেলকে নিয়ে এই সমালোচনায় ঢেউ গিয়ে আছড়ে পড়েছে পশ্চিমবঙ্গেও। ‘সারেগামাপা’র অন্যতম বিচারক শ্রীকান্ত আচার্যের কানে গিয়েও পোঁছেছে বিষয়টি। তিনিও নোবেলের এমন অর্বাচীন মন্তব্যে অবাক হয়েছেন। এ বিষয়ে শ্রীকান্ত আচার্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চায় সারাবাংলা। সারাবাংলাকে শ্রীকান্ত বলেন, ভালো গায় ছেলেটা। ‘সা রে গা মা পা’তে ওকে খুব কাছ থেকে দেখেছি। ও হঠাৎ করে এমন মন্তব্য কেনো করলো ঠিক বুঝে উঠতে পারছি না। রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে কথা বলার আগে ওর আরও সংবেদনশীল হওয়া উচিত ছিল। হুটহাট মুখে যা আসে তা বলে দিলে তা নোবেলের জন্যই ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

শ্রীকান্ত আরও বলেন, জেমসের গাওয়া প্রিন্স মাহমুদের লেখা ‘বাংলাদেশ’ গানটি আমারও পছন্দের। কিন্তু তাই বলে রবীন্দ্রনাথের ‘আমার সোনার বাংলা’কে ছোট করতে পারিনা। আমার মনে হয় নোবেল না বুঝে কথাগুলো বলেছেন। আমি তার মঙ্গল কামনা করি।

প্রসঙ্গত, শ্রীকান্ত আচার্য ছাড়াও ‘সারেগামাপা’তে বিচার হিসেবে ছিলেন শান্তনু মৈত্র ও মোনালি ঠাকুর। আর উপস্থাপনায় ছিলেন অভিনেতা যীশু সেনগুপ্ত। তারা প্রত্যেকে নোবেলকে নিয়ে রিয়েলিটি শো মাতিয়ে তুলেছিলেন। যদিও প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত ফলাফলে নোবেল যৌথভাবে তৃতীয় হন।


আরও পড়ুন :  বাইশে শ্রাবণ স্মরণে ‘সমুখে শান্তি পারাবার’


বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরএসও/পিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন