রবিবার ২০ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ৪ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

বিপিএল বর্জনের হুমকি দেয়নি রংপুর

আগস্ট ৫, ২০১৯ | ৬:২৮ অপরাহ্ণ

মহিবুর রহমান, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

সাকিব আল হাসানকে হারানোর শঙ্কায় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেট-বিপিএল বর্জনের হুমকি দেয়নি পঞ্চম আসরের চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্স। দলের সিইও ইশতিয়াক সাদেকের বরাত দিয়ে গতকাল সংবাদ মাধ্যম এমন সংবাদ প্রচার করলে খোদ ইশতিয়াক সাদেকই তা ভিত্তিহীন বলে উল্লেখ করেছেন।

বিজ্ঞাপন

তার ভাষ্যমতে, একটি দলকে বিশেষ সুবিধা পাইয়ে দিতে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের হুট করে আনা নিয়ম নীতির পরিবর্তন নিয়ে তিনি বিষাদগার দেখিয়েছিলেন মাত্র। তবে একটি বিষয় তিনি স্পষ্ট করেছেন সেটা হল বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করতে গিয়ে যদি দেখেন আগের নিয়ম কানুনের বালাই নেই এবং নতুন নতুন নিয়ম জুড়ে দেওয়া হয়েছে তাহলে তারা আপত্তি জানাবে।

সারাবাংলার সঙ্গে একান্তে আলাপকালে তিনি এসব কথা জানালেন। জানিয়েছেন আরো অনেক কিছুই। পাঠকদের উদ্দেশ্যে তা তুলে ধরা হলো।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা: আপনারা সাকিবকে দলে নেওয়ার পর বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল দফায় দফায় মিটিং করে গতকাল সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছে, যেহেতু আপনাদের সঙ্গে তাদের (গভর্নিং কাউন্সিল) চুক্তি নেই সেহেতু সাকিবের সঙ্গে চুক্তিও অর্থহীন। বিসিবি ও বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের এই ঘোষণার পরে আপনাদের অবস্থান কি? জানা গেছে আপনারা বিপিএল বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

ইশতিয়াক সাদেক: অনেক জায়গায় দেখছি বিপিএল বর্জনের হুমকি দিয়েছে রংপুর রাইডার্স; এইসব কিছু না। ব্যাপারটা হচ্ছে ওরা আমাদেরকে দুই একদিনের মধ্যেই চুক্তি নবায়নের জন্য ডাকবে। যদি স্বাভাবিকভাবে নবায়ন হয় করব। আর যদি নিয়ম বদলে নিয়ম তৈরীর চেস্টা করে তখন আমরা জানাবো আমরা কি চাই। গত বছরও আমরা বিপিএল গভর্নিং বডির সঙ্গে বসে ৫-৬ বছরের টেকসই নিয়মের জন্য লিখিত দাবি করেছিলাম। এখন কোনো মন্তব্য করতে চাচ্ছি না। কারণ এটা শুধু সাকিবের জন্য কোনো ইস্যু নয়, এটা প্রতিবছর নিয়ম বদলের একটি ইস্যু।

একটা টুর্নামেন্ট যেখানে কী না আমরা সব ফ্র্যাঞ্চাইজিরা মিলে ১শ কোটি টাকা খরচ করি, আমাদের একেকটা ফ্র্যাঞ্চাইজির নুন্যতম খরচ হয় ১২-১৫ কোটি টাকা। আমরা প্রথম বছর খরচ করেছি ১৮ কোটি টাকা, পরের বছর ১৭ কোটি টাকা। স্পন্সরশিপ থেকেও আমাদের আয় কম। তারপরেও যদি বিশেষ কারণে বা বিশেষ গোষ্ঠির জন্য নিয়ম বদলে যায় তাহলে খেলার দরকার নাই। কেননা এভাবে করে তো হয় না।

সারাবাংলা: আপনি বলতে চাইছেন,বিপিএল বর্জনের হুমকি দেননি?

ইশতিয়াক সাদেক: আমরা দুই বছর ধরে বিপিএলে আছি। দুই বছরে দুই রকম বদল দেখলাম। এর আগে যখন সাকিবকে ঢাকা নিয়েছিল একটা পরিবর্তন এনেছিল। একটা দলের জন্য এত বার নিয়ম বদল হবে আর আমরা পুতুল হব, তখন আমি বলেছিলাম এমন যদি হয়, রংপুরকে ছাড়াই বিপিএল ভাল হবে। ক্রিকেট বোর্ড থেকে বলা হয়েছে, যদি কোনো দল অংশ নিতে না চায় আমাদের অনেক দল আছে। অনেক টিম থাকলে রংপুর ছাড়াও বিপিএল হবে, ক্রিকেট বোর্ড টাকা আয় করতে পারবে, বিপিএল সফলও হবে। রংপুরের দরকার নেই। ঠিক একথাটা বলেছিলাম।

সারাবাংলা: কোনো কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি ইতোমধ্যেই বিদেশি ও দেশি প্লেয়ার দলে ভিড়িয়েছে। কিন্তু আপনারা সাকিবের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরের পরেই বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল নড়ে চড়ে বসেছে। এটা বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের নীতিমালার সঙ্গে কতটুকু সাংঘর্ষিক বলে মনে করেন?

ইশতিয়াক সাদেক: এটা আপনি যতটুকু বোঝেন আমরাও ততটুকুই বুঝি। তবে আমরা ইতিবাচক থাকতে পারি। আমরা হয়ত ভাবছি সাকিবকে দলে নিয়েছি বলেই ওরা নিয়ম পরিবর্তন করতে যাচ্ছে। এরকম তো নাও হতে পারে। আমরা ইতিবাচকভাবে কেন ভাবছি না। আমরা সব ফ্র্যাঞ্চাইজিরা আশা করছি, স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় চুক্তি নবায়নের পরে তিন বছর সেই নিয়ম থাকবে।

সারাবাংলা: যদি এমন হয় চুক্তি নবায়ন করতে গিয়ে দেখলেন বিপিএলের আগের নিয়মের কোনো নিয়মই নেই তাহলে কি আপনারা কন্টিনিউ করবেন?

ইশতিয়াক সাদেক: আগের নিয়ম থাকলে আমরা খুবই খুশি থাকব। আর নতুন কোনো নিয়ম করে চাপিয়ে দিতে চাইলে আমরা আলাপ আলোচনায় যাব। এবং তাদের কনভিন্স করার চেষ্টা করব। উনার এখন যেটা বলছে নতুন করে ড্রাফট হবে, সবকিছুই ফ্রেশ হবে। এটাতো আমরা গতবারই বলেছিলাম তখন কেন করল না? বিপিএল থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের লাভ হয়, আমাদের স্বার্থ টা কি? ক্রিকেট বোর্ডকে একটি জায়গায় স্থিতিশীল হতে হবে। তো আমরা ওইটাই চাই।

আরও পড়ুন: সাইফউদ্দীনের ফেরা সহজ নয়

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন