বিজ্ঞাপন

প্রবেশপথে কড়াকড়ি, রাজধানীজুড়ে নিরাপত্তাবলয়

February 7, 2018 | 12:00 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

বিজ্ঞাপন

ঢাকা : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় ঘিরে কেউ যাতে কোনোপ্রকার বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে না পারে সেজন্য ঢাকার প্রবেশপথগুলোয় কড়াকাড়ি আরোপ করা হয়েছে। পাশাপাশি বুধবার সকাল থেকেই রাজধানীতে নিরাপত্তাবলয় গড়ে তুলেছে ডিএমপি।

ডিএমপির গণমাধ্যম শাখার উপকমিশনার মাসুদুর রহমান এ ব্যাপারে বলেন, ‘যে কোন ধরনের বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে ডিএমপির পক্ষ থেকে যথাযথ প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তাবলয়ের মাধ্যমে রাজধানীর নাগরিকদের শান্তি নিশ্চিত করা হবে।’

বিজ্ঞাপন

প্রবেশপথে কড়াকড়ি, রাজধানীজুড়ে নিরাপত্তাবলয়

পুলিশ জানিয়েছে, মৎসভবন, কদম ফোয়ারা, হাইকোর্ট মাজার গেট, চানখারপুল এলাকায় চার স্তরের নিরাপত্তার পাশাপাশি রায়ট কার ও এপিসি কার থাকবে। ঢাকার চার প্রবেশপথসহ সব জায়গায় গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। এসব জায়গা থেকে সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে সবকিছু মনিটরিং করা হবে।

বিজ্ঞাপন

ঢাকার মূল চারটি প্রবেশদ্বার গাবতলী ব্রীজ, আব্দুল্লাহপুর, যাত্রাবাড়ী-সানারপাড় ও বাবু বাজার ব্রিজ ছাড়া আরো ৯ টি প্রবেশদ্বার রয়েছে। এগুলোতেও গোয়েন্দা নজরদারিসহ পুলিশ মোতায়েন থাকবে। তবে মূল চারটি প্রবেশদ্বারে ডিএমপির পক্ষ থেকে সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। যেখান থেকে ডিএমপি সদর দপ্তরে লাইভ দেখা যাবে। ঢাকায় কে প্রবেশ করছে, কে হাঁটছে তার সবই নজরদারি করা হবে।

প্রবেশপথে কড়াকড়ি, রাজধানীজুড়ে নিরাপত্তাবলয়

বিজ্ঞাপন

গোয়েন্দা পুলিশের একটি সূত্র জানায়, ১১ জন ক্যামেরাম্যানের সমন্বয়ে একটি বিশেষ টিম খালেদা জিয়ার যাতায়াতের রাস্তায় টহলরত অবস্থায় থাকবে। পোশাকধারী পুলিশ, গোয়েন্দা পুলিশ, সিটি এসবি ও কুইক রেসপন্স টিম মাঠে থাকবে।

এরইমধ্যে ঢাকায় ৮ ফেব্রুয়ারি ভোর ৪ টা থেকে সব ধরনের মিছিল বন্ধ ঘোষণা করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে ডিএমপি।

বিজ্ঞাপন

গোয়েন্দা পুলিশের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, খালেদা জিয়ার গাড়িবহরের চারদিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘিরে থাকবে। ওইদিন গাড়িবহর বড় করতে দেওয়া নাও হতে পারে। গাড়িবহরের সুযোগে যাতে নেতাকর্মীরা ছড়িয়ে না যায় সে জন্য এ সিদ্ধান্ত হয়েছে।

বাস ও লঞ্চ মালিকদের ডেকে পুলিশ আজ (৭ ফেব্রুয়ারি) থেকে দুরপাল্লার বাস ও লঞ্চ চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে বলে দাবি করেছে বিএনপি। তবে পুলিশ ও বাস-লঞ্চ মালিক কর্তৃপক্ষ এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। এমনকি ঢাকাতেও বাস চলাচল তেমন একটা থাকবে না বলে জানা গেছে।

বুধবার রংপুর যাবেন এ জন্য এসআর কল্যাণপুর কাউন্টারে ফোন করেন আলমগীর। জবাবে কাউন্টার ম্যানেজার তাকে জানান, বাস শুধু ঢাকা ছেড়ে যাবে কিন্ত কোনো বাস ঢাকায় প্রবেশ করবে না। প্রশাসন চাপে আছে।

লালমনিরহাট বরকত ট্রাভেলসের কাউন্টার ম্যানেজার আসাদ বলেন, বাস ঢাকা থেকে বের হতে পারবে তবে প্রবেশ করা নিষেধ আছে। কে বন্ধ করে দিয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, পুলিশ এসে বলে গেছে। তাই বাস না চালানোর জন্য সিদ্ধান্ত হয়েছে।

একইভাবে রাজশাহী, খুলনা, সিলেট ও চট্টগ্রাম থেকেও বাস না চালানোর সিদ্ধান্ত জানা গেছে। সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল থেকেও কোনো লঞ্চ ঢাকায় আসবে না বলে জানা গেছে।

এদিকে র‌্যাব সূত্রে জানা গেছে, রায়ের দিন র‌্যাব সদস্যরাও ঢাকার ও অন্যান্য সকল জেলার নিরাপত্তা দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবেন।

সারাবাংলা/ইউজে/একে

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন