সোমবার ২৬ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ১১ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৪ জিলহজ, ১৪৪০ হিজরি

বিজ্ঞাপন

সাগরে নিম্নচাপ আর শহরে বৃষ্টি

আগস্ট ৭, ২০১৯ | ৮:৫৭ পূর্বাহ্ণ

সিরাজুম মুনিরা, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর

উতল-ধারা বাদল ঝরে। সকল বেলা একা ঘরে॥

সজল হাওয়া বহে বেগে, পাগল নদী ওঠে জেগে,

আকাশ ঘেরে কাজল মেঘে, তমালবনে আঁধার করে॥

সকালটা কবিতা দিয়েই শুরু করলাম। আমার কী দোষ? আজকের আবহাওয়াটাই এমন। চমৎকার মৃদুমন্দ বাতাসের মধ্যে দিয়ে দিন শুরু হয়েছে। এর আগে গতকাল রাত থেকেই রাজধানীতে ছিল বৃষ্টি। তাতে কিছুটা স্বস্তি পেয়েছেন নগরবাসী। তারপর বুধবার দিন শুরু হয়েছে মেঘলা আকাশ আর ঝিরিঝিরি বৃষ্টি দিয়ে।

বিজ্ঞাপন

ঢাকায় আমরা সুন্দর দিন শুরু করলেও সাগর কিন্তু উত্তাল। ফলে আজও কক্সবাজার ও দেশের তিন সমুদ্রবন্দরকে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে যে মাছধরার নৌকা বা ট্রলার রয়েছে তাদের পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থাকতে বলা হয়েছে।

এসব সতর্কবাণীর কারণ উত্তর বঙ্গোপসাগর ও এর আশপাশের বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গ উপকূলীয় এলাকায় অবস্থানকরা মৌসুমী নিম্নচাপটি পশ্চিম-উত্তরপশ্চিম দিকে এগিয়ে অবস্থান করছে। এটি আরও ঘণীভূত হয়ে পশ্চিম-উত্তরপশ্চিমে এগোতে পারে। এর প্রভাবেই বাংলাদেশের উপকূলে উত্তর বঙ্গোপসাগরে বায়ুচাপের তারতম্য রয়েছে এবং গভীর সঞ্চারণশীল মেঘমালা সৃষ্টি হচ্ছে। তাই উপকূল ও সমুদ্রবন্দরগুলোর ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সে কারণেই এতো সতর্কবার্তা।

এই নিম্নচাপের প্রভাবে উপকূলের জেলা চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা ও তার আশাপাশের দ্বীপ, চর ও নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ১ থেকে ২ ফুট অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।

তবে একইসঙ্গে দেশের টাঙ্গাইল, কিশোরগঞ্জ, রাজশাহী ও সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহও বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনার কথা বলা হচ্ছে।

তার মানে গোটা দেশেই যে ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা ভাব বিরাজ করছে তা কিন্তু না।

রাজধানীতে আজ সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, সর্বনিম্ন ২৬ ডিগ্রি। আকাশে সারাদিনই মেঘের ঘটঘটা থাকবে। তবে রোদ যে একদমই উঠবে না, সেটাও কিন্তু বলা যায় না।

সারাবাংলা/এসএমএন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন