সোমবার ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২ পৌষ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৮ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

পাঁচ বছরে ১৭শ কোটি বিনিয়োগ করতে চায় কোকাকোলা

আগস্ট ৯, ২০১৯ | ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: আগামী ৫ বছরে ২০ কোটি মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ প্রায় ১ হাজার ৭০০ কোটি টাকা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে চায় কোকাকোলা। একইসঙ্গে কোকাকোলা বাংলাদেশে বিনিয়োগের বিনিময়ে নানা ধরনের কর অবকাশ সুবিধা চান।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রীর সংঙ্গে বৈঠকে এই আগ্রহ প্রকাশ করেছেন কোকাকোলা কোম্পানির প্রেসিডেন্ট ও প্রধান অপারেটিং অফিসার ব্রেইন জন স্মিথ।

বৈঠকে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল কোকাকোলা প্রেসিডেন্টকে কর সুবিধা পেতে শেয়ার বাজারে তালিকাভুক্ত হওয়ার পরামর্শ দিয়ে বলেন, কোকোকোলা বাংলাদেশে নতুন পণ্য উৎপাদন করলে কিংবা স্পেশাল ইকনোমিক জোনে বিনিয়োগ করেও নানা সুবিধা পেতে পারে।

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশ ক্রমাগতভাবে অর্থনৈতিক খাতে উন্নতি সাধন করে চলেছে। চলতি অর্থবছরেই আমরা ৮ দশমিক ২৫ শতাংশ থেকে ৮ দশমিক ৩০ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জনের প্রত্যাশা করছি, যা ২০২৪ সাল নাগাদ দাঁড়াবে ১০ শতাংশ এবং সেটা অব্যাহত থাকবে। বিশ্বে যে কয়েকটি দেশের রফতানি আয় খুব দ্রুত বাড়ছে, তার মধ্যে বাংলাদেশ একটি। গড় হিসাবে এক দশক ধরে দেশের রফতানি আয়ে দুই অঙ্কের প্রবৃদ্ধি হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

মুস্তফা কামাল আরও বলেন, অগ্রসরমাণ অর্থনীতির দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান দ্বিতীয়, ওপরে আছে কেবল ভিয়েতনাম। বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার ‘ওয়ার্ল্ড ট্রেড স্ট্যাটিস্টিক্যাল রিভিউ-২০১৯’ শীর্ষক গত সপ্তাহে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এই চিত্র উঠে আসে। সব মিলিয়ে বিশ্ববাণিজ্যে বাংলাদেশ এখন ৪২তম বড় রফতানিকারক দেশ, অন্যদিকে আমদানিতে বাংলাদেশের অবস্থান ৩০তম। সুতরাং বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশ অত্যন্ত সুন্দর এবং অপার সম্ভাবনার দেশ বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, চীন, ভারত ও এশিয়ার অন্যান্য ক্রমবর্ধমান অর্থনীতির মধ্যে বাংলাদেশ কৌশলগত ভৌগলিক অবস্থানে রয়েছে। ২০৩২ সালে পৃথিবীতে এক নম্বর দেশ হবে চীন, দুই নম্বর হবে আমেরিকা, তিন নম্বর হবে ইন্ডিয়া, চার নম্বর হবে জাপান এবং পাঁচ নম্বর হবে জার্মানি। চীন, ভারত ও জাপান— এই তিনটি বড় অর্থনীতির দেশের মধ্যে থাকবে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের ভৌগোলিক অবস্থান দেশটিকে আঞ্চলিক যোগাযোগ, বিদেশি বিনিয়োগ ও গ্লোবাল আউটসোর্সিংয়ের একটি কেন্দ্রে পরিণত করেছে। সুতারাং কৌশলগত কারণেই বাংলাদেশকে এড়িয়ে বিশ্বের সার্বিক অগ্রগতি সম্ভব নয়।

অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে কোকাকোলার কোম্পানির প্রেসিডেন্টের ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী আমিনুল ইসলামসহ কোকাকোলার আঞ্চলিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জিএস/এসজে/আরএসও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন