শুক্রবার ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ঈদ শেষে ডেঙ্গু রোগী বাড়ার শঙ্কা, প্রস্তুতি নিচ্ছে ঢামেক হাসপাতাল

আগস্ট ১৩, ২০১৯ | ৫:০০ অপরাহ্ণ

ঝর্ণা রায়, স্পেশাল করেসপনডেন্ট

ঢাকা: ঈদের পরে ডেঙ্গু জ্বরের প্রকোপ বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ। তাই রোগীর চাপ সামলাতে অন্য হাসপাতাল থেকে চিকিৎসক নার্স এনে ওই পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা।

বিজ্ঞাপন

ঢামেক পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দীন জানান, এরই মধ্যে অতিরিক্ত নার্স প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ১৪ আগস্ট বুধবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কিছু চিকিৎসকও তাদের সঙ্গে যোগ দেবেন। এছাড়া এদিনই চালু হচ্ছে শিশু আইসিইউ।

মঙ্গলবার ( ১৩ আগস্ট ) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সারাবাংলাকে দেওয়া এক এ তথ্য জানিয়েছেন ঢামেক পরিচালক। তিনি জানান, ঈদের আগের দিন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শুধুমাত্র ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তির সংখ্যা ছিল ৭১০ জন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অর্থাৎ ঈদের পরদিন ডেঙ্গু রোগী ভর্তির সংখ্যা ৬০১ জন। এই সংখ্যা বিবেচনা করলে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে।

ঈদের ছুটিতে লোকজন বাড়ি যাওয়ায় এই সংখ্যা কমেছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘আগামী তিন থেকে চারদিনে বাড়ি থেকে মানুষ ঢাকা ফিরতে শুরু করলে বোঝা যাবে মূল পরিস্থিতি। ডেঙ্গু রোগীর চাপ বাড়তে পারে সে চিন্তা মাথায় রেখেই বাড়তি প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন

তবে কত সংখ্যক নার্স ও চিকিৎসক নতুন করে অন্য হাসপাতাল থেকে যুক্ত করা হচ্ছে তা বলতে পারেননি। তিনি আরও জানিয়েছেন, ডেঙ্গু এবং অন্যান্য সাধারণ রোগীদের একই হাসপাতালে রাখার কারণে যেন চিকিৎসাসেবায় কোনোরকম ব্যাহত না হয়। সে জন্য নতুন নির্মাণ করা শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের স্থানান্তর করা হচ্ছে। এরই মধ্যে ১০০ রোগী সেখানে রাখা হয়েছে। বুধবার আরো ২০০ রোগী স্থানান্তর করা হচ্ছে। অন্যদিকে ঢাকা মেডিকেলে শিশুদের জন্য একটি আইসিইউ খোলা হচ্ছে বুধবার।

্এদিকে ঈদের দ্বিতীয় দিনে দেশের সবচেয়ে বড় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালটি ঘুরে দেখা গেছে, সেবা নিতে আসা রোগীদের ভিড়। রোগীর চাপ সামলাতে হিমশিম পরিস্থিতি বহির্বিভাগের। বিশেষ করে সড়ক দুর্ঘটনা এবং কোরবানির পশু জবাই করতে গিয়ে আহত রোগীর সংখ্যাই বেশি বলে জানিয়েছেন জরুরি বিভাগের চিকিৎসকরা।

ঈদের দুদিনে এ ধরনের রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ৩২১ জন। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, কোরবানির ঈদের সময়ে এ ধরনের আহত রোগীর সংখ্যা বেশি থাকে। তবে এবার নতুন করে ডেঙ্গু যোগ হওয়ায় তাদের অতিরিক্ত চাপ সামলাতে হচ্ছে।

বার্ন ইউনিটসহ মোট ২৬০০ বেডের ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালটিতে ঈদের পরের দিন পর্যন্ত ২ হাজার ৮৯৫ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। এদের মধ্যে ৬০১ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী। দায়িত্বরত নার্সরা জানিয়েছেন, ঈদের কারনে ভর্তি রোগীর সংখ্যা কিছুটা কম হলেও এবার ডেঙ্গুর প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় অতিরিক্ত চাপ সামলাতে হচ্ছে তাদেরও।

এদিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল, সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, স্যার সলিমুল্ল্যায় মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ঢাকা শিশু হাসপাতালের বহির্বিভাগ যথারীতি খোলা থাকবে।’

এবার ডেঙ্গুর প্রকোপ মোকাবিলায় দেশের সকল সরকারি-বেসকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক সেন্টার খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সংশ্লিষ্ট কৃর্তপক্ষ।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেআর/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন