শুক্রবার ২৩ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ৮ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২১ জিলহজ, ১৪৪০ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ইনডোর হকি নিয়ে বাহফের মহাপরিকল্পনা

আগস্ট ১৪, ২০১৯ | ৮:৫৯ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: প্রথমবারের মতো ইনডোর এশিয়া কাপ হকিতে অংশ নিয়ে দশ দেশের মধ্যে সপ্তম হয়েছে বাংলাদেশ। আহামরী ফল না হলেও অনবিজ্ঞ দল নিয়ে সপ্তমকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছে বাংলাদেশ হকি ফেডারেশন (বাহফে)। তাই ইনডোর হকিতে আরও উন্নয়ন চায় ফেডারেশন। অবকাঠামো উন্নয়নের মাধ্যমে এই খেলায় ভালো করতে চায় বাহফে।

তাই ইনডোর হকিকে সামনে রেখে মহাপরিকল্পনা হাতে নিয়েছে ফেডারেশন। ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টগুলোতে নিজেদের তৈরি করে অংশ নিতে চায় বাংলাদেশ।

তার জন্য দরকার অবকাঠামো। একটি ইনডোর স্টেডিয়াম। যা দেশে নেই। সেটারও পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে ফেডারেশনের কর্মকর্তারা।

গুলিস্তানস্থ মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামের পাশেই একটা ইনডোর স্টেডিয়ামসহ অবকাঠামোগত উন্নয়ন করতে চায় ফেডারেশন। সবকিছু মিলিয়ে সরকারের কাছে ৮০ কোটি টাকার প্রস্তাব করেছে ফেডারেশন। প্রস্তাবটা জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ (এনএসসি) বরাবর পাঠিয়েছে বাহফে। সেই প্রস্তাব এখন এনএসসি থেকে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে পৌঁছে গেছে বলে জানা যায়।

বিজ্ঞাপন

সাধারণ সম্পাদক এ.কে.এম মমিনুল হক সাঈদ এক অনলাইন গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামের পূর্ব অংশ ভেঙ্গে সেখানে ইনডোর স্টেডিয়াম তৈরির পরিকল্পনা করছেন তারা। মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামের টার্ফের পূর্ব পাশে বেশ কিছু জায়গা খালি। গ্যালারির পূর্ব পাশে বাংলাদেশ আরচারি ফেডারেশনের কার্যালয়।’

‘মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামের যে বিশাল গ্যালারি তা প্রয়োজন নেই। সর্বোচ্চ দুই পাশে গ্যালারি থাকলেই যথেষ্ট। আমরা স্টেডিয়ামের পূর্ব পাশের পুরোটা এবং তার সামনে মাঠের খালি অংশ মিলিয়ে ৬ তলা ভবন নির্মাণ করতে চাই। সেখানে ইনডোর সুযোগ-সুবিধার পাশপাশি কোচ-খেলোয়াড়দের আবাসনের ব্যবস্থা করতে পারলে বছরজুড়ে ক্যাম্প করা যাবে। আসলে হকির উন্নয়নে একাডেমির বিকল্পন নেই। আমরা ইনডোরসহ ভবনটি করতে পারলে বয়সভিত্তক বিভিন্ন দলের ১২ মাস অনুশীলন ক্যাম্প করা যাবে’- বলেছেন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এ.কে.এম মমিনুল হক সাঈদ।

বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সহসভাপতি আবদুর রশিদ শিকদার বলেন, ‘সবমিলিয়ে আমাদের প্রয়োজন হবে ৮০ কোটি টাকার মতো। এই অর্থ বিশেষ বরাদ্দ চেয়ে ফেডারেশন থেকে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদে চিঠি দেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ সেই চিঠি পাঠিয়ে দিয়েছে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে।’

ইনডোর হকিতে উন্নয়নে ক’দিন আগে দেশের কোচদের এই খেলা নিয়ে কোচিং করিয়েছেন ইরানের সাতবারের ইনডোর চ্যাম্পিয়ন কোচ হামিদ রেজা বোখারী কাশি।

সারাবাংলা/জেএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন