মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ৫ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২১ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ফেনীতে পিকনিকের বাস দুর্ঘটনায় ৭ জনের মৃত্যু

আগস্ট ১৫, ২০১৯ | ৮:৫২ পূর্বাহ্ণ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

ফেনী: জেলার লেমুয়ায় কক্সবাজারগামী একটি পিকনিকের বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে দুমড়ে-মুচড়ে গেছে। এতে ঘটনাস্থলে ৬ ও ঢাকায় নেওয়ার পথে একজনের মৃত্যু হয়।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (১৫ আগস্ট) সকাল ৭টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ফেনী মহিপাল হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. শাহজাহান খান দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রাথমিকভাবে নিহত দুই জনের নাম-পরিচয় জানতে পেরেছে পুলিশ। এরমধ্যে একজনের নাম শাহাদাত হোসেন, তার বাড়ি ফেনীর ছাগলনাইয়ায়। অপরজন সুজন মিঞা, তার বাড়ি ঢাকার বিক্রমপুরে।

আহতরা হচ্ছেন- বিক্রমপুরের অপু (৩৫), মাদারীপুরের রিপন (৩০), নারায়নগঞ্জের মুন্না খান (৩০), মিরপুরের শামীম (৩০), ইকবাল (৩৮) , ফয়সাল (১৪), আক্তার (২২), রানা (২০), জাকির (২৬), সুমন (২২), মাহমুদুল হাসান, শুভ (১৮), দুলাল (১১), রিপন শেখ (৪০), নাজমা বেগম (৪০), নাঈমা ২৪), আশা (১৭) রোখসানা (১৪), সকিনা (৭৫), আয়েশা আক্তার, দুলারী, রুমা বেগম ও নান্নু মিয়া।

বিজ্ঞাপন

তারা সবাই ঢাকার মিরপুর ও নারায়ণগঞ্জের আদমজি এলাকার ব্যবসায়ী, চাকরীজীবী ও গার্মেন্টস শ্রমিক।

ফায়ার সার্ভিসের ফেনী স্টেশনের পরিচালক মো. তৌহিদুল ইসলাম জানান, ঈদ উপলক্ষে ঢাকার মিরপুর ও নারায়ণগঞ্জের আদমজী থেকে ৫০ জন পিকনিকের যাত্রী নিয়ে কক্সবাজার যাচ্ছিল প্রাইম প্লাস পরিবহনের একটি বাস। পথে ফেনীর লেমুয়া এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাসটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে ঘটনাস্থলে ৬ জন ও ঢাকায় নেওয়ার পথে আরও একজন মারা যান।

ফেনী হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল আওয়াল বলেন, ‘বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ৬টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে উপজেলার লেমুয়া এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। বাসটি পিকনিকের জন্য ঢাকা থেকে কক্সবাজারের উদ্দেশে যাচ্ছিল। ফেনীর লেমুয়ায় পৌঁছুলে বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগে।’

আহতের স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের পরিচয় জানা যায়নি। নিহতদের মরদেহ ফেনী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান পুলিশ কর্মকর্তা আওয়াল।

ফেনী ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. আবু তাহের পাটেয়ারী বলেন, ‘মরদেহগুলো হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। আহতদের জরুরি চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে।’ তবে আহতদের বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলেও জানান এই চিকিৎসক।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন