মঙ্গলবার ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৯ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৪ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

বিতর্ক এড়াতে চেয়ারপারসনের জন্মদিন পালনের তারিখ পরিবর্তন বিএনপির!

আগস্ট ১৬, ২০১৯ | ৬:০৫ পূর্বাহ্ণ

স্পেশাল করেসপনডেন্ট

ঢাকা: বিতর্ক এড়াতে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জন্মদিনের কর্মসূচী বাতিল করেছে বিএনপি। আর সেই কারণেই দলটি চেয়ারপারসনের জন্মদিন একদিন পিছিয়ে ১৬ আগস্ট পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে, দলের একাধিক সিনিয়র নেতা এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বিজ্ঞাপন

দলীয় সূত্র বলছে, ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে বিএনপি চেয়ারপার্সনের জন্মদিন পালন করা নিয়ে নতুন করে আর কোনো বির্তকের সৃষ্টি করতে চায়না বিএনপি। তাই জাতীয় শোক দিবসে জন্মদিন পালন করা হয়নি। এমনকি দলের অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদেরও শোক দিবসে জন্মদিন না পালনে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে।

এদিকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে,  ১৬ আগস্ট জন্মদিন পালন উপলক্ষ্যে সারাদেশে চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি ও দীর্ঘায়ু কামনা করে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠানের কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।

বাংলাপিডিয়া ও খালেদা জিয়াকে নিয়ে লেখা বইয়ে উল্লেখিত তথ্য অনুযায়ী, ১৯৪৫ সালের ১৫ আগস্ট জন্মগ্রহন করেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। বাবা এস্কান্দার মজুমদারের বাড়ি ফেনী হলেও সপরিবারে দিনাজপুরে বসবাস করতেন। খালেদা জিয়া সেখানেই বড় হয়েছেন। ১৯৬০ সালে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সঙ্গে বিয়ে হয় খালেদা জিয়ার।

বিজ্ঞাপন

তবে গণমাধ্যমের বিভিন্ন নথিতে খালেদা জিয়ার অন্তত ৩টি জন্মদিনের চিত্র উঠে এসেছে। তার পরীক্ষার ফর্মে ১৯৪৬ সালের সেপ্টেম্বরের ৫ তারিখ উল্লেখ করা আছে। বিয়ের সার্টিফিকেটে জন্মদিন উল্লেখ আছে ১৯৪৪ সালের আগস্টের ৫ তারিখ এবং প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেয়ার সময় খালেদা জিয়ার জন্মদিন ১৯৪৭ সালের ১৯ আগস্ট উল্লেখ করা হয়।

দীর্ঘদিন ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে তার দল ও তিনি জন্মদিন পালন করে আসছিলেন। আর এ নিয়ে বিভিন্ন মহলে রয়েছে নানা বিতর্ক। এবার সে বিতর্ক এড়াতেই বিএনপি নতুন এই উদ্যোগ নিলো ।

সারাবাংলা/জেআর/এসবি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন