মঙ্গলবার ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৯ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৪ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

কাশ্মিরে কারফিউ তুলে নিতে বলল ওআইসি

আগস্ট ১৭, ২০১৯ | ১২:৪০ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারত-শাসিত কাশ্মিরে জারি করা কারফিউ ও নিষেধাজ্ঞা দ্রুত তুলে নিতে আহ্বান জানিয়েছে মুসলিম স্বার্থ রক্ষায় গঠিত জোট দ্য অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কোঅপারেশন (ওআইসি)। পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি এক ভিডিও বার্তায় এতথ্য জানান। শনিবার (১৭ আগস্ট) সংবাদমাধ্যম ডনের খবরে এই কথা বলা  হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

মেহমুদ কোরেশি জানান, নিরাপত্তা পরিষদে কাশ্মির ইস্যু তোলার পর এখন ওআইসির বিবৃতি আদায় পাকিস্তানের কূটনৈতিক অর্জন। সম্প্রতি জেদ্দায় ওআইসি সদস্যরা এ বিষয়ে সহমত জানায় ও বিবৃতি দেয়।

বিবৃতিতে ওআইসি বলেছে, কাশ্মিরে যেন মুসলিমদের মানবাধিকার রক্ষা পায় ও ধর্ম পালনে বাধা না হয়। এছাড়া জাতিসংঘসহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের এ বিষয়ে নজর দেওয়া উচিত।

এছাড়া কাশ্মিরে খাদ্য ও ওষুধ সংকট রয়েছে। হাসপাতালে সেবা পৌঁছানো যাচ্ছে না। কাশ্মিরে কারফিউ প্রত্যাহারের এই দাবি শুধু পাকিস্তানের নয় পুরো মুসলিম বিশ্বেরও বলে মন্ত্য করেন কোরেশি।

বিজ্ঞাপন

চলতি মাসে ভারত-শাসিত জম্মু ও কাশ্মিরের বিশেষ স্বায়ত্তশাসন ও রাজ্য মর্যাদা সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করে মোদি সরকার। তাই কাশ্মিরে চলছে অস্থিরতা। সেখানে মোবাইল, ইন্টারনেট ও চলাচলে বিধিনিষেধ জারি রয়েছে। স্বাধীনভাবে তথ্য সংগ্রহ করতে পারছেন না সাংবাদিকরা। ভারত সরকার অস্বীকার করলেও বিবিসির ভিডিও প্রতিবেদনে দেখা যায়, আন্দোলনের চেষ্টা করছেন কাশ্মিরিরা। যদিও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানিয়েছেন ধীর ধীরে কাশ্মিরের হারানো ‘গৌরব’ ফিরিয়ে দেওয়া হবে।

কাশ্মির ইস্যুতে সীমান্ত এলাকা লাইন অব কন্ট্রোলে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে ভারতীয় ও পাকিস্তানের বাহিনীর মধ্যে। এ পর্যন্ত চার পাকিস্তানি সৈন্যকে ভারতীয় সেনারা হত্যা করেছে বলে জানা গেছে। তবে ৫ ভারতীয় সৈন্যের নিহতের খবর পাকিস্তানের পক্ষ থেকে বলা হলেও ভারত তা স্বীকার করেনি। এসব হট্টগোলের মধ্যে কাশ্মির ইস্যুতে বৈঠকে বসে নিরাপত্তা পরিষদ। তবে সদস্য দেশগুলো ঐক্যমতে পৌঁছায়নি। দেওয়া হয়নি এ বিষয়ে কোনো বিবৃতিও।

সারাবাংলা/এনএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন