রবিবার ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ১ পৌষ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

অবশেষে কাঁচা চামড়া বিক্রি শুরু

আগস্ট ১৯, ২০১৯ | ১২:৫৯ অপরাহ্ণ

গোলাম সামদনী, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: সরকারিভাবে দাম নির্ধারণ করে দেওয়ার পরও কোরবানিতে চামড়ার দরপতন হয় ভয়াবহ আকারে। ব্যবসায়ীরা রাস্তায় চামড়া ফেলে চলে যান। অনেক জায়গায় মাটিতে পুঁতে ফেলা হয়। দেশজুড়ে নানা সমালোচনার ঝড় ওঠে। এই অবস্থায় ঈদের পরদিন সরকার ঘোষণা দেয় চামড়া রফতানির। ঠিক তারপরেই নড়েচড়ে বসে ট্যানারি মালিক ও আড়তদাররা।

বিজ্ঞাপন

এরপর ব্যবসায়ী ও সরকার পক্ষের আলোচনা শেষে ট্যানারি মালিকদের কাছে লবণযুক্ত কাঁচা চামড়া বিক্রি শুরু করেছে আড়তদাররা। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে সাড়া দিয়ে সোমবার (১৯ আগস্ট) থেকে সারাদেশে কাঁচা চামড়া বিক্রি শুরু করেছে বাংলাদেশ হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্ট এসোসিয়েশন। তবে ট্যানারি মালিকদের কাছ থেকে পাওনা ৪০০ কোটি টাকা কবে আদায় হবে না নিয়ে শঙ্কিত ব্যবসায়ীরা।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি হাজী মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন সারাবাংলাকে বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে সারা দিয়ে আমরা আজ থেকে লবণযুক্ত কাঁচা চামড়া বিক্রি শুরু করেছি। আমরা কমপক্ষে ৫০ শতাংশ চামড়া নগদে বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কেউ কেউ শতভাগ অর্থ নগদ নিয়ে কাঁচা চামড়া বিক্রি করছে।

তিনি বলেন, ২০১২ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ট্যানারি মালিকদের কাছে আমাদের পাওনা টাকার পরিমাণ প্রায় ৪০০ কোটি টাকা। এই টাকা কবে আদায় হবে তা নিয়ে আমরা শঙ্কিত রয়েছি। তিনি বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠকে আমাদের পাওনা টাকা আদায়ের বিষয়ে করনীয় নির্ধারণে এফবিসিসিআই‘কে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তাদের সঙ্গে আমরা ২২ আগস্ট আবারও বসবো। তারপর বুঝতে পারবো আমরা সন্তুষ্ট কিনা।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে, বাংলাদেশ ট্যানার্স এসোসিয়েশনের কোষাধ্যক্ষ মো: মিজানুর রহমান সারাবাংলাকে বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠকের পর আমরা সব পক্ষ চামড়া কেনাবেচার বিষয়ে একমত হয়েছি। সে অনুযায়ী আজ থেকে পুরোদমে সারাদেশে আমরা লবণযুক্ত কাঁচা চামড়া কিনছি। যদিও বাংলাদেশ ট্যানার্স এসোসিয়েশন (বিটিএ) তাদের পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গত ১৭ আগস্ট থেকে লবণযুক্ত কাঁচা চামড়া কিনছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কোনো কোনো ট্যানারি মালিকের কাছে আড়তদারদের কিছু বকেয়া রয়েছে। এটা নিয়েও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। আশা করছি এর সমাধান হয়ে যাবে।

উল্লেখ্য, এবার কোরবানির ঈদে কাঁচা চামড়ার ভয়াবহ দরপতনের পর গত ১৩ আগস্ট বাণিজ্য মন্ত্রণালয় কাঁচা চামড়া রফতানির সিদ্ধান্ত নিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। কাঁচা চামড়া রফতানিতে সরকারের সিদ্ধান্তের পর ট্যানারি মালিকরা বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিটিএ) এবং বাংলাদেশ ফিনিশড লেদার, লেদার গুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশন (বিএফএলএলএফইএ) গত ১৪ আগস্ট আলাদা আলাদা সংবাদ সম্মেলন করে কাঁচা চামড়া রফতানির সিদ্ধান্তের বিরোধীতা করেন।

অন্যদিকে গত ১৭ আগস্ট কাঁচা চামড়া ব্যবসায়ীদের সংগঠন বাংলাদেশ হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্ট এসোসিয়েশন সরকারের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানান। এই অবস্থায় রোববার ১৮ আগস্ট চামড়া ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠক হয়। ওই বৈঠকের পর সব পক্ষ চামড়া কেনাবেচা করতে রাজি হয়।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জিএস/জেএএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন