বিজ্ঞাপন

বগুড়া-নারায়ণগঞ্জ-লক্ষ্মীপুর-কিশোরগঞ্জে ৫ খুন

August 21, 2019 | 2:14 pm

সারাবাংলা ডেস্ক

দেশের বেশ কয়েকটি জেলায় পৃথক পৃথক হত্যাকাণ্ডে অন্তত ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। বগুড়ায় স্বামীর ছুরিকাঘাতে স্ত্রীর মৃত্যু, নারায়ণগঞ্জে নৈশ-প্রহরীকে গলা কেটে হত্যা, লক্ষ্মীপুরে দুর্বৃত্তদের হাতে গরু ব্যবসায়ীর মৃত্যু ও কিশোরগঞ্জে আরও পৃথক ২টি খুনের ঘটনা ঘটেছে।

বিজ্ঞাপন

বগুড়া: সদরের বারপুর এলাকায় স্বামীর ছুরিকাঘাতে মায়া খাতুন (১৮) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২১ আগস্ট) সকালে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়। পুলিশ এ ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী রাকিবুল হাসানকে (২২) গ্রেফতার করেছে।

বগুড়া সদর থানার ওসি (তদন্ত) রেজাউল করিম রেজা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, দাম্পত্যের কলহের কারণে এই খুনের ঘটনা ঘটেছে। ঘাতক স্বামী হাসানকে স্থানীয় মাটিডালি এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় এক নৈশ-প্রহরীকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। মৃতের নাম আবুল কালাম (৫০)। বুধবার (২১ আগস্ট) সকালে ফতুল্লার পূর্ব শাহী মহল্লার এম এ মতিনের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। বাড়ির মালিকের ধারণা, ডাকাতিতে বাধা দেয়ায় আবুল কালামকে হত্যা করা হয়েছে।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন হত্যাকাণ্ডের ঘটনা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চলছে।

লক্ষ্মীপুর: সদর উপজেলার কাজীর দিঘীর পাড় এলাকা থেকে স্থানীয় ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেনের গলা কাটা মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (২১ আগস্ট) সকাল ৯টার দিকে পুলিশ ব্যবসায়ীর মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে।

স্বজনেরা বলছেন ওই ব্যবসায়ী মান্দারি বাজারের এক ব্যক্তির কাছ থেকে ৬ লাখ পাওনা টাকা নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় দুর্বৃত্তরা ওই টাকা লুটে নিয়ে তাকে হত্যা করে বলে দাবি করেন তারা।

লক্ষ্মীপুর সদর থানার ওসি এ কে এম আজিজুর রহমান মিয়া জানান, ব্যবসায়ী গলাকাটা মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে, মামলা প্রক্রিয়াধীন।

কিশোরগঞ্জ: কিশোরগঞ্জে ঘটেছে দুটি পৃথক হত্যাকাণ্ড।

মিঠামইনের ঘাগড়া এলাকায় বাড়ির পাশে রাস্তা নির্মাণকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে শাহজাহান নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২১ আগস্ট) সকালে মিঠামইন উপজেলার ঘাগড়া ইউনিয়নের ভরানয়া হাটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মিঠামইন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকির রাব্বানী জানান, বাড়ির পাশে রাস্তা নির্মাণ নিয়ে শাহজাহানের সঙ্গে প্রতিবেশী কামরুলের বিরোধ ছিল। এ বিষয়ে আজ সকালেও দু’পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় প্রতিপক্ষের বল্লমের আঘাতে শাহজাহান ঘটনাস্থলেই মারা যায়। লাশ মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

এছাড়া, পাকুন্দিয়ায় পারিবারিক বিরোধের জেরে ছোট ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে বড় ভাই মুকুল (৫৫) খুন হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ঘাতক মতি মিয়াকে আটক করেছে। বুধবার ভোর ৭টার দিকে পাকুন্দিয়ায় উপজেলার জাঙ্গালিয়া ইউনিয়নের চরটেকি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মৃত মুকুল চরটেকি গ্রামের মৃত হারুন-অর-রশিদের ছেলে।

পাকুন্দিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইলিয়াস হোসেন জানান, ভোরে পারিবারিক বিরোধের জেরে ছোট ভাই মতি মিয়া ছুরিকাঘাত করে বড় ভাই মুকুলকে খুন করে। এ ঘটনায় ঘাতক মতি মিয়া কে পুলিশ আটক করেছে।

সংশ্লিষ্ট ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্টরা প্রতিবেদনটি তৈরিতে তথ্য-উপাত্ত পাঠিয়েছেন।

সারাবাংলা/এনএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন