রবিবার ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৩১ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

জাহালম ইস্যু: দুদকের ১১ কর্মকর্তা সম্পর্কে বিস্তারিত জানান

আগস্ট ২১, ২০১৯ | ৩:১৪ অপরাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: জাহালমের ঘটনায় দুদক যে ১১ কর্মকর্তার নামে বিভাগীয় মামলা করেছে তাদের নাম ও বিস্তারিত জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী বুধবারের (২৮ আগস্ট) মধ্যে এ সম্পর্কে প্রতিবেদন চেয়েছে হাইকোর্ট।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (২১ আগস্ট) তাদের মামলার বিষয়ে অবহিত করলে বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

দুদকের পক্ষ থেকে জাহালমের ঘটনায় দুদকের ১১ তদন্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে জানিয়ে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। তবে ওই ১১ কর্মকর্তা নাম-পরিচয়ের বিস্তারিত তথ্য না থাকায় প্রতিবেদনটির বিষয়ে অসন্তোষ জানান হাইকোর্ট।
আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার এ বি এম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

পরে খুরশীদ আলম খান সাংবাদিকদের বলেন, আদালতের এ নির্দেশনা মোতাবেক একটি প্রতিবেদন দিয়েছি। আদালতকে দেখিয়েছি ১১ জন তদন্ত কর্মকর্তাকে শো’কজ করা হয়েছে। তারা এর জবাব দিয়েছে। দুদক তাদের জবাবে সন্তুষ্ট না হয়ে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা রুজু করেছে। আর এই ঋণ জালিয়াতির ৩৩টি মামলার পুনরায় তদন্তের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

‘তখন আদালত জানতে চেয়েছেন এই ১১ জন কারা, তাদের বিরুদ্ধে কী কারণে মামলা রুজু করা হয়েছে। বুধবারের মধ্যে এসব বিস্তারিত তথ্য আদালতে দাখিল করতে হবে,’— বলেন এই আইনজীবী।

বিজ্ঞাপন

এর আগে একইদিন সকালে বিনা বিচারে জাহালমের জেল খাটার ঘটনায় ১১ জন তদন্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা সংক্রান্ত দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) একটি চিঠি আসে গণমাধ্যমে।

মঙ্গলবার (২0 আগস্ট) দুদকের পরিচালক (প্রশাসন ও মানবসম্পদ) জালাল সাইফুর রহমান স্বাক্ষরিত চিঠিটি গণমাধ্যমে পাঠানো হয়।

চিঠিতে বলা হয়, দুদকের ১১ জন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে কারণ দর্শানো নোটিশ জারি করা হয়েছে। সেসব নোটিশের জবাব সন্তোষজনক না হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করা হয়েছে।

সোনালী ব্যাংকের সাড়ে ১৮ কোটি টাকা ঋণ জালিয়াতির মামলার আসামি হলেন আবু সালেক নামের একজন। কিন্তু নিরীহ পাটকল শ্রমিক জাহালমকে আবু সালেক হিসেবে চিহ্নিত করে ২৬টি মামলায় আসামি করা হয়। দুদকের মামলায় জাহালম গ্রেফতার হন ২০১৬ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি।

তিন বছর ‘ভুল আসামি’ হয়ে কারাভোগের পর গত ২ ফেব্রুয়ারি ২৬ মামলায় ‘ভুল’ আসামি জেলে: ‘স্যার, আমি জাহালম, সালেক না’ শিরোনামে একটি জাতীয় দৈনিকে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদন আমলে নিয়ে পরের দিন ৩ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট জাহালমকে মুক্তির নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে রুল জারি করেন। আদালতের ওই নির্দেশের কয়েক ঘণ্টা পরই কারাগার থেকে মুক্তি পান জাহালম।

সারাবাংলা/এজেডকে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন