রবিবার ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৩১ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

জন্মাষ্টমীর শোভাযাত্রায় ডিএমপির নির্দেশনা

আগস্ট ২২, ২০১৯ | ১০:২২ পূর্বাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: সনাতন ধর্মের অবতার শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মদিন (জন্মাষ্টমী) উপলক্ষে মূল শোভাযাত্রা রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দির থেকে শুরু হয়ে বাহাদুর শাহ পার্কে গিয়ে শেষ হবে। যানজট এড়াতে শোভাযাত্রার সময় সংশ্লিষ্ট এলাকায় চলাচলকারী যানবাহনকে বিকল্প পথ ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (২১ আগস্ট) বিকেলে ডিএনপির গণমাধ্যম শাখার উপকমিশনার মাসুদুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, শোভাযাত্রা উপলক্ষে রাজধানীতে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ডিএমপির নেওয়া নিরাপত্তার স্বার্থে নির্দেশনা সবাইকে মেনে চলার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

ডিএমপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, শোভাযাত্রার সময় সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলোকে যানজট হতে পারে। এ কারণে বিকেল ৩টা থেকে সাড়ে ৫টা পর্যন্ত এসব এলাকার সড়কগুলোতে চলাচলকারী গাড়িচালক ও গাড়ি ব্যবহারকারীদের বিকল্প পথ ব্যবহার করতে হবে।

শোভাযাত্রা যাবে যেসব রোডে

ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির থেকে পলাশী মোড়-জগন্নাথ হল-কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার-দোয়েল চত্বর-হাইকোর্ট বটতলা-সরকারি কর্মচারী হাসপাতাল-ফিনিক্স রোড (পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের সামনে)-গোলাপ শাহ মাজার-বঙ্গবন্ধু স্কয়ার-গুলিস্তান (সার্জেন্ট আহাদ বক্সের সামনে)-নবাবপুর রোড-রায় সাহেব বাজার মোড় হয়ে বাহাদুর শাহ্ পার্ক পর্যন্ত।

বিজ্ঞাপন

ডিএমপির নির্দেশনা

জন্মাষ্টমীর শোভাযাত্রার রুটে কোনো ধরনের যানবাহন পার্কিং করা যাবে না করা, রুট এলাকার আশপাশের সব দোকান শোভাযাত্রার সময় বন্ধ রাখতে হবে, উচ্চস্বরে পিএ বা সাউন্ড সিস্টেম বাজানো যাবে না, শোভাযাত্রায় অংশ নিতে হবে শুরু থেকে, শোভাযাত্রার মাঝপথ দিয়ে কোনো ব্যক্তি এতে অংশ নিতে পারবেন না।

শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণকারীরা নিরাপত্তার স্বার্থে হ্যান্ড ব্যাগ, ট্রলি ব্যাগ, বড় ভ্যানিটি ব্যাগ, পোটলা, দাহ্য পদার্থ, ছুরি, অস্ত্র, কাঁচি, ক্ষতিকর তরল, ব্লেড, দিয়াশলাই, গ্যাসলাইট  ইত্যাদি সঙ্গে নিতে পারবেন না। শোভাযাত্রার রুটে কোনো ধরনের ফলমূল ছোঁড়া যাবে না, রাস্তায় অহেতুক দাঁড়িয়ে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করা যাবে না।

এছাড়া সন্দেহজনক কোনো ব্যক্তি বা বস্তু দেখলে তাৎক্ষণিক নিকটস্থ পুলিশকে অবহিত করতে এবং শোভাযাত্রায় অংশ নেওয়ার ক্ষেত্রে ভলান্টিয়ার (স্বেচ্ছাসেবক) ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের পরামর্শ মেনে চলার জন্য অনুরোধ করেছে ডিএমপি। এছাড়া ব্যারিকেড, পিকেট ও আর্চওয়ে ব্যবস্থাপনায় নিয়োজিত পুলিশকে দায়িত্ব পালনে সহযোগিতা করার অনুরোধও করা হয়েছে ডিএমপির পক্ষ থেকে।

সারাবাংলা/ইউজে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন