রবিবার ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ১ পৌষ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

শিষ্যদের নিয়ে নেমে পড়েছেন ল্যাঙ্গাভেল্ট

আগস্ট ২২, ২০১৯ | ৫:১৫ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

গত পরশু নতুন কর্মস্থলে যোগ দিয়ে গতকাল চাকুরির প্রথম দিনটি পরিচিতি পর্বের মধ্য দিয়ে কাটিয়েছেন টাইগার পেস বোলিং কোচ শার্ল ল্যাঙ্গাভেল্ট। কিন্তু দ্বিতীয় দিনে এসে নেমে পড়লেন আদা জল খেয়ে। মিরপুর শের-ই-বাংলায় কন্ডিশনিং ক্যাম্পে কাটালেন ব্যস্তময় এক দিন। বিশেষ সেশনে পেস বোলিং ইউনিটে থাকা মোস্তাফিজ-তাসকিনদের দিলেন সুইং টিপস। হাতে ধরে দেখিয়ে দিলেন সিমিং পজিশন।

বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপ থেকে শুরু করে শ্রীলঙ্কা সিরিজ। কোনটিতেই স্ব মহিমায় ভাস্বর হয়ে উঠতে দেখা যায়নি টাইগার পেস বোলিং ইউনিটকে। নিজেদের ছায়া হয়েই ছিলেন। থেকে থেকে মোস্তাফিজ ও সাইফউদ্দিন জ্বলে উঠলেও তাদের বেহিসেবি বোলিং ছিল ভীষণ দৃষ্টিকটু।

হতশ্রী সেই বোলিং খুব কাছ থেকে দেখার সুযোগ না হলেও খোঁজখবর ঠিকই রেখেছেন নবনিযুক্ত প্রোটিয়া এই কোচ। তাই হয়তো কালবিলম্ব করেননি। কন্ডিশনিং ক্যাম্পে শিষ্যদের নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন আফগান বধ ও ত্রিদেশীয় সিরিজের মুকুট জয়ের মিশনে।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট)সকাল থেকে শুরু হওয়া ক্যাম্পে কাটার স্পেশালিস্ট মোস্তাফিজুর রহমান, গতি তারকা তাসকিন আহমেদ, ডেথ বোলিং বিশেষজ্ঞ মোহাম্মদ সাইফদ্দিন, ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফর্ম করা ফরহাদ রেজা, পেস বোলিং হান্ট থেকে আসা এবাদত হোসেন, আবু হায়দার রনি ও আবু যায়েদ চৌধুরী রাহির সঙ্গে সময় কাটান নতুন বোলিং কোচ। শিষ্যদের দেখিয়েছেন সিমিং পজিশন কি করে ঠিক করতে হয়। সিম গ্রিপিং এবং সুইং ডেলিভারি নিখুঁত হওয়া কতটা বাঞ্ছনীয় সেটিও বাতলে দিয়েছেন।

গতকাল সংবাদ সম্মেলনেই অবশ্য নিজের পরিকল্পনা স্পষ্ট করেছেন ল্যাঙ্গাভেল্ট। নিজ ক্যারিয়ারে সুইং বিষে ব্যাটসম্যানদের নীল করেছেন। সেই বিষ ছড়িয়ে দিতে চান টাইগারদের মধ্যেও। যার শুরুটা হলো আজ। দেখা যাক শেষটা কোথায় গিয়ে ঠেকে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এমআরএফ/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন