বিজ্ঞাপন

এটাই সময় আর্জেন্টিনাকে গুছিয়ে নেওয়ার: ডি মারিয়া

August 22, 2019 | 6:42 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

আগামী মাসে চিলি আর মেক্সিকোর বিপক্ষে দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলবে আর্জেন্টিনা। জাতীয় দলের জার্সিতে তিনটি বিশ্বকাপ, চারটি কোপা আমেরিকা খেলা অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া এই দুই ম্যাচের স্কোয়াডে নেই। এই দুই ম্যাচের জন্য ঘোষিত দলে রাখা হয়নি বার্সেলোনার প্রাণভোমরা আর আর্জেন্টিনার নিয়মিত অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে। জায়গা হয়নি ম্যানচেস্টার সিটির তারকা স্ট্রাইকার সার্জিও আগুয়েরোর।

বিজ্ঞাপন

কোপা আমেরিকায় রেফারি-আয়োজকদের নিয়ে বাজে মন্তব্য, দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থা কনমেবলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে তিন ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা পাওয়া আর্জেন্টিনার অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে ছাড়াই তাই দল ঘোষণা করতে হয়েছে কোচ লিওনেল স্কালোনিকে। চিলি আর মেক্সিকোর বিপক্ষে দুই ম্যাচে তো বটেই মেসিকে পাওয়া যাবে না জার্মানির বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচেও।

আগামী ৫ ও ১০ সেপ্টেম্বর যথাক্রমে চিলি ও মেক্সিকোর বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ খেলবে আর্জেন্টিনা। মেসি-আগুয়েরো-ডি মারিয়াহীন স্কোয়াডে তাই আর্জেন্টিনার ভরসা জুভেন্টাসের পাওলো দিবালা এবং ইন্টার মিলানের লাউতারো মার্টিনেজ। এছাড়া, ২৭ সদস্যের দলে আক্রমণভাগে আছেন ল্যাজিওর জোয়াকুইন কোরেয়া আর সান লরেঞ্জের আদোলফো গাইচ। অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপে আলো ছড়িয়ে নজরে এসেছেন তরুণ স্ট্রাইকার গাইচ।

বিজ্ঞাপন

স্কোয়াডে থাকা সাত ফুটবলার প্রথমবারের মতো ডাক পেয়েছেন। ক্যারিয়ারের শেষ সময়ে চলে আসা ডি মারিয়ার মতে, এখনই সময় আর্জেন্টিনার জাতীয় দলকে গুছিয়ে নেওয়ার। আলেসান্দ্রে স্যাবেইয়া কোচ থাকাকালীন চেষ্টা করেছিলেন সঠিক সময়ে দলকে গোছানোর। টাটা মার্টিনো সেই পথ অনুসরণ করেছিলেন। জাতীয় দলকে শক্ত করতে হলে পাইপলাইন ঠিক করতে হবে। একটা দল হিসেবে গড়ে উঠতে হলে সাপোর্ট টিমকে সময় দিতে হবে। কোপা আমেরিকা শেষ, একটা দল হিসেবে গড়ে উঠার জন্য যা যা করার দরকার আর্জেন্টিনাকে তাই করতে হবে।

আসন্ন দুই ম্যাচে স্কোয়াডে জায়গা না পাওয়া নিয়ে পিএসজির এই অভিজ্ঞ তারকা জানান, আমি এটা নিয়ে কারো সাথে কথা বলিনি। এমনকি কোচের (লিওনেল স্কালোনি) সঙ্গেও না। আমি ক্লাবের হয়ে আপাতত ব্যস্ত সময় পার করছি। কিন্তু কোচ যদি কখনও আমাকে ডেকে পাঠান আমি না করব না। কারণ প্রতিটি আর্জেন্টাইন ফুটবলারের জন্য এটা বড় পাওয়া জাতীয় দলের জার্সিতে নিজেকে মেলে ধরার।

ডি মারিয়া আরও যোগ করেন, জাতীয় দল গোছানোর কাজ শুরু হলে আমি খুশি হব। শুধু অভিজ্ঞদের নিয়ে দল সাজালে হবে না, দেশে প্রচুর প্রতিভাবান খেলোয়াড় আছে। তাদের সুযোগ দিতে হবে। এটা গুরুত্বপূর্ণ। যাদের প্রতিভা আছে তাদের জাতীয় দলের জার্সিতে সুযোগ পাওয়ার অধিকার আছে। আমি স্কালোনিকে এজন্যই পছন্দ করি, তিনি সবাইকে সুযোগ দিতে চান। নতুন খেলোয়াড়দের উপর আস্থা রাখা খুব জরুরি।

২৭ সদস্যের আর্জেন্টিনা স্কোয়াড:
গোলরক্ষক: ফ্রাঙ্কো আরমানি (রিভার প্লেট), এস্তেবান আনদ্রাদা (বোকা জুনিয়র্স), অগাস্টিন মারচেসিন (এফসি পোর্তো)

রক্ষণভাগ: নিকোলাস ওটামেন্ডি (ম্যানচেস্টার সিটি), মার্কোস রোহো (ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড), লুকাস মার্টিনেজ (রিভার প্লেট), নিকোলাস তাগলিয়াফিকো (আয়াক্স), লিওনার্দো বালের্দি (বরুশিয়া ডর্টমুন্ড), জার্মান পেজ্জালা (ফিওরেন্টিনা), গঞ্জালো মন্তিয়েল (রিভার প্লেট), নিকোলাস ফিগাল (ইন্ডিপেন্দিয়েন্তে)

মাঝমাঠ: মার্কোস আকুনিয়া (স্পোর্টিং লিসবন), জিওভান্নি লে সেলসো (টটেনহাম হটস্পার), গিদো রদ্রিগেজ (ক্লাব আমেরিকা), ম্যানুয়েল লানজিনি (ওয়েস্ট হ্যাম), লিয়ান্দ্রো পারেদেস (পিএসজি), নিকোলাস ডমিঙ্গুয়েজ (ভেলেজ সার্সফেল্ড), রদ্রিগো দি পল (উদিনেসে), লুকাস ওকাম্পোস (সেভিয়া), এজিকুয়েল প্যালাসিওস (রিভার প্লেট), মাতিয়াস জারাচো (রেসিং), রবার্তো পেরেইরা (ওয়াটফোর্ড), অ্যালেক্সিস ম্যাক অ্যালিস্টার (বোকা জুনিয়র্স)

আক্রমণভাগ: পাওলো দিবালা (জুভেন্টাস), লাউতারো মার্টিনেজ (ইন্টার মিলান), আদোলফো গাইচ (সান লরেঞ্জো), জোয়াকুইন কোরেয়া (ল্যাজিও)।

সারাবাংলা/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন