রবিবার ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৩১ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

‘সচেতনতা বৃদ্ধির কারণেই ডেঙ্গু মোকাবিলা সম্ভব হয়েছে’

আগস্ট ২৪, ২০১৯ | ৫:০৩ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে চিকিৎসা সেবা দেওয়া আর সচেতনতা বৃদ্ধির কারণেই ডেঙ্গুর প্রকোপ মোকাবিলা করা সম্ভব হয়েছে বলে মনে করছে বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা। ডেঙ্গুর বিস্তার বৃদ্ধি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সরকারি নির্দেশনা অনুসরণ করে যে যার অবস্থান থেকে চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন বলেও জানান তারা।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (২৪ আগস্ট) বাংলাদেশ প্রাইভেট হাসপাতাল, ক্লিনিক এবং ডায়াগনস্টিক ওনার্স এসোসিয়েশন আয়োজিত এক সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন। ‘ডেঙ্গু রোগের চিকিৎসায় এসোসিয়েশনের ভূমিকা’ শীষর্ক সেমিনারে বক্তারা বলেন, ‘আগের তুলনায় দেশের চিকিৎসা সেবার মান উন্নত হয়েছে। বিশেষ করে বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক গুরুত্ব দিয়ে জনগণের সেবা দিয়ে যাচ্ছে।’

এসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান ভূঁইয়া বলেছেন, ‘ডেঙ্গুর বিস্তার বৃদ্ধি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সংগঠনের পক্ষ থেকে দেশের সব বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নির্দেশ অনুযায়ী দেশের সব হাসপাতাল কম খরচে চিকিৎসা সেবা যেমন দিয়েছে, তেমনি মানুষকে সচেতন করতেও কাজ করেছে।’

এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ডা. মোহাম্মদ মাঈনুল আহসান বলেন, ‘লোকসানের চিন্তা না করে ডেঙ্গু রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। কোনো রোগী তার হাসপাতাল থেকে ফেরত যাননি। গুরুত্ব দিয়ে কম খরচে চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন।’ আরও সহজে মানুষ যাতে বেসরকারি হাসপাতালে সেবা পেতে পারে সেদিকে দৃষ্টি দিতে চিকিৎসকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

সেমিনারে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা নিজ নিজ অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরেন।

বিজ্ঞাপন

উল্লেখ্য, সারাদেশে ১১ হাজার বেসরকারি হাসপাতাল রয়েছে, এরমধ্যে ৯০০টি রাজধানী ঢাকাতে। ডেঙ্গু প্রতিরোধে সরকারের নির্দেশ ও নেওয়া উদ্যোগ বাস্তবায়নে বেসরকারি হাসপাতালগুলোও নিজ নিজ অবস্থান থেকে ভূমিকা পালন করেছেন।

সারাবাংলা/জেআর/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন