মঙ্গলবার ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৯ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৪ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

সাফে এক ম্যাচে আল আমিনের একারই ৫ গোল!

আগস্ট ২৫, ২০১৯ | ৫:৩৭ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

ভারতে চলতি সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপে নিজজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে গোললবন্যায় ভাসিয়েছে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচের জড়তা কাটিয়ে দ্বিতীয় ম্যাচে যেন আরও উদ্বীপ্ত রাকিবরা। ভুটানকে প্রথম ম্যাচে হারিয়েছিল লঙ্কানরা। সেই লঙ্কানরা ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের কাছে হেরেছে ৭-১ ব্যবধানে। এতো বড় ব্যবধানের পেছনে সবচেয়ে বড় অবদান আল আমিন রহমানের।

বিজ্ঞাপন

লঙ্কান বধে এই কিশোর ফুটবলার একাই করেছেন ৫ গোল!

একক অবদান যখন দলীয় পারফরম্যান্সে বড় প্রভাব রাখে তেমনই করেছেন আল আমিন। ম্যাচকে একাই ধসিয়ে দিয়েছেন দারুণ দারুণ গোল করে। দলের প্রথম আর শেষ গোলেও ছিল বাফুফে একাডেমির এই ফুটবলার।

ম্যাচের ৩২ মিনিটে আল আমিনের গোলে লিড নেয় বাংলাদেশ। ডি বক্সের বাইরে থেকে আসা পাস থেকে দারুণ ফিনিশিং দেন আল আমিন রহমান। এরপর শুরু হয় গোল বিষ্ফোরণ। এবার ম্যাচের সম্ভাব্য সবচেয়ে সুন্দর গোলটি করেন অধিনায়ক রাকিব নিজেই। মাঝমাঠ থেকে একাই তিন জনকে ড্রিবলিং করে বাঁ পায়ে নিঁখুতভাবে বল জালে জড়ান রাকিব। ব্যবধান হয়র পড়ে ২-০। তার দুই মিনিট পর যেন দলীয় দুর্দান্ত নৈপুণ্য উপহার দিলো কিশোররা। মাঝমাঠ থেকে বলটা কি দারুণভাবেই পাস টু পাসে বলটা জালে জড়ালো। এবার ম্যাচের তৃতীয় ও নিজের দ্বিতীয় গোলটি করলেন আল আমিন (৩-০)।

বিজ্ঞাপন

প্রথমার্ধে লিড নিয়ে দ্বিতীয়ার্ধে যেন আরও আক্রমাণত্বক আর গুছিয়ে খেলতে থাকে বাংলাদেশ। ৪৮ মিনিটে এবার থ্রো থেকে হেডে গোল করে ব্যবধান ৪-০ করে ফেলেন ভুটান ম্যাচে জোড়া গোল দেখা আল মিরাদ। ৫৯ মিনিটেই নিজের ও সাফের প্রথম হ্যাটট্রিক পূরণ করেন আল আমিন। পেনাল্টি থেকে তার হ্যাটট্রিক গোলে ব্যবধান ৫-১ করে ফেলে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। এর মাঝে অবশ্য একটা গোল খেয়ে বসে বাংলাদেশ। তাতে অবশ্য ম্যাচের মধ্যে কোন প্রভাব পড়েনি।

থেমে থাকেনি কিশোররা। ৬৭ মিনিটে ডি বক্সের ডান প্রান্ত থেকে দুর্দান্তভাবে বল নিয়ে একেবারে গোলবারের সামনে থাকা আল আমিনকে এগিয়ে দেন উইঙ্গার। ব্যস সেখান থেকে নিজের চতুর্থ ও ম্যাচের ষষ্ঠ গোলটি করেন এই কিশোর। ৭১ মিনিটে আরও একটি গোলের মুহূর্ত হয়। এবার আগের গোলের ঠিক পুনরাবৃত্তি। তবে এবার বাম প্রান্তে। ফিনিশিং করেন আল আমিন। ব্যবধান হয়ে যায় ৭-১। যেন ২০১৪ সালের বিশ্বকাপের ব্রাজিল-জার্মানীর ম্যাচকে মনে করিয়ে দিল রাকিব-আল আমিনরা।

সেই সাথে সাফে নিজের ৬ষ্ঠতম গোলটি আদায় করেন তিনি। সঙ্গে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় ভাল ব্যবধানেই সবার উপরে আছেন এই নাম্বার টেন।

সারাবাংলা/জেএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন