রবিবার ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৭ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২২ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

অবসরে গেলে ফ্রিল্যান্সিং করবেন জুনাইদ আহমেদ পলক

সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৯ | ১০:৫১ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: মন্ত্রিত্ব থেকে অবসরে গেলে ফ্রিল্যান্সিং করবেন বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে বিশ্ববিখ্যাত আইটি কোম্পানি কোডার্সট্রাস্ট আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, ‘আমি স্বাধীনচেতা মানুষ। অন্যের অধীনস্থ হয়ে চাকরি করতে আমি পছন্দ করি না। এ জন্য মন্ত্রিত্ব থেকে কখনো অবসরে গেলে আমি ফ্রিল্যান্সিং করব। বিশ্বায়নের এই যুগে এটি একটি চমৎকার পেশা।’

তিনি বলেন, ‘একজন চাকুরের বেতন নির্ধারণ করে তার প্রতিষ্ঠান কিন্তু একজন ফ্রিল্যান্সার নিজেই নিজের বেতন নির্ধারণ করেন। এখানে থেকেই অনুমান যায় ফ্রিল্যান্সার কতটা স্বাধীন! এই স্বাধীন পেশায় কাজ করতে পারলে নিঃসন্দেহে আমি আনন্দিত হবো।’

বিজ্ঞাপন

ফ্রিল্যান্সারদের উৎসাহিত করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘ফ্রিল্যান্সারদের আয়ের টাকা ২০২৪ সাল পর্যন্ত করমুক্ত করে দেব আমরা। তাদেরকে একটি দাপ্তরিক পরিচয় দেওয়া হবে যেন তাদের পেশা সম্পর্কে সাধারণ মানুষ ভালোভাবে জানতে পারে। কারণ সারাবিশ্বের বড় বড় ব্যবসায়ী ও প্রতিষ্ঠান কাছে সৃজনশীল ও উদ্ভাবনী উপায়ে বাংলাদেশকে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে তারা।’

পলক বলেন, ‘তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সঙ্গে পরিচিত হওয়ার পর বাংলাদেশে অনেক পেশা হারিয়ে গেছে, আবার অনেক পেশা নতুন করে তৈরিও হয়েছে। নতুন পেশাগুলোতে আমাদের তরুণরা, বিশেষ করে নারীরা অনেক ভালো করছেন। শুধু মুখে নয়, আমি হৃদয় থেকে নারী স্বাধীনতার পক্ষে। তবে প্রকৃত অর্থে নারীদেরকে স্বাধীন হতে হলে তাদেরকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হতে হবে।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘ফ্রিল্যান্সিং এখন একটি বিশাল জগৎ। অর্থনীতির ভাষায় এটিকে ট্রিলিয়ন ডলার মার্কেট বলা হয়। আমাদের নারীরা যদি এর সঙ্গে যুক্ত হয় তাহলে তাদের যেমন অর্থনৈতিক স্বাধীনতা আসবে, তেমনিভাবে বাংলাদেশও বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের মাধ্যমে লাভবান হবে।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে বর্তমানে ১ লাখ ৭০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যেখানে সাড়ে চার কোটি শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছে। তাদের সবার কর্মসংস্থান করা সরকারের পক্ষে হয়ত সম্ভব হবে না। তবে সরকার তাদের জন্য সারাবিশ্বকে উন্মুক্ত করে দেবে। আউটসোর্সিংয়ের যে ট্রিলিয়ন ডলার মার্কেট রয়েছে সেটিকে ধরতে হবে। এর নূন্যতম অংশও যদি বাংলাদেশে আসে তাহলে দেশে কোনো দারিদ্রতা থাকবে না। বেকার থাকতে হবে না।’

প্রতিমন্ত্রী পলক জানান, ২০২৫ সালের মধ্যে ২০ লাখ তরুণ-তরুণীর জন্য প্রযুক্তিখাতে কাজের পরিবেশ সৃষ্টি করতে চায় তার মন্ত্রণালয়। এদের মাধ্যমে বাংলাদেশ ২৫ বিলিয়ন ডলার মূল্যের পণ্য বাংলাদেশ রফতানি করতে চায়।’

উল্লেখ্য, তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বাংলাদেশি নারীদের দক্ষতা বিকাশ ও আন্তর্জাতিকভাবে পরিচিত করে দিতে বিশ্ব বিখ্যাত আইটি প্রতিষ্ঠান কোডার্সট্রাস্ট নতুন একটি প্রকল্পের সূচনা করেছে। এ প্রকল্পের মাধ্যমে এক হাজার সুবিধাবঞ্চিত নারীকে ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ে বিনামূল্যে দক্ষতা উন্নয়নমূলক প্রশিক্ষণ ও কর্মসংস্থান প্রদান করা হবে। প্রকল্পটির উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

সারাবাংলা/টিএস/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন