বিজ্ঞাপন

কোথায় থামবেন স্মিথ?

September 6, 2019 | 11:06 am

স্পোর্টস ডেস্ক

চলতি অ্যাশেজের চতুর্থ টেস্ট অনুষ্ঠিত হচ্ছে ম্যানচেস্টারে। এর আগের তিন টেস্টের প্রথমটিতে অজিদের জয়, ২য় টেস্ট অমীমাংসিত আর তিন নম্বরটাতে বেন স্টোকসের রূপকথা। তবে সব কিছুকে ছাড়িয়ে গেছেন স্টিভেন স্মিথ। এবারের অ্যাশেজে এখন পর্যন্ত ব্যাট হাতে চার ইনিংসে মাঠে দেখা গেছে স্মিথকে।

বিজ্ঞাপন

দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে জোফরা আর্চারের বাউন্সার ঘাড়ে লাগলে মাঠ ছাড়েন স্মিথ। আর দ্বিতীয় ইনিংসে তাই ব্যাট হাতে নামা হয়নি তার। পুরোপুরি সুস্থ না হওয়ায় তৃতীয় টেস্টেও তাই দেখা যায়নি তাকে। তবে ফিরেছেন চতুর্থ টেস্টে ম্যানচেস্টারে, একা হাতেই দলকে এনে দিয়েছেন বড় সংগ্রহ।

এবারের অ্যাশেজের প্রথম ডাবল শতক এসেছে স্মিথের ব্যাট থেকেই। প্রথম দিন শেষে অজিরা যখন ধুঁকছিল ঠিক এক প্রান্ত আগলে রেখেছিলেন স্মিথ। দ্বিতীয় দিনেও সেই চিরচেনা স্টিভেন স্মিথ। দারুণ লড়েছেন জোফরা আর্চারের বিধ্বংসী বাউন্সার আর গতির সামনে। আর্চারকে কোনো রকম পাত্তায় যেন দেননি স্মিথ। ১৯১ রানে যখন ব্যাট করছেন তখন লং অনের ওপর দিয়ে ছক্কা হাঁকিয়ে স্কোর ১৯৭। এরপর অপেক্ষা আরও কয়েকটি বলের। আর তাতেই রচিত আরও এক মহাকাব্যিক স্মিথীয় ইনিংস।

বিজ্ঞাপন

অ্যাশেজের এবারের আসরটি যেন কেবল স্মিথময়। প্রথম টেস্টে জোড়া শতক। দ্বিতীয় টেস্টে এক ইনিংস ব্যাট করে ৯২ রান। এক টেস্ট বিরতির পর ফিরে ডাবল সেঞ্চুরি। এ যেন ডাল ভাত হয়ে গেছে স্মিথের কাছে। আর তাই তো অজিরা যখন ৪৯৭ রানে ইনিংস ঘোষণা করলেন তখন ড্রেসিং রুমে বসা স্মিথের নামের পাশে জ্বলজ্বল করছে ২১১টি রান। এর আগে জো রুটের বলে ডেনলির হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান স্মিথ।

অ্যাশেজের শতকের দিক থেকে কেবল পিছিয়ে আছেন স্যার ডন ব্র্যাডম্যান আর স্যার জ্যাক হবসের থেকে। ব্র্যাডম্যান ৮৯.৭৮ গড় নিয়ে করেছেন ১৯টি শতক আর হবস ৫৪.২৬ গড় নিয়ে করেছেন ১২টি শতক। স্যার হবসের ঘাড়ে নি:শ্বাস ফেলছেন স্টিভেন স্মিথ। এখন পর্যন্ত ৬৫.৩৭ গড়ে স্মিথ করেছেন ১১টি শতক। অ্যাশেজের ব্যাটিং গড়ের দিক দিয়ে স্মিথ কেবল পিছিয়ে আছেন ব্র্যাডম্যান এবং হার্বাট স্টাক্লিফ ৬৬.৮৫ গড় নিয়ে।

মাত্র ২৬টি অ্যাশেজ টেস্টেই ১১টি শতক হাঁকিয়েছেন স্মিথ। আর ম্যানচেস্টারের ডাবল সেঞ্চুরির মাধ্যমে পেছনে ফেলেছেন স্টিভ ওয়াহকে। ম্যানচেস্টারের চতুর্থ টেস্টের ২য় দিন শেষে ৪৭৪ রানে পিছিয়ে আছে ইংল্যান্ড। ইংলিশদের সংগ্রহ ১ উইকেট হারিয়ে ২৩ রান।

আরও পড়ুন: ইতিহাস গড়ে গর্বিত রহমত শাহ

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন