সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৮ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৩ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

অচল কাশ্মিরে ফিরে এসেছে চিঠি ও ল্যান্ডফোন!

সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৯ | ৮:২৬ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বিশেষ স্বায়ত্তশাসন বাতিলের পর হতে ভারত-শাসিত কাশ্মিরে বজায় রয়েছে নানান বিধিনিষেধ। গত ৫ আগস্ট থেকে সেখানের জীবনযাত্রা কার্যত স্থবির হয়ে আছে। মোবাইল নেটওয়ার্ক আর ইন্টারনেট কাশ্মিরের বেশিরভাগ অঞ্চলে বন্ধ থাকলেও কোথাও কোথাও আবার চালু হয়েছে ল্যান্ডফোন সেবা। প্রিয়জনের সঙ্গে যোগাযোগ করতে অনেকে আবার ফিরে গেছেন পুরনো চিঠির যুগে।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

ইরফান আহমেদ (২৬) নামে এক চাকরিজীবী যুবক প্রেম করেন ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া ছাত্রীর সঙ্গে। মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক বিচ্ছিন্ন হওয়ায় এই যুগল পড়েছেন বেকায়দায়। বাধ্য হয়ে তারা এখন চিঠি লিখে সম্পর্ক বজায় রাখছেন। অস্থিরতার এই সময়ে ভালোবাসা প্রকাশ করতে তার আর কোনো উপায় খুঁজে পাননি।

ইরফান বলেন, অবরোধ-নিষেধাজ্ঞার পর হতে আমাদের পক্ষে ফোনে কথা বলা বা দেখা করা সম্ভব হচ্ছিল না। আমরা একে অপরকে কতটা অনুভব করি তা জানানো ছিল অসম্ভব। সুতরাং আমি চিঠি লিখতে শুরু করতাম এবং তার রুমে তা ছুড়ে মারতাম। আমরা বেশ কিছু চিঠি বিনিময় করেছি।

বিজ্ঞাপন

ঠিক একইভাবে কাশ্মিরে পুনরায় ব্যবহার শুরু হয়েছে প্রায় হারিয়ে যাওয়া ল্যান্ডফোনের। ভারতে যেখানে মোবাইল ফোনের গ্রাহক একশ কোটি, ইন্টারনেটের ৫৬ কোটি। সেখানে ল্যান্ডফোনের ব্যবহার মাত্র ২৩ কোটির। যেটিরও অনেকাংশের ব্যবহার হত না। কিন্তু কাশ্মিরে মোবাইল ফোন ও ইন্টারনেটের অচল অবস্থায় তৈরি হওয়ায় সেখানে বেড়েছে ল্যান্ডফোন ব্যবহারের সংখ্যা। যদিও ল্যান্ডফোনও সবজায়গায় চালু হয়নি পুরোপুরিভাবে।

ভারত-শাসিত কাশ্মিরে যোগাযোগ বিশেষ করে ইন্টারনেটে নিষেধাজ্ঞা নতুন কিছু নয়। চলতি বছরই ৫১ বার সেখানে ইন্টারনেট বন্ধ করে দেওয়া হয়। ২০১১ সাল থেকে এই বিচ্ছিন্নের সংখ্যা ১৭০ বার। ২০১৬ সালেও প্রায় ৬ মাসব্যাপী বিভিন্ন সময়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল ইন্টারনেট সেবা।

সারাবাংলা/এনএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন