রবিবার ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৭ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২২ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ময়মনসিংহের কলেজছাত্র শাকিল হত্যার বিচার চেয়ে মানববন্ধন

সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯ | ৪:৪৭ পূর্বাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট 

বিজ্ঞাপন
ঢাকা: ময়মনসিংহ কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র শাহরিয়ার ইসলাম শাকিলের হত্যাকারী ও পরিকল্পনাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবি জানিয়েছে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।
বিজ্ঞাপন
মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ঢাকা শহরের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করে এ দাবি করেন।
মানববন্ধনে শাকিলের বড় বোন সায়মা আক্তার বলেন, 'মামলার মূল আসামি গ্রেফতার হলেও অন্য আসামিরা এখনো প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। তাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে না। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মরকলিপি দিয়েছি।'
তিনি বলেন, ২ মাস ১৫ দিনে তাদের মা ভাত খাচ্ছেন না। কো রকম জোর করে তাকে খাওয়ানো হচ্ছে।
শাকিলের বড় ভাই রিয়াজুল ইসলাম বলেন, চার ভাই-বোনের মধ্যে সবার ছোট ও আদরের ছিলো শাকিল। গত ২৫ জুন কলেজ শেষ করে বাসায় ফিরার পথে তাকে ডেকে নিয়ে ছুরি আঘাত করে হত্যা করা হয়। প্রথমে তার বুকে ছুরি আঘাত করে এরপর হাত পায়ের রগ কেটে দেয়। মৃত্যু নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত ওকে ঘরে থেকে বের করা হয়নি বলেও অভিযোগ করেন তিনি।
তিনি আরও বলেন, ওই ঘটনায় ২৮ জুন একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। মামলার মূল আসামি গ্রেফতার হলেও অন্যান্য আসামিরা ধরা ছোয়ার বাইরে রয়ে গেছে। প্রশাসন ঠিক মত কাজ করছেনা এমন অভিযোগ করে তিনি বলেন, 'মামলা দায়েরের কিছুদিন পর থেকে আমাদের ওপর মামলা উঠিয়ে নেওয়ার হুমকি আসতে থাকে। স্থানীয় প্রভাবশালীদের সহায়তার মাধ্যমে মামলা না ওঠালে এলাকা থেকে উচ্ছেদের হুমকিও দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।
সন্তান হত্যার বিচার চেয়ে শাকিলের বাবা মো. নজরুল ইসলাম বলেন,  আমি এবং আমার পরিবার বর্তমানে আসামিপক্ষের লোকজনের ভয়ে আছি। তিনি এসময় প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইজিপির হস্তক্ষেপ কামনা করেন। যত দ্রুত সম্ভব শাকিলের হত্যাকারী ও পরিকল্পনাকারীদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবি জানান তিনি।
উল্লেখ্য,  চলতি বছরের ২৫ জুন দুপুরে মহানগরীর চরপাড়া কপিক্ষেত এলাকার ভাড়াটিয়া মাসুমের কাছ থেকে চাঁদা আনতে যেয়ে নিজেদের মধ্যে তর্ক-বিতর্কের এক পর্যায়ে সহযোগী রিমনের (১৭) ছুরিকাঘাতে খুন হয় শাকিল (১৭)। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৬ জুন দুপুরে সে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা যায়।

সারাবাংলা /এআই /আরএফ

Advertisement
বিজ্ঞাপন

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন