বুধবার ২০ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২২ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ভারতে যেমন চলছে বিটিভি

সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯ | ৬:৩০ অপরাহ্ণ

রেজওয়ান সিদ্দিকী অর্ণ

ঢাকঢোল পিটিয়ে প্রচার বাংলাদেশ টেলিভিশনের (বিটিভি) শুরু হয় ভারতে। চলতি সেপ্টেম্বর মাসের ২ তারিখ সকাল থেকে ভারতে বিটিভির সম্প্রচার শুরু হয়। ওই দিন বিকালে বাংলাদেশের তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতে বিটিভি সম্প্রচার উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভারতের হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলি দাশ উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

এখন জানতে ইচ্ছা করতেই পারে, সপ্তাহ পেরিয়ে যাওয়ার পর ভারত তথা পশ্চিমবঙ্গে মানুষ বিটিভি দেখছেন কিনা! বলাকা সেনগুপ্ত নামে এক নারী ফেসবুকে বিটিভি সম্পর্কে লিখেছেন, গত তিন চারদিন ধরে বিটিভির অনুষ্ঠান দেখছি। চ্যানেলটার নাম বিটিভি ওয়ার্ল্ড। বাংলাদেশ টেলিভিশন নয়। মনে হয় এটা বিদেশের দর্শকদের জন্যই খোলা হয়েছে। প্রথম দিন বেশ ভালই লাগল। নতুন জিনিস ভালো মন্দ যাই হোক, দেখেছি সারাদিন। কিন্তু পরদিন থেকে একই অনুষ্ঠানের পুনরাবৃত্তি। যখনই বিটিভি খুলছি তখনই অবাক হয়ে ভাবছি আরে এটা তো আগেই দেখেছি। রোজই এক অনুষ্ঠান, একই প্রচার একই গান। অন্তত আমার চোখে পড়েনি নতুন কিছু।


আরও পড়ুন :  শাকিবের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ, ৭ দিনের আল্টিমেটাম


বলাকা সেনগুপ্তর এমন মন্তব্যের যৌক্তিকতা খুঁজতে যোগাযোগ করা হলো পশ্চিমবঙ্গের পরিচিতজনের সাথে। মল্লিকপুরের বাসিন্দা নিখিলেষ ঘোষের কাছে বিটিভি খুব একটা মন্দ লাগছে না। তিনি বলেন, বিটিভি যে খুব দেখছি তা না। মাত্র তো কদিন হলো ভারতে প্রচার শুরু হয়েছে। বাংলাদেশ সম্পর্কে জানতে পারছি। দিনের অনুষ্ঠান কাজের চাপে দেখা হয় না। রাতে নাটক দেখেছি। এমনিতে পশ্চিমবাংলায় বাংলাদেশের নাটকের চাহিদা আছে। আগে ইন্টারনেটে দেখতাম। এখন টিভিতে দেখছি।

বিজ্ঞাপন
 বিটিভির মহাপরিচালক হারুন অর রশীদ। ছবি: সংগৃহীত
 বিটিভির মহাপরিচালক হারুন অর রশীদ। ছবি: সংগৃহীত

তবে সরকারের গুনগান বেশি গাওয়ায় কিছুটা বিরক্তি প্রকাশ করলেন শিয়ালদহ স্টেশন লাগোয়া একটি আবাসিক হোটেলের ম্যানেজার প্রবীর বোস। তিনি বলেন, আমাদের হোটেলের অধিকাংশ অতিথি বাংলাদেশি। ট্রেন থেকে নেমেই আমাদের হোটেলে বাংলাদেশি অতিথিরা আসেন। তাই তাদের জন্য আজকাল বিটিভি চালিয়ে রাখছি। যদিও তারা বিটিভি দেখে না। কাজকর্মে ব্যস্ত থাকে। আমাদের দেখা পড়ে। আমার কাছে তো ভালো লাগছে। বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানতে পারছি। বাংলাদেশকে জানতে হলে তো বঙ্গবন্ধুকে জানতে হবে। তবে সমস্যাটা হলো একই অনুষ্ঠান বারবার টেলিকাস্ট করে বিটিভি। এটা বিরক্তিকর। মাঝে মাঝে তো চ্যানেল পরিবর্তন করে দেই। কতক্ষণ আর একই অনুষ্ঠান দেখা যায়! বিটিভির উচিত এসব বিষয়ে খেয়াল রাখা।

তবে পশ্চিমবঙ্গের ইউটিউবার দীপায়ন রায় বিটিভির দর্শক নিয়ে কথা বললেন।  তিনি বলেন, শুনেছি বিটিভির প্রচার শুরু হয়েছে ভারতে। এটা ভালো খবর। কিন্তু ডিটিএইচ ফ্রি ডিশের মাধ্যমে কতজন মানুষ বিটিভি দেখবে সেটাই বড় কথা! আজকাল ভারতে ফ্রি ডিশ গ্রহীতার সংখ্যা খুব কম। খেটে খাওয়া মানুষও পেইড সংযোগ নেয়। গ্রামে হোক সেটা পাহাড়ে। এত প্রচারনা করে বিটিভির সম্প্রচার শুরু হলো, কিন্তু ফ্রি ডিশের মাধ্যমে বিটিভি সম্প্রচার করায় মানুষের আগ্রহ থাকবে না বলে মনে করি।

এদিকে ভারতীয় দর্শকদের করা অভিযোগ প্রসঙ্গে কথা হয় বিটিভির মহাপরিচালক হারুন অর রশীদ এর সঙ্গে। একই অনুষ্ঠান বারবার প্রচারিত হওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিটিভি ওয়ার্ল্ড শুধু ভারতে প্রচারিত হয় না। এটা সারাবিশ্বের সম্প্রচার করা হয়। ভারতে যখন দিন, তখন অন্য কোনো একটা দেশে রাত। যেদেশে রাত সেদেশর দর্শক তো দিনের প্রচারিত অনুষ্ঠান দেখতে পারে না। তাই পুনঃপ্রচার করা হয়। এটা করতেই হবে।

অনুষ্ঠানের মান সম্পর্কে তিনি বলেন, বিটিভি মান বজায় রেখে কাজ করার চেষ্টা করে।  আর রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন চ্যানেলের অনুষ্ঠান খানিকটা ভিন্নধর্মী হয়। সেটা সবদেশে হয়ে থাকে।

প্রসঙ্গত, ভারতের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন দূরদর্শনের ডিটিএইচ প্লাটফর্ম-ডিডি ফ্রি ডিশের মাধ্যমে এই সম্প্রচার কার্যক্রম পরিচালনা করবে বিটিভি। চলতি বছরের ১৭ মে ভারতের সবথেকে বড় ব্রডকাস্ট এজেন্সি প্রসার ভারতী ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর হয়। সেই চুক্তি স্বাক্ষরের চার মাসের মধ্যে ভারতে বিটিভি সম্প্রচার শুরু করে।


আরও পড়ুন :

.   রোমান কি রোমান্টিক, নাকি সাংঘাতিক?

.   পরিচালক জাকির খাঁনের বাঁচতে প্রয়োজন ৬টি ইনজেকশন

.   বাধ্য হয়ে অতিথি পরিচালক হলেন অজয় দেবগন

.   সিদ্ধান্ত বদলে বায়োপিকে ফিরলেন আমির খান

.   অতনু ঘোষের ছবিতে জয়া, সঙ্গে প্রসেনজিৎ

.   কঙ্গনা তবে প্রশংসাও করতে জানেন!

.   মেড ইন বাংলাদেশ: যে সংগ্রামের নেই কোনো সীমানা


বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরএসও/পিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন