রবিবার ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৭ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২২ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

শেষ পর্যন্ত পাকিস্তানের মাটিতে খেলতে যাবে শ্রীলঙ্কা?

সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯ | ২:৪২ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

২০০৯ সালে পাকিস্তান সফরে লাহোরে শ্রীলঙ্কা দলকে বহনকারী বাসে হামলা চালিয়েছিল সন্ত্রাসীরা। ভয়াবহ ঘটনায় আহত হয়েছিলেন বেশ কয়েকজন লঙ্কান ক্রিকেটার। ঐ ঘটনায় বেশ কিছু মানুষ মারা গিয়েছিল। এরপর গত দশ বছরে লাহোরে ২০১৭ সালে একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচই খেলেছে শ্রীলঙ্কা।

বিজ্ঞাপন

পাকিস্তান সফরের আগে নিজেদের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছে লঙ্কান ১০ তারকা ক্রিকেটার। তারপরও দুই ফরম্যাটের দুই অধিনায়ক ঘোষণা করেছে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। এরই মধ্যে নতুন শঙ্কা জেগেছে লঙ্কানদের পাকিস্তান সফর নিয়ে। শ্রীলঙ্কান সরকারের বরাত দিয়ে ইএসপিএন ক্রিকইনফো জানিয়েছে, শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল পাকিস্তানে গেলে তাদের ওপর আবারো সন্ত্রাসী হামলা হতে পারে।

লাহিরু থিরিমান্নেকে ওয়ানডে এবং দাসুন শানাকাকে টি-টোয়েন্টির অধিনায়ক করে দুই ফরম্যাটের জন্য দল ঘোষণা করা হয়। কিন্তু এর কয়েক ঘণ্টা পরই দেশটির প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছে, ক্রিকেটারদের ওপর সন্ত্রাসী হামলার হুমকি পেয়েছে তারা। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড থেকে এখনও সফরের ব্যাপারে কোনো ঘোষণা না আসলেও তারা জানিয়েছে, পাকিস্তানের নিরাপত্তা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে দল পাঠানো হবে। যদি শঙ্কা থেকেই থাকে তাহলে পাকিস্তান সফরে যাবে না দল।

নতুন করে পাকিস্তান সফর নিয়ে তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা। সফর পুনর্বিবেচনার বিষয়টি চিন্তা করছে শ্রীলঙ্কা দল। এমনকি সফর বাতিলও হয়ে যেতে পারে। বোর্ডের সূত্র থেকে জানানো হয়, এমনটি হলে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের কাছে প্রস্তাব যেতে পারে, নিরপেক্ষ কোনো ভেন্যুতে সিরিজ আয়োজনের।

করাচিতে আগামী ২৭, ২৯ সেপ্টেম্বর ও ৩ অক্টোবর হওয়ার কথা রয়েছে তিনটি ওয়ানডে। লাহোরে হওয়ার কথা রয়েছে টি-টোয়েন্টি সিরিজ, যা শেষ হবে ৯ অক্টোবর।

বিজ্ঞাপন

এর আগে পাকিস্তানের নিরাপত্তা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে দেশটি সফরের সবুজ সংকেত দিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। তবে নতুন হুমকির বার্তায় ভীতিকর পরিবেশ তৈরি হয়েছে। সরকারের কাছ থেকে তথ্য পাওয়ার পর পাকিস্তানের নিরাপত্তা পরিস্থিতি পুনর্মূল্যায়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। তাতে সম্ভাব্য সন্ত্রাসী হামলার হুমকিতে শঙ্কায় পড়ে গেলো এই সফর। ১০ সিনিয়র ক্রিকেটার সরে দাঁড়ানোর পর নতুন এই হুমকিতে অন্য খেলোয়াড়রাও পাকিস্তান যেতে রাজি হবেন কিনা, সেটাই এখন দেখার বিষয়!

সারাবাংলা/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন