বুধবার ১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ১ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ছাত্রলীগকে ইতিবাচক ধারায় ফেরাতে চান নাহিয়ান-লেখক

সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৯ | ১:৫৬ অপরাহ্ণ

ঢাবি করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ছাত্রলীগকে সব ধরনের নেতিবাচক কর্মকাণ্ড থেকে মুক্ত করে ইতিবাচক ধারায় ফেরাবেন বলে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছেন সদ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য। আর এ জন্য সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা কামনা করেছেন তারা।

রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তারা এই প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

তারা জানান, আগামীকাল (সোমবার) সকাল ১১টায় ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাবেন। এরপর আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব পালন শুরু করবেন।

ছাত্রলীগের পুরনো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে সব ধরনের ইতিবাচক পদক্ষেপ নেওয়া হবে। শেখ হাসিনার হাতকে শক্ত করতে সব ধরনের চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত আছি— বলেন এই দুই নেতা।

বিজ্ঞাপন

ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় বলেন, আমাদের মাধ্যমে যেন কোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা না ঘটে সে জন্য আমরা সব সময় কাজ করে যাব। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কোনো অন্যায়কে প্রশ্রয় দেয় না, কোনো চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজকে ছাত্রলীগ প্রশ্রয় দেয় না। সুতরাং আমরা যদি কোনো প্রমাণ পাই যে কেউ চাঁদাবাজি করছে, ছাত্রলীগের দুর্নাম করছে, আমরা সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেব।

ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, ‘আমাদের সামনে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে আগামী ১০ মাসের মধ্যে সবগুলো কমিটি তৈরি করে একটি সুন্দর সম্মেলন উপহার দেওয়া। ছাত্রলীগকে নিয়ে যেন কোনো নেতিবাচক প্রশ্ন না ওঠে আমরা সেই পর্যায়ে ছাত্রলীগকে নিয়ে যাব।

এক প্রশ্নের জবাবে আল নাহিয়ান খান জয় বলেন, ‘আমি একটি হলের সেক্রেটারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি, আইন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি, লেখক ভট্টাচার্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ছিল। আমাদের সম্পর্কে আপনারা খোঁজ নিলে জানতে পারবেন। আমরা সব সময় চেষ্টা করি যে কোনো ধরনের কালিমা আমাদের গায়ে যেন না লাগে।’

তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা যেভাবে দিক-নির্দেশনা দেবেন সেভাবেই আমরা চলব। আমরা যে দায়িত্ব পেয়েছি, সেই দায়িত্ব পালন করব। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় ছাত্র সংগঠন। এটা চালাতে হলে আমাদের অবশ্যই কর্মপরিকল্পনা নিতে হবে। আমরা বসে সার্বিক একটা পরিকল্পনা করব, ছক আঁকব। সেই চক অনুযায়ী যে ১০ মাস সময় আছে, আমাদের যেসব কমিটি বিলুপ্ত হয়েছে, যেসব কমিটির বয়স দুই বছরের বেশি হয়েছে সেগুলো বিলুপ্ত করে যুগোপযোগী ছাত্রলীগ গড়ে তুলব।

সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কোনো বিচার হওয়া উচিত কি না জানতে চাইলে নাহিয়ান বলেন, আমরা শুধু দায়িত্ব পেয়েছি। এই বিষয়ে ছাত্রলীগের যারা নীতি-নির্ধারক, আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা, তারা উত্তর দিলে ভালো হয়।

প্রসঙ্গত, বিতর্ক-সমালোচনা আর নানা অভিযোগের মুখে রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী গতকাল রাতে ছাত্রলীগের পদ থেকে সরে দাঁড়ান। আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের এক বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, সংগঠনের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও জ্যেষ্ঠ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

আরও পড়ুন:
শোভন-রাব্বানীর পদত্যাগ, ছাত্রলীগের দায়িত্বে নাহিয়ান-লেখক

সারাবাংলা/কেকে/এটি

Advertisement
বিজ্ঞাপন

Tags: , ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন