রবিবার ২০ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ৪ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশের ৪০ মিশনে পোস্টিং চায় পুলিশ

সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯ | ৫:৫০ পূর্বাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশের ৪০ মিশনে পোস্টিং বা পদায়ন চায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত বাহিনী পুলিশ। এসব মিশনে পুলিশ সুপার পদ-মর্যাদার ১৪১টি পদ সৃজন এবং তিনটি করে গাড়ি চেয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে প্রস্তাবও পাঠিয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

পুলিশের পাঠানো এই প্রস্তাবের বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে মতামত জানতে চেয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র সারাবাংলাকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

পুলিশের পাঠানো প্রস্তাবে বলা হয়েছে, আইনশৃঙ্খলা আরো গতিশীল করতে ও বিদেশে লুকিয়ে থাকা গুরুত্বপূর্ণ মামলার আসামিদের বিচারের মুখোমুখি করতে দেশের বাইরে অবস্থিত বাংলাদেশের মিশনগুলোতে পুলিশ বাহিনীর জনবল পদায়ন জরুরি। পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা মিশনগুলোতে কাজ করলে বিদেশে লুকিয়ে থাকা বঙ্গবন্ধুর খুনিদের গ্রেফতার ও দেশে ফেরানোর কাজ সহজ হবে। বিদেশের মাটিতে বসে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের লঙ্ঘণসহ বিভিন্ন অপরাধে যুক্ত বাংলাদেশিদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা ও তাদের দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের মুখোমুখি করা যাবে। এছাড়া প্রবাসীদের পাসপোর্ট যাচাই-বাছাইসহ আরো জটিল নানাবিধ কাজ সহজে করা যাবে বলেও প্রস্তাবে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রস্তাবে আরও বলা হয়েছে, মিশনগুলোতে পুলিশ সুপাররা ‘পুলিশ লিয়াঁজো কর্মকর্তা’ হিসাবে কাজ করবেন। এজন্য বিশ্বের ৪০টি দেশে অবস্থিত বাংলাদেশের ৪০টি মিশনে পুলিশ সুপার পদ-মর্যাদার কর্মকর্তাদের প্রেষণে নিয়োগসহ মোট ১৪১টি পদ সৃজন এবং তিনটি করে গাড়ি সদর দপ্তরের সাংগঠনিক কাঠামোতে অন্তর্ভূক্ত করতে চায় বাংলাদেশ পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

যে ৪০টি মিশনে পুলিশ সদস্যরা নিয়োগ চান সেগুলো হলো, যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, চীন, কানাডা, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, ইতালী, ফ্রান্স, জার্মানি, রাশিয়া, নেদারল্যান্ডস, সুইডেন,  তুরস্ক, কুয়েত, থাইল্যান্ড, জাপান, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়া, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম, কাতার, ওমান, মিশর, বাহরাইন, ব্রুনাই, মিয়ানমার, নেপাল, জর্ডান, ইরাক, আফগানিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, গ্রীস, স্পেন, মরিশাস, লিবিয়া ও মরক্কো।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে, বাংলাদেশের মিশনগুলোর অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার জন্য কর্মী আছে। এরা মূলক দূতাবাসের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে থাকে। তবে পুলিশ সদর দফতরের পাঠানো প্রস্তাবের মত জনবল নিয়োগের বিধি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নেই। প্রস্তাবটি অনুমোদন করার আগে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অ্যালোকেশন অব বিজনেস সংশোধন করতে হবে। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে পাঠানো প্রস্তাবটি পর্যালোচনা করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছে সূত্রটি।

সারাবাংলা/জেআইএল/এসএমএন

বিজ্ঞাপন

Tags: , ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন