বিজ্ঞাপন

মা ও শিশু মৃত্যুর হার কমাতে জনপ্রতিনিধিদের এগিয়ে আসার আহ্বান

September 17, 2019 | 9:00 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

নোয়াখালী: মা ও শিশুর মৃত্যু হার কমাতে এবং স্বাস্থ্যসেবার মানোন্নয়নে সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) নোয়াখালী জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এই সভার আয়োজন করা হয়। সেভ দ্য চিলড্রেন ও পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতর যৌথভাবে এই সভার আয়োজন করে।

বিজ্ঞাপন

সভায় বক্তারা বলেন, আমরা চাই একটি মা যেন সন্তান জন্ম দিতে গিয়ে মারা না যান। আমাদের সমাজে নানা অপসংস্কৃতির বেড়াজালে আবদ্ধ, বিভিন্ন সামাজিক প্রতিবন্ধকতার জালে আবদ্ধ। যে কারণে আমাদের স্বাস্থ্যসেবার যে লক্ষ্য তা অর্জন করা সম্ভব হচ্ছে না। এসব প্রতিবন্ধকতা দূর করতে জনপ্রতিনিধিদের এগিয়ে আসতে হবে।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন তন্ময় দাস। তিনি বলেন, একটি সুস্থ জাতি গঠনে সুস্থ শিশুর বিকল্প নেই। সুস্থ মায়ের বিকল্প নেই। মাতৃ ও শিশু মৃত্যুহার রোধ করতে সবার এগিয়ে আসতে হবে।

বিজ্ঞাপন

সভায় আলোচকরা মা ও শিশু মৃত্যুর হার কমিয়ে আনতে সরকারের নেওয়া নানা পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন। পাশাপাশি জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরা তাদের বক্তব্য উপস্থাপন করেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মো. আব্দুর রউফ মণ্ডল। আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. মোমিনুর রহমান, পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতরের উপপরিচালক একেএম জহিরুল ইসলাম, সেভ দ্য চিলড্রেন’র মামনি প্রকল্পের উপপরিচালক সালাহ উদ্দীনসহ অনেকে।

বিজ্ঞাপন

গত বছর জাতিসংঘের শিশু তহবিল ইউনিসেফ, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, বিশ্বব্যাংক ও জাতিসংঘের জনসংখ্যা বিভাগের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে প্রতি ঘণ্টায় পাঁচ বছরের কম বয়সী ১১টি শিশুর মৃত্যু হয়। কারণ হিসেবে তারা জানায়, অপুষ্টি, মৌলিক স্বাস্থ্যসেবার ঘাটতি, বিশুদ্ধ পানির অভাব এবং পয়োব্যবস্থার স্বল্পতা।

আরও পড়ুন:
শিশুমৃত্যুর হার কমেছে বাংলাদেশে

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এটি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন