বিজ্ঞাপন

ঈশান কোণে, মেঘ গোনে

December 7, 2017 | 9:51 am

 

বিজ্ঞাপন

মাকসুদা আজীজ

অ্যাসিস্ট্যান্ট এডিটর

বিজ্ঞাপন

আজ অগ্রহায়ণের  ২৩ তারিখ। কই শীত জাঁকিয়ে আসবে তা না, বঙ্গোপসাগরে নাকি নিম্নচাপ দেখা দিয়েছে। যে কারণে বৃষ্টি নামতে পারে কাল আর পরশু। এটা কোনো কথা?

বঙ্গোপসাগরের আন্দামান ও নিকবার এলাকায় এই অসময়ে আসা বিরক্তিকর নিম্নচাপ অবস্থান করছে। সেখানে তার গতিবিধি দেখিয়ে দেখিয়ে নেচে নেচে জানান দিচ্ছে সে কোন দিক থেকে কোনদিকে যাবে।

বিজ্ঞাপন

আবহাওয়াবিদরাও এই নিম্নচাপের গতিবিধি দেখে বেশ চিন্তিত। ব্যাটা না শেষে শান্তশিষ্ট শীতের সাগরকে ভুলিয়ে ভালিয়ে পানি টেনে নিজের শক্তি বাড়িয়ে গভীর নিম্নচাপ হতে হতে ঘূর্ণিঝড়ই হয়ে যায়। তবে বিশেষজ্ঞরা বলেছেন ভয়ের কিছু নেই আপাতত, এত শক্তিশালী সেটা নাও হতে পারে।

পাজির হদ্দ নিম্নচাপটা আজ বৃহস্পতিবার খানিকটা দুর্বল হয়ে, শুক্রবার ভারতের পূর্ব বন্দরে নোঙর ফেলবে। যাক বাবা, আজকের দিনটা কোনোভাবে  করে দিতে পারলেই হয় যাবে। কাল ছুটি আছে, সামান্য যদি মেঘলা মেঘলা বা বৃষ্টি থাকে তাহলে জম্পেশ খিচুড়ি রান্না করে লেপের তলায় পা ঢুকিয়ে সিনেমা দেখা যাবে। খুব দরকার না হলে বাড়ি থেকে এমন আদুরে আরামের দিনে বের হওয়ার দরকার নেই। যদি সবকিছু ঠিকঠাক যায় আর নিম্নচাপ সাগর থেকে মামা চাচার জোর জোগাড় না করে ফেলে তাহলে দুই তিন ধরে বৃষ্টি ছাড়া তেমন কিছু হবে না। আর ঢাকার বৃষ্টি মানেই তো পানে জমে থাকা। একদিক থেকে অবশ্য ভালো, পরেরবার চিপস খেয়ে খোসা ফেলার সময় যেন এই পচা পানির কথা মনে থাকে। তাহলে চিপসের প্যাকেটও জায়গা মতো পরবে আর পানিও নিজের পথে বের হয়ে যাবে।

বিজ্ঞাপন

বৃষ্টির কারণে আকাশে মেঘ জমবে ফলে সকাল ৬টা ২৮ এ সূর্য উঠলেও সেটা দেখা নাও যেতে পারে। যদি যায়ও, একটু কম কম প্রভাব বিস্তার করতে পারবে, আকাশ আজকে আস্তে আস্তে মেঘের দখলে চলে যাবে। আর মেঘ রাজার সৈন্যরা তীর-বর্শা নিয়ে প্রস্তুত দাঁড়িয়ে থাকবে, যে কোনো সময়ই নামতে পারে বৃষ্টি।

মেঘে ঢাকা আকাশের কারণে গরমও একটু বেশি বেশি থাকছে। আজ সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস আর সর্বনিম্ন ১৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে আকাশে মেঘ থাকায় সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি আজকে একটু ব্যাক ফুটে থাকছে। তাই বলে ওকে ছাড় দেওয়ার দরকার নেই সকাল সকালেই সানস্ক্রিন মেখে নিতে হবে।

বিজ্ঞাপন

সূর্যের এমনিই শীতের মধ্যে আলসেমি লাগে তার উপর বৃষ্টি, আমরাই জলদি জলদি কাজ শেষ বাড়ি যাবো সূর্য কী বসে থাকবে নাকি? ৫টা ১২টা বাজতেই ধুপ করে বসে যাবে। তারপর সারারাত পার করতে হবে তাকে ছাড়াই।

সৌভাগ্যক্রমে চাঁদের কৃষ্ণপক্ষেও সুপার মুন ভালোই বড় আছে। তবে সে উঠবে সেই রাত ৯টা ১৬তে, তবে মেঘের মধ্যে কতটা দেখা যায় সেটাই প্রশ্ন, চাঁদের ডুবার সময় হচ্ছে, সকাল ১০টা ৪৪। একে তো দিনের বেলা তার উপর আবার মেঘ, এই চাঁদকে দেখার আশাই বাদ দিতে হবে।

আপনাদের সারাদিন নিরাপদে কাটুক। ঘর থেকে বের হওয়ার সময় ছাতা নিতে ভুলবেন না। আর যদি ভুলেও যান বৃষ্টিতে বের না হওয়াই ভালো। শীতে বৃষ্টিতে ভিজলে যে ভোগান্তিটা হবে সেটা এই বছরে আর সারবে না কিছুতেই।

বিজ্ঞাপন

Tags:

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন