বিজ্ঞাপন

খালেদের নামে ৪ মামলা, অস্ত্র-মাদকে ৭ দিন করে রিমান্ড চাইবে পুলিশ

September 19, 2019 | 6:32 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে গুলশান থানায় অস্ত্র, মাদক ও মানি লন্ডারিং আইনে তিনটি মামলা দায়ের করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ান (র‌্যাব)। এছাড়া মতিঝিল থানাতেও তার বিরুদ্ধে মাদক আইনে একটি মামলায় দায়ের করা হয়েছে। এসব মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে মাদক ও অস্ত্র আইনের মামলায় সাত দিন করে রিমান্ড আবেদন করা হবে।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে গুলশান থানায় এই মামলা দায়ের করা হয়। পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে তাকে নিয়ে আদালতের পথে রওনা হয়েছে পুলিশ।

গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ বি সিদ্দিক সারাবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, খালেদ মাহমুদকে ৭ দিন করে রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। মামলার কার্যক্রম শেষ করতে আদালতে পাঠাতে কিছুটা দেরি হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

গুলশান জোনের ডিসি সুদীপ কুমার চক্রবর্তী সাংবাদিকদের বলেন, অস্ত্র ও মাদক মামলায় সাত দিন এবং মানি লন্ডারিংয়ের মামলায় খালেদের আরও সাত দিনের রিমান্ড চাইতে ঢাকা সিএমএম আদালতে পাঠানো হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী মানি লন্ডারিং মামলাটি তদন্ত ও দেখভাল করবে সিআইডি।

এর আগে, বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বিকেল থেকেই খালেদের গুলশানের বাসা ঘিরে রাখে র‌্যাব। পরে সন্ধ্যায় তাকে আটক করা হয়। তার বাসা থেকে একটি অবৈধ অস্ত্র, লাইসেন্সের শর্ত ভঙ্গ করা আরও দুইটি অস্ত্র, কয়েক রাউন্ড গুলি ও দুই প্যাকেটে চারশ পিস ইয়াবা জব্দ করে র‌্যাব।

এদিন বিকেলে খালেদের ইয়ং মেনস ক্যাসিনোতেও অভিযান চালান র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযানে ১৪২ জন নারী-পুরুষকে আটক করা হয়। এর মধ্যে ৩১ জনকে একবছর ও বাকি ১১১ জনকে ছয় মাস করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ক্যাসিনো থেকে জুয়ার প্রায় সাড়ে ২৪ লাখ টাকা জব্দ করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়া বিপুল পরিমাণ মদ, বিয়ার, সিগারেটসহ নেশাজাতীয় বিভিন্ন দ্রব্য জব্দ করা হয় ওই ক্যাসিনো থেকে।

সারাবাংলা/ইউজে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন