রবিবার ২০ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ৪ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

ভারতকে হারিয়ে সিরিজে সমতায় দক্ষিণ আফ্রিকা

সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৯ | ১০:৩৫ পূর্বাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

ব্যাঙ্গালুরুতে ভারত এবং দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার তৃতীয় এবং শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রোটিয়ারা ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে স্বাগতিক ভারতকে হারিয়ে সিরিজে সমতায় ফিরেছে। এর আগে প্রথম টি-টোয়েন্টি বৃষ্টিতে ভেসে যায়, আর দ্বিতীয় ম্যাচে ৭ উইকেটের জয় পায় ভারত।

বিজ্ঞাপন

ব্যাঙ্গালুরুতে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তবে অধিনায়ক কোহলির সিদ্ধান্তের প্রতি যথাযথ সম্মান দেখাতে পারেননি ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। ইনিংসের মাত্র তৃতীয় ওভারেই ওপেনার রোহিত শর্মাকে হারায় ভারত।

রোহিত শর্মা ফিরে গেলে উইকেটে আসেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তাকে নিয়ে বড় জুটি গড়ার চেষ্টা করেন আর এক ওপেনার শেখর ধাওয়ান। তবে ঝড়ো সূচনা করা ধাওয়ানকে দলীয় ৬৩ রানে ফিরিয়ে দেন তবারাইজ শামসি। মাত্র ২৫ বলে ব্যক্তিগত ৩৯ রানে আউট হন ধাওয়ান, আর এটিই ছিল ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান।

ধাওয়ান আউট হয়ে ফিরে যাওয়ার পর তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে ভারতীয় ব্যাটিং লাইন আপ। দ্বিতীয় উইকেটের পতনের পর মাত্র ৫ রান যোগ করতেই ৯ রান করে ফিরে যান অধিনায়ক কোহলি। অধিনায়ক ফিরে গেলে রিশব পন্ত দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন। শ্রেয়াশ আইয়ারের সাথে ২২ রানের জুটিও গড়েন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

বিজ্ঞাপন

তবে বিহন ফরচুইন এক ওভারে জোড়া আঘাত হানলে সাঁজ ঘরে ফিরতে হয় পন্ত এবং আইয়ারকে। দলীয় ৯২ রানেই পাঁচ ভারতীয় ব্যাটসম্যান ফিরে যায় ড্রেসিং রুমে। দলিয় ১০০ রান পুর্ণ হওয়ার আগেই ছয় উইকেট হারায় ভারত। উইকেটে তখন হার্দিক পান্ডিয়া এবং রবীন্দ্র জাদেজা। এই দুই অল রাউন্ডার মিলে ২৯ রানের জুটি গড়ে ভারতকে সম্মানজনক পুঁজি এনে দেন।

জাদেজা ১৯ রান করে রাবাদার শিকার হলে ভাঙে এই জুটি। আর ইনিংসের একদম শেষ ওভারে পান্ডিয়ার (১৪) উইকেটও তুলে নেন রাবাদা। তবে এর আগে ভারত নির্ধারিত ২০ ওভারে তোলে ১৩৪ রান। রাবাদা তুলে নেন চার ওভারে ৩৯ রান দিয়ে তিনটি উইকেট। আর দু’টি করে উইকেট নেন বিহন ফরচুইন আর বিউরন হেন্ড্রিকস।

জয়ের লক্ষ্য মাত্র ১৩৫, আর তাই তো শুরু থেকেই জয়ের জন্য লড়তে থাকে প্রোটিয়ারা। অধিনায়ক কুইন্টন ডি কক এবং বিউরন হেন্ড্রিকস। এই দুই ওপেনার মিলে গড়েন ৭৬ রানের জুটি। ২৮ রান করে হার্দিক পান্ডিয়ার শিকার হয়ে ফিরে যান হেন্ড্রিকস। তবে ততক্ষণে জয়ের বীজ বপন হয়ে গেছে।

হেন্ড্রিকস আউট হয়ে গেলেও উইকেটের অপর প্রান্তে রয়ে যান অধিনায়ক ডি কক। আর দ্বিতীয় উইকেটে ব্যাট করতে নামা তেমবা বাভুমাকে সাথে নিয়ে ম্যাচ জিতেই ছেড়েছেন মাঠ। বাভুমা ২৭ রানে অপরাজিত থাকেন। আর অধিনায়ক ডি কক করেন ৫টি ছয় এবং ৬টি চারে মাত্র ৫২ বলে অপরাজিত ৭৯ রান। আর ১৯ বল হাতে রেখে দলকে ৯ উইকেটের বড় জয় এনে দিয়েই মাঠ ছাড়েন অধিনায়ক ডি কক।

তবে বল হাতে দুই উইকেট আর ব্যাট হাতে ২৮ রান করার সুবাদে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জিতেছেন অল রাউন্ডার বিউরিন হেনড্রিকস। এই ম্যাচ জিতে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টিতে ১-১ এ সমতায় ফিরেছে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন

Tags: , ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন