বিজ্ঞাপন

সাগরে লঘুচাপের সম্ভাবনা, হতে পারে মাঝারি ধরনের ভারী বর্ষণ

September 28, 2019 | 9:50 am

সারাবাংলা ডেস্ক

ঢাকা: শুরু হয়েছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার পুণ্যলগ্ন মহালয়া। আর উৎসব মানেই নানান ব্যস্ততা, হাজারো কাজ। হাতে সময় মাত্র ছয়দিন।

বিজ্ঞাপন

এর মধ্যে আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, এ সপ্তাহে টানা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর এবং এর আশপাশের এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এর প্রভাবে শনিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বর্ষণ হতে পারে।

আবহাওয়াবিদদের মতে, মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের ওপর কম সক্রিয়। উত্তর বঙ্গোপসাগরে এটি দুর্বল এবং মাঝারি অবস্থায় রয়েছে। পূর্বাভাস অনুযায়ী, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের অনেক জায়গায় এবং ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হওয়া বয়ে যেতে পারে। এর সঙ্গে হতে পারে বজ্রসহ বৃষ্টি। এরই মধ্যে দেশের নদী বন্দরগুলোতে এক নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে দমকা হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই ছোট ও মাঝারি ধরনের নৌযানগুলোকে সতর্কতার সঙ্গে চলাচল করতে বলা হয়েছে। বৃষ্টিপাতের কারণে আজ দিনের তাপমাত্রা কিছুটা কমতে পারে। তবে রাতের তাপমাত্রা প্রায় একই রকম থাকবে।

পুজোয় একই রকম ব্যস্ততা এখন প্রতিবেশী দেশ ভারতেও। তবে দেশটির মহারাষ্ট্র রাজ্যে চলছে বন্যার দুর্ভোগ। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে পুনে শহর। ভারতের সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে, পুনেতে বন্যায় এখন পর্যন্ত ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজ রয়েছে চারজন। এছাড়া ১৫ হাজারের বেশি মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

পুনেতে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও আবহাওয়াবিদরা মনে করছেন, দেশটির উত্তরাঞ্চল এবং পশ্চিমাঞ্চলে এখনো বন্যার ঝুঁকি রয়েছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, টানা ভারী বর্ষণে আহমেদাবাদ, সুরাট, লখনৌ, পাটনা এবং রাঁচিতেও বন্যা দেখা দিতে পারে।

ভারতের আবহাওয়া অধিদফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী তিন-চার দিন দেশটির আবহাওয়া পরিস্থিতির বিশেষ কোনো উন্নতি হবে না। সেইসঙ্গে অন্যান্য রাজ্যগুলোতেও ভারী বর্ষণ হতে পারে বলে জানাচ্ছেন আবহাওয়াবিদরা। ঘূর্ণিঝড় হিক্কার প্রভাবে কয়েকদিন থেকেই গুজরাটে বৃষ্টিপাত হচ্ছিল। সাগর উত্তাল থাকায় জেলেদের উপকূলের কাছাকাছি নিরাপদ অবস্থানে থাকতে বলা হয়।

সারাবাংলা/এটি/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন