রবিবার ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

এসএ গেমসে খেলা হচ্ছে না ‘চ্যাম্পিয়নদের’!

অক্টোবর ১, ২০১৯ | ১০:৪৫ অপরাহ্ণ

ঢাকা: আসন্ন এসএ গেমসে খেলা হচ্ছে না তিন টেবিল টেনিস খেলোয়াড়। ক্যাম্প থেকে আগেই বাদ পড়েছিলেন খেলোয়াড় মানস চৌধুরি ও সালেহা পারভীন সেতু। ফেডারেশনকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হলেও দক্ষিণ এশিয়ার এই জায়ান্ট টুর্নামেন্টে অংশ নেয়া হচ্ছে না দুই সাবেক চ্যাম্পিয়নদের। সঙ্গে নতুন করে সিনিয়র খেলোয়াড় মৌমিতা আলম রুমীকেও বাদ দেয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সিলেকশনের আগের দিনেই তাদের বাদ দিয়েছে ফেডারেশন।

রুমীর অভিযোগ, ‘ক্যাম্প কমান্ডারের আস্থাভাজন বিশেষ একজনকে সুবিধা দেয়ার জন্যই আমাকে অন্যায়ভাবে বাদ দেয়া হয়েছে। এতদিন কিছু বলেনি। আজ সিলেকশন গতকাল রাতে (গত সোমবার) জানানো হয় আমাকে বাদ দেয়ার কথা।’

অভিযোগের প্রেক্ষিতে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম জানান, ‘নিয়মের বাইরে এক ইঞ্চিও আমরা যাচ্ছি না। এসএ গেমসের ক্যাম্প বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের নির্দেশনায় হচ্ছে। তারা যেভাবে বলবে সেভাবেই ক্যাম্প চলবে। রুমী যে জায়গায় চাকরি করে সে স্কুল থেকে গত সোমবার জানানো হয় তাকে কোন ছুটি দিতে পারবে না। ফলে সে দুবেলাও প্রাকটিস করতে পারবে না। বিওএর নিয়ম অনুযায়ী দুইবেলা ক্যাম্প না করলে সে এমনিতেই বাদ হয়ে যাবে। এজন্যই সে বাদ।’

বিজ্ঞাপন

মানসের ব্যাপারে সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সে যখন উকিল নোটিশ পাঠিয়েছে তখন আমরা আইনগতভাবেই সেটির উত্তর দিবো। বিওএ বলেছে ক্যাম্পের বাইরে থেকে কেউ এসে সিলেকশন ফাইট দিতে পারবে না। সে যেহেতু ক্যাম্পে ছিল না সেহেতু সে বহিরাগত হিসেবেই বিবেচিত হবে। সালেহা সেতুও যখন নোটিশ পাঠিয়েছে তখন তার ব্যাপারেও আইনগত প্রক্রিয়ায় উত্তর দেয়া হবে।’

রুমী সেতুকে বাদ দেয়ায় মঙ্গলবার সিলেকশন প্রক্রিয়ায় যেতে চাইছিল না টিটি খেলোয়াড়রা। ফেডারেশন পরে সবার সিগন্যাচার নিয়ে সকলকে রাজী করায়। পরে ঠিকই দুজনকে বাদ দিয়ে বাছাই শুরু করে দেয়। এমনটাই অভিযোগ করলেন কয়েকবারের জাতীয় চ্যাম্পিয়ন মাহাবুব বিল্লাহ। তবে ফেডারেশন থেকে বলা হয়, ‘আমরা অলিম্পিকের সাথে যোগাযোগ করলে তারা সরাসরি নাকচ করে দেয়। যে কারনে ওদের দুজনকে বাদ দিয়েই সিলেকশন করতে হয়।’

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেএইচ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন