বৃহস্পতিবার ১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ২ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

জন্মদিনে চমক দিতে গিয়ে শ্বশুরের গুলিতে জামাইয়ের মৃত্যু

অক্টোবর ৫, ২০১৯ | ১:৪৭ অপরাহ্ণ

বিচিত্রা ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের পেনসাকোলায় একাকী বসবাস করেন রিচার্ড ডেনিস। মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) ছিল তার ৬১তম জন্মদিন। এ উপলক্ষ্যে তার মেয়ের জামাই ক্রিস্টোফার বার্গান, যিনি তার স্ত্রী সন্তানসহ নরওয়েতে বসবাস করেন, রাত সাড়ে ১১টা নাগাদ বিমানযোগে ফ্লোরিডায় এসে পৌছান। তারপর কাউকে কিছু না জানিয়েই সোজা চলে যান পেনসাকোলার শ্বশুরবাড়িতে।

বিজ্ঞাপন

জন্মদিন উপলক্ষ্যে শ্বশুরকে সারপ্রাইজ দেওয়ার কথা মাথায় রেখে, তিনি সদর দরজা দিয়ে না ঢুকে বাড়ির পেছনের দরজায় গিয়ে শব্দ করেন। শব্দ করেই তিনি বাড়ি সংলগ্ন একটি ঝোপে লুকিয়ে পড়েন। পেছনের দরজায় সচারচর কেউ শব্দ করে না। তাই রিচার্ড ডেনিস বন্দুক হাতে দরজা খুলতে যান। দরজা খুলে তিনি পোর্চের লাইট জ্বালিয়ে দেন কিন্তু কাউকে দেখতে পান না।

বিজ্ঞাপন

পরে ওই ঝোপের কাছাকাছি যেতেই শ্বশুরকে চমকে দিতে উদ্ভট শব্দ করে বেরিয়ে আসেন জামাই ক্রিস্টোফার। আর কিছু বুঝে ওঠার আগেই নিজের বন্দুক থেকে গুলি চালিয়ে দেন ডেনিস। সেই গুলি গিয়ে লাগে ক্রিস্টোফারের বুকে। সঙ্গেসঙ্গেই তার মৃত্যু হয়।

পরে শান্তা রোজা কাউন্টির পুলিশ অনুসন্ধান করে দেখেছে, ক্রিস্টোফারের আগেও কয়েকজন একইভাবে রিচার্ড ডেনিসের বাড়ির পেছনের দরজায় শব্দ করে পালিয়ে গিয়েছিল। তাই নিরাপত্তার স্বার্থে নিজের বন্দুক নিয়ে বের হন রিচার্ড। এবং সন্দেহজনক শব্দ শুনে তিনি আত্মরক্ষার্থে গুলি চালান।

তাই রিচার্ডের বিরুদ্ধে কোনো খুনের অভিযোগ আনা যাচ্ছে না। আর পুরো পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। এমন করুণ মৃত্যু মেনে নিতে পারছে না কেউই। তবে ক্রিস্টোফারের বন্ধুরা সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে, ব্যক্তি পর্যায়ে বন্দুক রাখার রাষ্ট্রীয় নীতির সমালোচনায় মুখর হয়ে উঠেছেন। তারা মনে করছেন, এই অকাল মৃত্যুতে রাষ্ট্রের ভূমিকা অস্বীকার করা যায় না।

সারাবাংলা/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন