রবিবার ২০ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ৪ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

নেশায় পেশা নষ্ট যাদের…

অক্টোবর ৬, ২০১৯ | ৩:২১ অপরাহ্ণ

এন্টারটেইনমেন্ট ডেস্ক

ক্যারিয়ারের একটা সময় ছিলেন তুঙ্গে। হঠাৎ নেশার ঘোরে পড়ে ক্যারিয়ার শেষ।
বলিউডের সেরকম ক’জন তারকার খবর থাকছে এখানে- নেশা যাদের পেশা নষ্ট করেছে।

বিজ্ঞাপন

সঞ্জয় দত্ত: বলিউডের যেসব বড় তারকাকে নেশার কারণে চরম মূল্য দিতে হয়েছে সঞ্জয় দত্ত তাদের অন্যতম। ড্রাগের নেশা আর অস্ত্র মামলায় ফেঁসে সাজানো ক্যারিয়ার তছনছ হয়ে গেছে তার। শুধু ক্যারিয়ারই না, প্রেমিকা টিনা মুনিমও তাকে ছেড়ে চলে যান এই নেশার কারণেই।

বিজ্ঞাপন

রাজেশ খান্না: বলিউডে দীর্ঘ দিন রাজত্ব করেছেন তিনি। রাজেশ খান্নাকে বলা হয় বলিউডের প্রথম সুপারস্টার। রাজেশ খান্না অভিনীত ১৫ টি ছবি পরপর সুপার হিট হয়েছিল। যা বলিউডে এখনো রেকর্ড হিসেবে টিকে আছে। কিন্তু এই স্টারডম সামলাতে পারেননি রাজেশ খান্না। একটা সময় নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। সারাদিন অ্যালকোহল হয়ে ওঠে তার সঙ্গী। যার প্রভাব পড়ে ক্যারিয়ারে।

ধর্মেন্দ্র: ১৫ বছর ধরে অ্যালকোহলের নেশায় বুঁদ হয়েছিলেন বলিউডের প্রথমদিককার সুপারস্টার ধর্মেন্দ্র। তার ছবি ‘ইমলা পাগলা দিওয়ানা’ মুক্তি পাওয়ার সময় তিনি নিজ মুখে স্বীকারও করেন যে, অ্যালকোহলের জন্য তার ক্যারিয়ার শেষ হয়ে গিয়েছিল।

পরভীন ববি: বলিউডের সেরা নায়িকাদের নাম নিলে সেখানে পারভীন বরি নাম আসবেই। একসময়ের ভীষণ গর্জিয়াস এই নায়িকার জীবন কিন্তু খুবই হতাশার। পরিচালক মহেশ ভাটের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর তিনি মাদকে আসক্ত হয়ে পড়েন। লাগামহীন মাদক শুধু তার কেরিয়ারই শেষ করে দেয়নি, জীবনটাও শেষ করে দিয়েছিল।

মীনা কুমারী: তাকে বলা হয় বলিউডের ট্রাজেডি কুইন। এই নামেই তিনি জনপ্রিয় ছিলেন। সাহেব বিবি আউর গোলাম ছবিতে অ্যালকোহলিক স্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন তিনি। ছবিতে তার অভিনয় ভীষণ প্রশংসিত হয়েছিল। পরে বাস্তবেও তিনি মাদকের নেশায় ডুবে যান। মাত্রাতিরিক্ত নেশার কারণে এসময় লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত হন এই নায়িকা। এবং এই রোগেই মাত্র ৪০ বছর বয়সে মৃত্যু হয় তার।

হানি সিং: ভারতের র‌্যাপ সঙ্গীতে হানি সিং উল্লেখযোগ্য নাম। এই র‌্যাপার-গায়কও একসময় অ্যালকোহল এবং ড্রাগের নেশায় বুঁদ হয়ে গিয়েছিলেন। নেশা তাকে এতটাই কাবু করে ফেলেছিল যে, চিকিৎসার জন্য তাকে রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টারেও থাকতে হয়েছে দীর্ঘদিন।

মনীষা কৈরালা: নেপালি কন্যা মনীষা একটা সময়ে বলিউডে শীর্ষস্থান দখল করে নেন। সেসময়ই অর্থাৎ যে সময়টায় মনীষা তার ক্যারিয়ারের চূড়ায় তখন অ্যালকোহলে নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। মনে করা হয়, স্বামী সম্রাট দাহালের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতিই নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ার মূল কারণ। একটা সময় তাদের দুজনের বিচ্ছেদ হয়ে যায়। বিচ্ছেদের পর মনীষার ডিম্বাশয়ে ক্যানসার ধরা পড়ে। বর্তমানে এই মারণরোগের সঙ্গে যুদ্ধ করে চলেছেন মনীষা। কিন্তু ক্যারিয়ারে আর সুদিন ফেরাতে পারেননি।

ফারদিন খান: ফারদিন খানের কথা হয়তো অনেকে ভুলেই গেছে। ফিরোজ খানের ছেলে ফারদিনের বলিউড অভিষেক কিন্তু দারুণই হয়েছিল। কিন্তু নেশার কারণেই শেষ হয়ে যায় সব। কোকেন কিনতে গিয়ে গ্রেফতারও হয়েছিলেন এই নায়ক।

দিব্যা ভারতী: মাত্র ১৯ বছর বয়স থেকেই অ্যালকোহলের নেশা চেপে ধরে তাকে। এই নেশা শুধু তার ক্যারিয়ারই ধ্বংস করে দেয়নি, সাত তলা থেকে পড়ে গিয়ে মারাও যান তিনি। ময়নাতদন্তে জানা যায়, ভবন থেকে পড়ার সময় নেশাগ্রস্থ ছিলেন দিব্যা।

সারাবাংলা/পিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন