রবিবার ২০ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ৪ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

দেখা পাননি আইনজীবীরা, সম্রাটকে দেশের বাইরে নেওয়ার দাবি

অক্টোবর ৮, ২০১৯ | ১২:৩৫ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে উন্নত চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে নিয়ে যাওয়ার দাবি জানিয়েছেন তার আইনজীবীরা।

বিজ্ঞাপন

তারা বলছেন, সম্রাটের শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন। তার হৃদযন্ত্রে পেসমেকার বসানো প্রয়োজন। বরাবরই দেশের বাইরে চিকিৎসা নেওয়া সম্রাটকে তাই তারা চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়ার দাবি জানাচ্ছেন।

মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে (এনআইসিভিডি) চিকিৎসাধীন সম্রাটকে দেখতে এসে তারা সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

আরও পড়ুন- সম্রাট মেডিকেল টিমের পর্যবেক্ষণে, অবস্থা স্থিতিশীল

বিজ্ঞাপন

সম্রাটের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলাগুলোর প্রধান আইনজীবী হিসেবে আদালতে লড়বেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের আইন সম্পাদক ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আফরোজা শাহনাজ পারভীন হীরা। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আজ আমরা আমাদের ক্লায়েন্ট ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটকে দেখতে এসেছিলাম। কিন্তু আমাদের দেখতে দেওয়া হয়নি।

হীরা বলেন, তার (সম্রাট) শারীরিক অবস্থা অনেক খারাপ। গত ১০ সেপ্টেম্বর তার হার্টে পেসমেকার লাগানোর জন্য দেশের বাইরে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে ১৪ সেপ্টেম্বর একটি অনুষ্ঠান থাকায় তিনি যেতে পারেননি। পরবর্তী সময়ের দেশের পরিস্থিতি আপনারা সবাই জানেন। তাকে তো গ্রেফতারই করা হলো।

আরও পড়ুন- ‘বুকে ব্যথা’, হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে ভর্তি সম্রাট

সম্রাটের এই আইনজীবী আরও বলেন, গতকাল (সোমবার, ৭ অক্টোবর) আমরা তার সঙ্গে দেখা করতে জেলগেটে গিয়েছিলাম। সেখানে অনেক প্রসিডিউর মেইনটেইন করে অনেক কষ্টের পর তার সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হয়েছিল। আমরা দেখতে পেয়েছি, তার শারীরিক কন্ডিশন ভীষণ খারাপ ছিল। দূর থেকেই উনি বলছিলেন, তার বুকে ব্যথা। তিনি খুবই অসুস্থ।

আফরোজা শাহনাজ পারভীন হীরা বলেন, তিনি (সম্রাট) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে দাবি করেছেন, তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য যেন দেশের বাইরে পাঠানো হয়। তিনি সবসময় দেশের বাইরে চিকিৎসা নিয়েছেন। আমরাও দাবি করছি, তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে নেওয়া হোক।

পুলিশ জানিয়েছে, আদালতে ইসমাইল হোসেন চৌধুরীর রিমান্ড আবেদন করবে তারা। এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে সম্রাটের আইনজীবী হীরা বলেন, আগে তো তার সুস্থতা। রাষ্ট্রের কাছে আমাদের দাবি থাকবে, আগে উনি সুস্থ হয়ে ফিরে আসুক। তারপর না হয় রিমান্ডের আবেদন করা যাবে। এমনকি তাকে যদি জেলগেটেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়, সেখানেও আইনজীবীর উপস্থিতিতে এবং সুস্বাস্থ্যের দিকে নজর রেখেই যেন তা করা হয়— আমরা এটুকু অনুরোধ রাখব সবার প্রতি।

আরও পড়ুন- সম্রাট ঢামেকে, হৃদরোগে নেওয়ার পরামর্শ

এদিকে, জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক আফজালুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, সম্রাট তিন সদস্যের মেডিকেল টিমের অধীনে পর্যবেক্ষণে রয়েছেন। তার সব পরীক্ষা-নিরীক্ষার রিপোর্ট হাতে পাওয়া গেলে আমরা বলতে পারব, তার শারীরিক অবস্থা কোন দিকে যাবে। তবে তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল।

সারাবাংলা/এসএইচ/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন