বুধবার ১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ১ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

রবের বাসায় বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট বৈঠক

অক্টোবর ৯, ২০১৯ | ২:৪৩ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বিএনপির সঙ্গে দূরত্ব কমাতে আ স ম আব্দুর রবের বাসায় বৈঠক করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। সেখানে বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির দুই সদস্যসহ তিন নেতা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (৯ অক্টোবর) জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সভাপতি রবের বাসায় সকাল ১১ টায় এ বৈঠক শুরু হয়। আর বৈঠকটি শেষ হয় দুপুর পৌনে একটায়।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বিএনপিকে নিয়ে নির্বাচনি জোট ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট’ গঠন করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অন্যতম সহচর, সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা, সংবিধান প্রণেতা, গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন।

কিন্তু নির্বাচনের পর নানা কারণে এ জোটের ব্যাপারে আগ্রহ হারিয়ে ফেলে বিএনপি। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির দুই সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ নির্বাচনের পর ফ্রন্টের কোনো মিটিংয়ে আসেননি। স্টিয়ারিং কমিটির আরেক সদস্য মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও ইদানিং আর মিটিংয়ে আসেন না। সর্বশেষ গত ২ অক্টোবর ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে অনুষ্ঠিত স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে বিএনপির প্রতিনিধি হিসেবে যান দলের যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল।

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, এমন পরিস্থিতে বিএনপির সঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দূরত্ব কমাতে বুধবার এ বৈঠক ডাকা হয়। আ স ম আব্দুর রবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে উপস্থিত হন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ। সেখানে জোটের আরেক শরিক নাগরিক ঐক্যের আবহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নাও উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, বিএনপির সাথে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দূরত্ব কমিয়ে সুসর্ম্পক বজায় রেখে আগামীতে কাজ করার অঙ্গীকার করেন জোট নেতারা।

বৈঠক সম্পর্কে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান সারাবাংলাকে বলেন, ‘অনেক দিন এক সঙ্গে বসা হয় না। তাই একটু একসঙ্গে বসে চা খাওয়া হলো। এটা কোনো ফরমাল মিটিং ছিল না।’

বিএনপির সঙ্গে দূরত্ব কমাতে এই বৈঠক ডাকা হয়েছে কী না?— এমন প্রশ্নের জবাবে নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘দূরত্ব আর কোথায়? অনেক দিন ধরেই তো ফরমাল মিটিং হয় না। আর ছোট-খাটো মিটিংগুলোতে তো আমাদের প্রতিনিধি থাকে। আজ একটু বসলাম, কথা হলো— এই আর কী।’

কর্মসূচির ব্যাপারে কোনো আলোচনা হয়েছে কী না?— জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা তো ফরমাল মিটিং না। সে কারণে কর্মসূচির ব্যাপারে কোনো আলোচনা হয়নি।’

সারাবাংলা/এজেড/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন