বুধবার ১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ১ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

আইসিসির কাছে কোহলির নতুন প্রস্তাব

অক্টোবর ৯, ২০১৯ | ৮:৪২ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

গত আগস্ট থেকে আইসিসির অধীনে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে বেশির ভাগ বড় দল টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচ খেলেও ফেলেছে। শুধু বাংলাদেশ আর পাকিস্তানের খেলা হয়নি। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের বড় বিষয়টি হলো পয়েন্টের হিসাব। যা আগে কখনই ছিল না। পয়েন্টের হিসাব-নিকাশ থাকায় প্রত্যেক দলেরই লক্ষ্য থাকছে জয়। চ্যাম্পিয়নশিপের বেশ কয়েকটি ম্যাচ হয়ে গেলেও পয়েন্ট বন্টন নিয়ে নতুন প্রস্তাব করেছেন ভারতের দলপতি বিরাট কোহলি।

বিজ্ঞাপন

আইসিসির অধীনে হোম ম্যাচ এবং অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলবে টেস্ট খেলুড়ে ৯টি দেশ। হোম ম্যাচের পয়েন্ট নিয়ে কোনো ঝামেলা না থাকলেও অ্যাওয়ে টেস্ট জয়ে দ্বিগুণ পয়েন্ট চান ভারতীয় অধিনায়ক কোহলি।

এই মুহূর্তে পয়েন্ট ভাগাভাগির যে নিয়ম রয়েছে সেখানে দুই ম্যাচের সিরিজ জিতলে একটি দল ১২০ পয়েন্ট পায়। তিন ম্যাচের সিরিজের এক ম্যাচ জিতলে যোগ হয় ৪০ পয়েন্ট। সেই হিসেবে আপাতত পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে কোহলির ভারত। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই ম্যাচের সিরিজ জয় আর ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ম্যাচে জিতেছে টিম ইন্ডিয়া। তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ পুনেতে কাল থেকে শুরু হচ্ছে। কোহলিদের পয়েন্ট এখন ১৬০। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জেতায় পেয়েছে ১২০ পয়েন্ট, আর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বিশাখাপত্তনম টেস্ট জিতে পেয়েছে ৪০ পয়েন্ট।

দুই ও তিনে থাকা নিউজিল্যান্ড-শ্রীলঙ্কার পয়েন্ট ৬০। অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের পাশে জমেছে ৫৬ পয়েন্ট (৫ ম্যাচের সিরিজে জয় পাওয়া ম্যাচ প্রতি পয়েন্ট ২৪)। দক্ষিণ আফ্রিকা-ওয়েস্ট ইন্ডিজ খেললেও তাদের জয় নেই, পয়েন্টও নেই। আগামী নভেম্বরে ভারতের বিপক্ষে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলতে উড়াল দেবে বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন

নতুন প্রস্তাবে কোহলি জানালেন, ‘দেখুন টেস্টের গুরুত্ব এখন অনেক বেশি। আগের মতো তিন ম্য়াচের সিরিজে সবাই ড্রয়ের কথা ভাবত। এখন দলগুলো জয়ের জন্য় খেলতে নামছে। থাকছে অতিরিক্ত পয়েন্ট যোগ করার সুযোগ। আমি বলব এটা টেস্ট ক্রিকেটের জন্য় দারুণ ব্যাপার। আমাকে যদি পয়েন্ট টেবিল নিয়ে কথা বলতে বলেন তাহলে বলব, আমি অ্যাওয়ে টেস্ট জেতার ক্ষেত্রে দু’পয়েন্ট দেওয়ার প্রস্তাব দেব। অবশ্য়ই চাইব পরের সংস্করণে এই বিষয়টা ভেবে দেখা হোক। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম সংস্করণের পর অবশ্যই আমি এটা দেখতে চাইব।’

পয়েন্টের হিসাব-নিকাশ রাখার ব্যবস্থা থাকায় ক্রিকেটারদের এখন আরও পেশাদার হওয়া দরকার বলেও মনে করেন ভারতীয় অধিনায়ক কোহলি। তিনি যোগ করেন, ‘ম্যাচগুলো এখন আরও বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হচ্ছে। প্রতি সেশনেই পেশাদার থাকতে হবে ক্রিকেটারদের। টেস্ট ক্রিকেটের মান আরও উঁচুতে তুলতে এটা ভালো উদ্যোগ।’

নভেম্বরে ভারতের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের মধ্য দিয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ যুদ্ধে নামছে বাংলাদেশ। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের উদ্বোধনী মৌসুম চলবে টানা দুই বছর। ৯টি টেস্ট খেলুড়ে দেশ নিয়ে অনুষ্ঠেয় এই চ্যাম্পিয়নশিপে প্রত্যেকটি দেশকে ছ'টি করে সিরিজ খেলতে হবে লিগ পর্বে। দুই বছর শেষে তালিকার শীর্ষ দুটি দল মুখোমুখি হবে ফাইনালে। জয়ী দল টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতবে।

সারাবাংলা/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন