বুধবার ১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ১ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

স্বাগতিক জার্মানিকে রুখে দিয়েছে আর্জেন্টিনা

অক্টোবর ১০, ২০১৯ | ৩:২৭ পূর্বাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে মাঠে নেমেছিল সাবেক দুই বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা এবং জার্মানি। জার্মানির ডর্টমুন্ডের সিগনাল ইদুনা পার্কে সাবেক দুই বিশ্ব চ্যাম্পিয়নের মধ্যে প্রীতি ম্যাচটি ২-২ ড্র হয়েছে। যদিও দুই দলেই ছিলেন না তারকা ফুটবলাররা। প্রথমার্ধে ২-০ গোলের লিড নিলেও স্বাগতিক জার্মানিকে দ্বিতীয়ার্ধে রুখে দিয়েছে আগুয়েরো, ডি মারিয়া, মেসিহীন আর্জেন্টিনা।

বিজ্ঞাপন

এই দুই দেশের ম্যাচ মানেই ফুটবলপ্রেমীদের চোখের সামনে ভেসে ওঠে ২০১৪ সালের বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনাল। আরেকটু পেছনে ফিরে তাকালে জার্মানির বিপক্ষে আর্জেন্টিনার ম্যাচ মানেই ১৯৮৬, ১৯৯০ সালের বিশ্বকাপ। জার্মানির মুখোমুখি হওয়া মানেই যেন আর্জেন্টিনার বিদায়। ব্রাজিল বিশ্বকাপের পর আর এই ম্যাচের আগে কেবল একবারই দুই দল মুখোমুখি হয়েছিল। ২০১৪ সালের ৩ সেপ্টেম্বর জার্মানির মাটিতে খেলতে গিয়ে মেসিকে ছাড়াই ৪-২ গোলে জিতেছিল দুবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা।

এবার ৫ বছর পর প্রীতি ম্যাচে অংশ নেয় আর্জেন্টিনা-জার্মানি। বুধবার (৯ অক্টোবর) বাংলাদেশ সময় রাত ১২টা ৪৫ মিনিটে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের মাঠ সিগনাল ইদুলা পার্কে আর্জেন্টিনাকে আতিথ্য জানায় জার্মানি। ম্যাচের ১৫ মিনিটের মাথায় গোল করে জার্মানদের লিড পাইয়ে দেন মিডফিল্ডার সার্জি জিনাব্রি। আন্তর্জাতিক ফুটবলে জিনাব্রির এটি দশম গোল। ২২তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন কাই হাভার্টস। জাতীয় দলের হয়ে তরুণ এই মিডফিল্ডারের এটি অভিষেক গোল।

২-০ গোলের লিড নিয়ে বিরতিতে যায় জোয়াকিম লোর শিষ্যরা। ৬৬তম মিনিটে ব্যবধান কমায়ে লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা। মার্কোস আকুনার ক্রস থেকে হেডে বল জালে পাঠান আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড লুকাস আলারিও। ৮৫তম মিনিটে সমতায় ফেরে আর্জেন্টিনা। এবার আলারিওর বাড়ানো বল থেকে গোল করেন অভিষিক্ত লুকাস ওকামপোস। ২-২ গোলের সমতায় শেষ হয় ব্লকবাস্টার ম্যাচটি।

বিজ্ঞাপন

দুই দল মুখোমুখি হলো মোট ২৩ বার। এর মধ্যে আর্জেন্টিনা জিতেছে ১০ বার। জার্মানি জিতেছে ৮ বার। আর ৫টি ম্যাচ ড্র হলো। সবমিলিয়ে মুখোমুখি দেখায় জার্মানির সবচেয়ে বড় জয় ৪-০ গোলে। ২০১০ সালের বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনাকে এই ব্যবধানে হারিয়েছিল জার্মানরা। অপরদিকে আর্জেন্টিনার সবচেয়ে বড় জয় ৪-২ গোলের ব্যবধানে। সেটা ২০১৪ বিশ্বকাপের পর, আগের প্রীতি ম্যাচে।

আগের ম্যাচে আর্জেন্টিনার হয়ে গোল করেন সার্জিও আগুয়েরো, এরিক লামেলা, ফেদেরিকো ফার্নান্দেজ এবং ডি মারিয়া। আর জার্মানদের হয়ে গোল করেন আন্দ্রে শ্যুরল এবং মারিও গোতজে। আজকের ম্যাচে নিষেধাজ্ঞা থাকায় খেলতে পারেননি আর্জেন্টিনার প্রাণভোমরা লিওনেল মেসি। স্কোয়াডে ছিলেন না সার্জিও আগুয়েরো, ডি মারিয়ারা, খেলেননি মাউরো ইকার্দি।

এদিকে, ইনজুরি থাবায় জার্মান দলেও ছিলেন না একাধিক তারকা ফুটবলার। টনি ক্রুস, লিরয় সানে, লিয়ন গোরেজকা ছিলেন না জার্মান স্কোয়াডে। ছিটকে গেছেন ডিফেন্ডার জোনাথান টাহ, মিডফিল্ডার ইলকাই গুনদোগান, ডিফেন্ডার আন্টোনিও রুডিগার, মাথিয়াস গিন্টার ও ফরোয়ার্ড টিমো ভের্নার। আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ম্যাচে মার্কো রয়েস, বার্নড লিনো আর ম্যানুয়েল ন্যুয়ের মাঠে নামেননি।

এই ম্যাচের পর ইকুয়েডরের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ খেলতে স্পেনে উড়াল দেবে আর্জেন্টিনা। আর ইউরো বাছাইপর্বে খেলতে এস্তোনিয়ায় যাবে জার্মানি।

সারাবাংলা/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন