রবিবার ২০ অক্টোবর, ২০১৯ ইং , ৪ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০ সফর, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

লড়াই করে কাতারের কাছে হারলো বাংলাদেশ

অক্টোবর ১০, ২০১৯ | ৮:৫৫ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

বিশ্বকাপ বাছাই ও এশিয়ান কাপের ম্যাচে স্বাগতিক বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ হিসেবে মাঠে নামে শক্তিশালী কাতার। ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজক দেশটির বিপক্ষে প্রথমার্ধে ১-০ গোলে পিছিয়ে থাকে বাংলাদেশ। দ্বিতীয়ার্ধে বেশ কয়েকটি সুযোগ পেলেও বাংলাদেশ গোল আদায় করে নিতে পারেনি, সমতায়ও ফেরা হয়নি। দ্বিতীয়ার্ধের অতিরিক্ত সময়ে আরও এক গোল হজম করে স্বাগতিকরা। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ২-০ গোলের হার নিয়ে মাঠ ছাড়ে স্বাগতিক বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন

ফিফা র‌্যাংকিংয়ে ৬২ নম্বরে থাকা কাতার এবার বিশ্বকাপে সরাসরি অংশ নেবে। বাংলাদেশ ফিফা র‌্যাংকিংয়ে আছে ১৮৭ নম্বরে। ‘ই’ গ্রুপে ঘরের মাঠে এই ম্যাচ খেলা বাংলাদেশ আগামী ১৫ অক্টোবর ভারতের বিপক্ষে অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলতে যাবে। এর আগে বাংলাদেশ আফগানিস্তানের বিপক্ষে অ্যাওয়ে ম্যাচে হেরেছিল ১-০ গোলের ব্যবধানে। আর কাতার আফগানদের ৬-০ গোলে হারানোর পর ভারতের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করে।

কাতারের বিপক্ষে নামানো হয় চার ডিফেন্ডারকে। মাঝে তিনজনকে নিয়ে সামনে আক্রমণভাগ সাজান বাংলাদেশের কোচ জেমি ডে। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাতটায় মাঠে নামে দুই দল। গত ১০ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তানের বিপক্ষে যে স্কোয়াড ছিল সেখান থেকে শুধু দুটি পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বিশ্বনাথের বদলে ডিফেন্সে আসেন রায়হান হাসান। আর রবিউলের বদলে একাদশে আসেন ইব্রাহিম।

ফরমেশনে পরিবর্তন আনেন বাংলাদেশের কোচ জেমি ডে। ৪-১-৪-১ নতুন ফরমেশনে কাতারে বিপক্ষে মাঠে নামিয়েছেন শিষ্যদের। ডিফেন্সে চার, মাঝমাঠে তিনজন ও উইঙ্গে দুইজনকে রেখে আর স্ট্রাইকারের ভূমিকায় জীবনকে রেখে সাজানো হয় ফরমেশন।

বিজ্ঞাপন

ম্যাচের শুরুতেই বাংলাদেশকে চেপে ধরে কাতার। বাংলাদেশ ডিফেন্সিভ থাকলেও কাউন্টার অ্যাটাকে বেশ কয়েকবার কাতারের ডি-বক্সে গিয়েছিল। ম্যাচের ২৮ মিনিটের মাথায় ফরোয়ার্ড ইউসুফের হেডে বাংলাদেশের জালে বল জড়ালে কাতার এগিয়ে যায় ১-০ গোলে। এর চার মিনিট পর কাতারের অধিনায়ক আল হাসানের জোরালো শট রুখে দেয় স্বাগতিক ডিফেন্ডাররা। কর্নারের বিনিময়ে এ যাত্রায় কোনো স্কোর হয়নি কাতারের।

৪২ মিনিটের মাথায় বাংলাদেশ ছোটো একটি আক্রমণ সাজালেও ফিনিশিংয়ের অভাবে কাতালের জালে শট নেওয়া হয়নি। ১-০ গোলে পিছিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বাংলাদেশ।

বিরতির পর ম্যাচের ৫০ মিনিটে কাতারের একটি আক্রমণ ক্লিয়ার করে বাংলাদেশের ডিফেন্ডাররা। সময় গড়ানোর পাশাপাশি বাংলাদেশও নিজেদের গুছিয়ে আনে। ম্যাচের ৭০ মিনিটের মাথায় জীবনকে তুলে নিয়ে নামানো হয় মাহবুবুর রহমানকে। এরপরই অন্য এক বাংলাদেশকে খুঁজে পাওয়া যায়। একের পর এক আক্রমণে কাতারকে কিছুটা ভরকেও দেয় জেমি ডের শিষ্যরা। ম্যাচের ৭২ মিনিটে ভুটানের বিপক্ষে জোড়া গোল করা ইয়াসিনকে বল বাড়িয়ে দেওয়া হয়। চেষ্টা করেও কাতারের ডি-বক্সে আনমার্ক থাকা ইয়াসিন বলটি রিসিভ করতে পারেননি। নিশ্চিত গোল হাতছাড়া হয় তার।

৭৫ মিনিটের মাথায় বিপলু আহমেদের শট কাতার গোলরক্ষক রুখে দেন। পরের মিনিটে জটলা থেকে বাংলাদেশের শট আটকে যায় কাতারের ডিফেন্সে। ৭৭ মিনিটের মাথায় আবারো ইব্রাহিমের শট, তবে এলোমেলো শটে এ যাত্রায় গোল পায়নি বাংলাদেশ। পরের মিনিটে বিপলুও জোরালো শট নিতে না পারায় কাতার গোলরক্ষকের গ্লাভসে বল জমে। করিম বাউদিয়াব ম্যাচের যোগ করা অতিরিক্ত সময়ে গোল করলে ২-০ গোলে এগিয়ে যায় অতিথিরা।

ম্যাচের বাকি সময়ে আর কোনো দল গোলের দেখা পায়নি। ফলে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে কাতার জয় তুলে নেয় ২-০ গোলের ব্যবধানে।

বাংলাদেশের শুরুর একাদশ:
আশরাফুল ইসলাম রানা, রহমত মিয়া, ইয়াসিন খান, রিয়াদুল হাসান, রায়হান হাসান, জামাল ভূঁইয়া, সোহেল রানা, বিপলু আহমেদ, নাবিব নেওয়াজ জীবন, মোহম্মদ ইব্রাহিম, সাদ উদ্দিন।

সারাবাংলা/এমআরপি

বিজ্ঞাপন

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন