রবিবার ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১০ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

মিরপুরে মাহমুদউল্লাহ-তামিমদের ম্যাচ ড্র

অক্টোবর ১৩, ২০১৯ | ৫:০৫ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জাতীয় ক্রিকেট লিগের চলমান আসরের প্রথম ম্যাচটিতে ড্র করেছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ঢাকা মেট্রো ও তামিম ইকবালের চট্টগ্রাম বিভাগ। প্রথম ইনিংসে ২৯০ রানে অলআউট হওয়া চট্টগ্রাম দ্বিতীয় ইনিংসে ৫ উইকেটের বিনিময়ে সংগ্রহ করেছে ২২৭ রান। এদিকে প্রথম ইনিংসে ঢাকার সংগ্রহ ছিল ৩৫৪ রান।

বিজ্ঞাপন

তৃতীয় দিনের দলীয় ৩৪৯ রান নিয়ে রোববার (১৩ অক্টোবর) চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করেছিলেন ঢাকার দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান শহিদুল ইসলাম (৮২) ও জাবিদ হোসেন (৮১)। কিন্তু দুজনের কেউই নিজ নিজ ইনিংসকে খুব বেশি দূর এগিয়ে নিতে পারেননি। আগের দিনের সঙ্গে মাত্র ১ রান যোগ করে মেহেদি হাসানের বলে নিজের ইনিংসের সমাপ্তি টেনেছেন শহিদুল। আর জাবিদ ফিরেছেন ৪ রান যোগ করে, নোমান চৌধুরীর বলে বোল্ড হয়ে। মূলত তাদের আউটের মধ্য দিয়েই শেষ হয়ে যায় ঢাকার ইনিংস। তাদের ৫ রানই শেষ দিনের সম্বল হিসেবে যোগ হয় ঢাকার খেরখাতায়। কেননা শেষ ব্যাটসম্যান মেহরাব হোসেন যোশিকে রানের খাতা খোলার সুযোগই দেননি অভিষিক্ত মেহেদি হাসান।

চট্টগ্রামের হয়ে বল হাতে ৩টি উইকেট শিকার করেছেন লেগ স্পিনার মিনহাজুল আবেদীন আফ্রিদি। নোমান চৌধুরী, মেহেদি হাসান ২টি করে আর রনি চৌধুরী ও মাসুম খান নিয়েছেন ১টি করে উইকেট।

এদিকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে মাসুম খানের অপরাজিত ৬১, পিনাক ঘোষের ৫৭, তাসামুল হকের ৫৩ ও তামিম ইকবালের ৪৬ রানে ভর করে ৫ উইকেটে ২২৭ রান সংগ্রহ করে চট্টগ্রাম বিভাগ।

বিজ্ঞাপন

প্রথম ইনিংসে ১১ রান করা মুমিনুলকে দ্বিতীয় ইনিংসে ০ রানে ফিরিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। পরের দুই উইকেটের শিকারিও তিনি। শুরুটা করেছিলেন দিনের ৩৬তম ওভারে। ওই ওভারের দ্বিতীয় বলে পিনাক ঘোষকে এলবি’র ফাঁদে ফেলেন ঢাকার এই অফস্পিনার।পরের বলেই মুমিনুল তার শিকার বনে গেলে হ্যাটট্রিকের সামনে দাঁড়ান মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু তাসামুল হক তার হ্যাটট্রিক বলটি দেখে শুনে খেললে বঞ্চিত হন।

তবে হ্যাটট্রিক বঞ্চিত হলেও আগের ইনিংসের শিকার তামিম ইকবালকে এই ইনিংসেও নিজের শিকারে পরিণত করতে ভুল করেননি মাহমুদউল্লাহ। ৩৮তম ওভারের শেষ বলে তাকে এলবির ফাঁদে ফেলেন। উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মাহিদুল ইসলাম অঙ্কনকে রানের খাতো খোলার সুযোগ দেননি আরাফাত সানি।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এমআরএফ/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন