বিজ্ঞাপন

‘মাসের শেষেই ভারত থেকে পেঁয়াজ আসতে পারে’

October 14, 2019 | 4:50 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: অক্টোবরের শেষ দিকে ভারত ফের বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি শুরু করবে বলে আভাস দিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেন, চলতি মাসের শেষের দিকে ভারত থেকে হয়তো পেঁয়াজ আসা শুরু হবে। তখন এর দাম কমে যাবে। তবে যারা পেঁয়াজের সংকট তৈরি করেছেন বা করার চেষ্টা করেছেন, তাদের তালিকা তৈরি করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (১৪ অক্টোবর) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ‘পেঁয়াজ ইস্যুতে এখন শক্ত অবস্থানে যাওয়ার সময় এসেছে। কারণ, ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই এর দাম বাড়ার কথা নয়। তাদের ঘোষণার পাঁচ/ছয় দিন পর বাজারে পেঁয়াজের ঘাটতি হওয়ার কথা এবং দাম বাড়ার কথা। কিন্তু দেখা গেছে ভারতের রফতানি বন্ধের ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে।’

বিজ্ঞাপন

এক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদের কারসাজি রয়েছে বলে মনে করেন বাণিজ্যমন্ত্রী। ব্যবসায়ীরা ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ হওয়া বিষয়টিকে পুঁজি করেছে উল্লেখ করে টিপু মুনশি বলেন, ‘আমদানি বন্ধ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের দেশে যা স্টক ছিল সেটা কাজে লাগালে পেঁয়াজের দাম এত বাড়তো না।’

বাণিজ্যমন্ত্রী জানান, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সারাদেশের পেঁয়াজের বাজার এবং স্টক কতটুকু কোথায় কিভাবে আছে সেটা দেখার জন্য দশটি কমিটি করে দেওয়া হয়েছে। কাজের অগ্রগতি জানতে কমিটিগুলোর প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করার কথা।

পেঁয়াজ নিয়ে এরই মধ্যে ভারতের বাণিজ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলা হয়েছে বলে জানান তিনি। ভারত আশ্বস্ত করেছে অক্টোবরের শেষ দিকে তারা ফের রফতনি শুরু করবে। তবে ভারতের বাজারেও কেজিপ্রতি পেঁয়াজ ৬০ থেকে ৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

মিয়ানমারের সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের মনস্তাত্ত্বিক দূরত্বের পরও তাদের কাছ থেকে পেঁয়াজ নেওয়ায় দেশটি আমাদের দুর্বল মনে করবে কিনা?- এমন প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘না এটা ঠিক নয়। রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের সঙ্গে বাংলাদেশের সমস্যা থাকলেও আগে থেকেই তাদের সঙ্গে আমাদের বাণিজ্যিক সম্পর্ক ভালো। রোহিঙ্গা ইস্যুতে তো আর সবকিছু থেমে থাকতে পারে না।

সারাবাংলা/জেআর/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন