বিজ্ঞাপন

চাঁদাবাজদের সামনে ভয়ংকর দিন, হুঁশিয়ারি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

October 17, 2019 | 5:56 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

রাঙ্গামাটি: যারা চাঁদাবাজি করছে, খুন করছে, অযথা রক্তপাত করছে, তাদের সামনে ভয়ংকর দিন আসছে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করে কোথাও গিয়ে রেহাই পাবেন না, সবাইকে বিচারের মুখোমুখি করা হবে। পাহাড়েও আর কোনো রক্তপাত চাই না।

বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) বিকেলে রাঙ্গামাটির ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউটে তিন পার্বত্য জেলার আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

পাহাড়ে যেকোনো অপশক্তিকে মোকাবিলা করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী প্রস্তুত উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী অনেক শক্তিশালী। আমরা যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে সক্ষম। কেউ যদি ঘরে বসে স্বপ্ন দেখেন যে এই অঞ্চলটিকে অস্ত্রের মহড়া দিয়ে অচল করে দেওয়া হবে, সে স্বপ্ন কোনোদিন বাস্তবে রূপ পাবে না। আমরা ধৈর্য ধরে সংকট মোকাবিলা করছি বলে মনে করবেন না আমাদের সক্ষমতা নেই। যেকোনো মূল্যে পাহাড়ে সন্ত্রাসী কার্যক্রম বন্ধ করা হবে।

পার্বত্য অঞ্চলের আর্থসামাজিক উন্নয়নে সরকার কাজ করছে উল্লেখ করে আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, অশান্ত পার্বত্য চট্টগ্রামকে শান্ত করার জন্য যে শান্তিচুক্তি করা হয়েছে, তারই আলোকে এখানে শান্তির সুবাতাস ছড়িয়ে দিতে আমরা বদ্ধপরিকর। শান্তির সুবাতাস দেশের সব জেলার মতো পার্বত্য তিন জেলায়ও সমানতালে ছড়িয়ে দিতে আমরা কাজ করছি। কক্সবাজারের পর্যটন সৌন্দর্যকে কাজে লাগিয়ে যে আর্থসামাজিক উন্নয়ন হয়েছে, পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকেও কাজে লাগিয়েও ঠিক সেভাবেই এখানকার আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন করতে হবে।

আলোচনায় সভাপতির বক্তব্যে পার্বত্য বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদু ঊশৈসিং বলেন, জনগণের জানমাল রক্ষার জন্য যা যা করার দরকার, এই সরকার সবকিছুই করবে। পাহাড়ে আমরা আর স্বজন হারাতে চাই না। পাহাড়ে রক্তপাত বন্ধ করতে সরকার যে পদক্ষেপ নেবে, এখানকার সাধারণ জনগণ তার সঙ্গে থাকবে।

সকাল ১১টায় আলোচনা সভা শুরু হয়ে শেষ হয় বিকেল সাড়ে ৩টায়। আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন রাঙ্গামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা, পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, ডিজিএফআই মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সাইফুল আবেদিন, বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল শাফিন আহমেদ, র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মেজবাহুল ইসলামসহ তিন পার্বত্য জেলায় কর্মরত বিভিন্ন বাহিনী এবং সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা।

এর আগে, বুধবার সন্ধ্যায় রাঙ্গামাটিতে তিন পার্বত্য জেলার আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক উচ্চ পর্যায়ের এক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন